সাম্প্রতিক হালচাল

লিঙ্গ:পুরুষ বয়স: ২৬ মাস্টার্সে পড়াকালীন সময়ে একটি ট্রেনিং সেন্টারে কোর্স করতে গিয়ে, একটি বিবাহিত মেয়ের সাথে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ি, খুব সুন্দর সব কিছু চলছিলো, ওর হাজব্যান্ড ওকে একদমই কেয়ার করতো না, চাকরির জন্য ঢাকার বাইরে থাকতো, আর ও বাবা-মা এর সাথে, আমরা প্রতিদিন রাতে ফোনে কথা বলতাম, আস্তে আস্তে আমরা ভার্সিটির কথা বলে দুজনে পার্কে ঘুরতে যেতাম, তারপর একসাথে বাসায় ফিরতাম,ওকেও বাসা পর্যন্ত এগিয়ে দিতাম, আমার আর ওর পরীক্ষার ডেট চলে আসাতে আর দেখা করা সম্ভব হলো না,  তারপর ও ফোনে যোগাযোগ হত, এরপর একদিন ওর বাসায় ফোন নিয়ে ধরা পড়ে যায় তারপর থেকে আর রাতে কথা বলতে পারে না, ফেসবুক মেসেজে যা কথা হতো, মেয়ের এই অবস্থা দেখে ওর বাবা-মা ওর জামাইকে ওকে এখান থেকে নিয়ে যেতে বলে অন্য কোথাও বাসা নিয়ে থাকতে, এটা শুনে আমি প্রচন্ড রাগ হয়ে গালমন্দ করে ফেলি, আর উল্টাপাল্টা বলে ফেলি, এর আগেও অনেক রাগারাগি হইছে সম্পর্ক চলাকালিন কিন্তু ওগুলা আমরা নিজেরাই মিটিয়ে ফেলি, কিন্তু এই শেষবারের মত ও আর কিছুতেই আমার রাগটা মেনে নিতে পারলো না, এর পর ওর হাজব্যান্ড ওকে নিয়ে চলে গেল, আমাকে কিছু বলেও গেল না, সব দোষ আমাকে দিচ্ছে, আমি নাকি ওকে ব্যবহার করেছি, আরো কত কিছু, আমি এরকম করলে নাকি ওকে এভাবে আসতে হতো না, অথচ আমি ওর কাছে হাত জোড় করে কত ক্ষমা চেয়েছি তার হিসাব নেই, কিন্তু ও কিছুই বুঝলো না, অথচ আমাদের প্ল্যান ছিল ও হাজব্যান্ডের কাছ থেকে ডিভোর্স নিয়ে আমাকে একসেপ্ট করবে, আমিও এতটা সেক্রিফাইস করেছিলাম, ভালবাসায় অন্ধ হয়ে গেছিলাম। সেই অনেকদিন হল যোগাযোগ সব বন্ধ, ও তার হাজব্যান্ডের সাথেই আছে, ভাল আছে কিনা খারাপ সেটা জানি না। আর আমার রাতের পর রাত ঘুম নষ্ট হচ্ছে, কাদতে কাদতে পাথর হয়ে গেছি, প্রতি মূহুর্তে সেই সুন্দর সময়গুলা চোখে ভাসে, ভেতরে এত যন্ত্রণা বোধ হয় বোঝাতে পারবো না,  রাতে হঠাত জেগে উঠলে প্রচন্ড কাদি, কিছুতেই ভুলতে পারছি না সেসব। বাসার মানুষের মধ্যে শুধু আমার আম্মু জানে,  উনি বলেছেন এরকম পরিস্থিতিতে তার কিছুই করার নেই। সত্যি আমি পারছি না এত মানসিক যন্ত্রনা সহ্য করতে, কি করবো ভেবে পাই না, যদি সম্ভব হয় আমার এই কঠিন অবস্থার সমাধান করুন চিরকৃতজ্ঞ থাকবো, ধন্যবাদ।

উত্তর করেছেন : Mamun

  ১ সপ্তাহ পূর্বে

প্রশ্ন করুন আপনিও