সাম্প্রতিক হালচাল

আমি একটা মেয়েকে প্রচুর ভালোবসতাম আর বাসি এখুনো মেয়েটাও আমার থেকে বেশি ভালোবাসে আমাকে অবশ্য মেয়েটাই প্রোপোজ করে আমাকে মেয়েটা ভালো বলে আমি রাজি হই তো আমাদের রিলেশনে কোনোদিন জগড়া বা রাগারাগি হই নাই খুব ভালোবাসতাম দুজন দুজনকে কিন্তু আমাদের রিলেশনে খালি বিপদ আসতো সব বিপদে কে ভুলে আমরা তাও সম্পক টিকে রাখি এসব হতো মেয়েটার বাড়ি থেকে সব জেনে যায় বলে তো মেয়েটাকে জোর করে বিয়ে দিবার জন়্য অনেক চেষ্টা করতো পারতো না মেয়েটা ছিলো ছোট 15 বছর বয়স তো আমার জন্য মেয়েটাকে আমাদের গ্রামের স্কুল থেকে নিয়ে গিয়ে ওর এক আত্মীয় বাড়ি নিয়ে যায় সেখানে ভর্তি করে তারপরও আমাদের সম্পক আরো গভীর হতে থাকে এরকম আবার যখন জেনে যায় আমাদের সম্পক এখনো আছে তখন মেয়েটাকে না বলে জোর করে বাড়ি আনে বিয়ে দিবার জন্য তখন মেয়েটা কিছু না করতে পেরে আমার কাছো চলে আসে তখন আমি কি করবো বুঝতে না পেরে আমিও নিয়ে যাই ওরে কারন প্রচুর ভালোবাসতাম তো গিয়ে আমরা বিয়ে করি বয়স কম হলেও কোট বিয়ে করি আমরা কোট ম়্যারিজ করি তো 6 দিন ছিলাম সেখানে তো আমার দাদা সরকারী চাকরীতে টিকে ছিলো তো ওর নামে মামলা হবে বলে আমরা দুজন থানায় যাই যাতে মামলা না করে তো সেখানে মেয়েটার কাছে সব জিগায় মেয়েটা সব বলে আর আমার সাথেই থাকবে বলে তো এরকম 100 পূলিশ জানতে চায় তাও একই কথা বলে ও কোট নিয়ে যায় সেখানেও একই কথা বলে ফলে দুজনের জেল হয় তো ওরে অগ্রিম জাবিনে বাড়ি নিয়ে যায় ওর বাবা ও যেতে চায় না কিন্তু ওকে বুঝিয়ে ম্যাজিষ্টেডের কাছে শিকার যায় যে আমারে মেনে নিবে একথা বলে ওর বাড়ি নিয়ে যায় আর আমি যাই জেলখানায় নারী শিশু মামলা দিয়ে মানে পুলিশকে টাকা দিয়ে এটা করে মামলা আমার বাবা ও দাদার নামেো দেয় তো এরকম 70টা দিন জেলখাটার পর আমি বেরহই আজ 20 দিন বের হয়েছি এখুনো কোনো খোজ পাই না ওর খালি জানি যে ওর বাড়িতেই আছে আর আমার সাথে বিয়ে দিবো এটা বলে রাখছে যে করুনা ভাইরাস চলে গেলে আবার ভাল মতো বিয়ে দিবে আর আমাকে বের করার জন্য ও ওরবাবাকে নিয়ে কোট যায় কিন্তু ওরবাবা মিথ্যা বলে একটা উপায়ে নিয়ে আসে তারপর সাধারন ছুটি পরে যায় সব বন্ধসহয়ে যায় তখন ওরে বলে রাখে যে করুনা না গেলে জেল হতে বের হতে দিবে না ও অনেকের কাছে জিগায় যে জেলখানা খুলা নাকি জেল হতে বের করা যাবে কি না এখুন এসব তো আমার এখুন কি করা উচিত

উত্তর করেছেন : Mamun

  ১ মাস পূর্বে

প্রশ্ন করুন আপনিও