উত্তর করেছেন : T.Moon

  ১ সপ্তাহ পূর্বে

উত্তর করেছেন : AR Rahman

  ১ সপ্তাহ পূর্বে

উত্তর করেছেন : Masood

  ১ সপ্তাহ পূর্বে

উত্তর করেছেন : Shimu Akter

  ১ সপ্তাহ পূর্বে

অামার ছোট ভাই অাজ এক বছর মানসিক সমস্যায় ভুগছেন। সে অধিক ডিপ্রেশনে অাছে। তাকে ডক্টর দেখানো হয়েছে। মুহিত কামাল কে... এখনো যে সমস্যা গুলো রয়েছে ১> উনি ছোট থেকে একটা মেয়েকে পছন্দ করতো। মেয়েটা তার ক্লাসমেট ছিলো। ক্লাস ফাইভ থেকে একসাথে প্রাইভেট পড়তো। ওই মেয়েদের ফ্যামিলির সাথে অামাদের যোগাযোগ ভালো ছিলো সেই সুবাদে তারা অামাদের বাসায়, অামরা তাদের বাসায় যাতায়াত করতাম! তাদের দুজনের এই সম্পর্কটা বন্ধুত্বের হলেও তারচেয়ে বেশি ছিলো ভেতর ভেতর.... ২০১৮ সালের অগাস্ট/সেপ্টেম্বরে অামাদের এক ভাই, উনার পছন্দের ওই মেয়েটার সঙ্গে উনাকে বিয়ে দিতে মেয়েটার বাবা, মা কে রাজি করাতে পারবে পারিবারিক ভাবে এই বলে প্রতিশ্রুতি দেয়। উনি তারপর বেশ উচ্ছ্বসিত হয়... কিন্তু পারিবারিক ভাবে কথা বলার অাগেই মেয়েটাই উনার এই প্রস্তাবকে রিজেক্ট করে। "মেয়েটা উনাকে রিজেক্ট করার কারণ হিসেবে উনি ধরে নেয় যে, সে ভালো জায়গা থেকে পড়াশোনা করেনি, এবং তার ফিউচার নাই তার জন্য"... এতে করে সে চিন্তা করে তার অনেক বড় হতে হবে, কিছু একটা করতে হবে, ফ্ল্যাট, গাড়ী কিনতে হবে। অনেক সাকসে হতে হবে.... ২> সেই লক্ষে কঠোর পরিশ্রম ও পুরো উদ্যমে সে একটি কোচিং সেন্টার চালু করে কিন্তু নানান প্রতিকূলতায় সেই কোচিং সেন্টারটা কন্টিনিউ করতে পারিনি। একটা সময় তার ইচ্ছের বাহিরে বন্ধ হয়ে যায়। এতে করে উনি ভাবে উনি নিজের কাছে হেরে গিয়েছে! উনি অার কোন কিছু বোধহয় করতে পারবেনা, পারলেও সাকসেস হবেনা... ৩> উনি কুমিল্লা জিলা স্কুলের স্টুডেন্ট, উনার সাথে সব বন্ধুরা ইন্টার মিডিয়েট শেষ করে ভালো ভালো ইউনিভার্সিটি এডমিশন পায় কিন্তু উনি ইংরেজি দুই নম্বরের জন্য ঢাকা ইউনিভার্সিটি তে ভর্তি হতে পারেনি। ৪> উনি ২০০৬ থেকে ২০১০ কুমিল্লা জিলা স্কুলে পড়ার সময় যাদের সঙ্গে একসাথে ছিলো উনার সব বন্ধুরা সবাই, বুয়েট, ঢাকা ইউনিভার্সিটি ও মেডিকেলে পড়ে। ওদের পড়াশোনা শেষ, ওরা ভালো ভালো জায়গায় চাকরি করবে, ওদের ফিউচার অাছে, কিন্তু ওর কি হবে? ৫> উনি অনার্স ফাইনাল ইয়ারে এইসকল কিছু নিয়ে একটা সাবজেক্ট ফেইল করে। যেটা নিয়ে তার মধ্যে চিন্তা অাসে উনি তো এমন ছাত্র না, তাহলে কেন ফেল করলো! ৬> উনি কখনো একা থাকতে পারতোনা, সবসময় কোন না কোন কাজ নিয়ে সারাক্ষণ ব্যস্ত থাকতেই পছন্দ করতো। যে কোন কাজ খুব অাগ্রহের সঙ্গে করতো। এবং সেটা পরিপূর্ণ ভাবে সুন্দর মত শেষ করতো কাজের কিছু রেফারেন্স> ১-যেমন উনার ছোট ভাই শিশিরের  ফুল চিকিৎসা (শিশির ইলেকট্রিক শক খেয়েছিলো) ২- অামাদের বাসার দুতলা সম্পূর্ণ কাজ, ডিজাইন, ও অন্যান্য সকল কাজ উনি নিজেই করেছে। ৩- ফ্যামিলি, ফ্রেন্ড, বড় ভাই, ও ফ্রেন্ডদের ফ্যামিলির যেকোনো সময় কাজে সাহায্য করতো। ৪- পোলাপান নিয়ে থাকতে পছন্দ করতো সবসময় কিন্তু গত একবছর যাবৎ সে বসা কোন কিছুই করছেনা, তার কিছু করতে নাকি ভালোই লাগছেনা। কোন কিছু করতে পারবেনা, পারলেও সাকসেস হতে পারবেনা এমন ভয় ঢুকে গেছে ভেতরে... উনি খুব স্বপ্নবাজ, ও চঞ্চল প্রকৃতির ছিলেন। যেকোনো পরিস্থিতি খুউব স্বাভাবিক ও সুন্দর ভাবে মেইনটেইন করতে পারতেন... ছোটবেলা থেকেই উনি খুব কর্মটে ও অ্যাক্টিভ ছিলেন। কোন কাজ করলে সেটা সম্পূর্ণ না করে থাকতেননা... ৭> ২০০৬ সাল থেকে উনি বাসার বাহিরে। হোস্টেলে থেকে পড়াশোনা করেছেন। নিজের পড়াশোনার খরচ ও নিজ দায়িত্ব নিজে নিয়ে চলেছে ২০০৬ থেকেই। উনি সবসময় অাব্বুর টাকা খরচ নিয়ে চিন্তা করতো। খুব একটা খরচ করতে চাইতোনা। সাদামাটা জীবন যাপন করতো। (ঈদে পাঞ্জাবি সবাই কিনতাম অামরা, কিন্তু উনি বলতো একদিনের জন্য নতুন পাঞ্জাবী দিয়ে কি হবে? বড় ভাইয়ার পাঞ্জাবী থেকে একটা পড়ে নামাজ পড়ে অাসবো। এমন সাশ্রয়ী ছিলেন) ৮> ২০১৯ সালের বই মেলা থেকে সে পাঁচটি বই গিফট পায়/ কিনে! ১-বিরহের তসবি ২- বাংলার ধর্ম ও দর্শন ৩-অাগুন পাখি ৪- বিভ্রম ৫- শেষ প্রশ্ন

উত্তর করেছেন : Shimu Akter

  ১ সপ্তাহ পূর্বে

উত্তর করেছেন : Maya Apa

  ১ সপ্তাহ পূর্বে

উত্তর করেছেন : Dr. Tah

  ১ সপ্তাহ পূর্বে

প্রশ্ন করুন আপনিও