প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আপনার বয়স কত?আপনি ছেলে না মেয়ে?কি কাজ করেন? আপনার অন্যকোন শারীরিক সমস্যা আছে কি? আমাদের জানান।     প্রথমে জেনে নিন আপনার ঘুমের কোন সমস্যা বা নার্ভাস ডিসঅর্ডার আছে কিনা। আপনার ওজন বেশি থাকলে বা  স্থূলতার সমস্যা থাকলে ও অতিরিক্ত ঘুম আসতে পারে। এছাড়া, আপনার  হাইপোথাইরয়েডিজম থাকলে ও অতিরিক্ত ঘুম আসতে পারে। সেক্ষেত্রে একজন মেডিসিন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন। শরীরে রক্ত কমে গেলে ঘুম বেশী আসে এইজন্য আয়রন ফলিক এসিড সাপ্লিমেন্ট খেতে পারেন আপনি । পড়াশুনা বেশী থাকলে দিনের বেলা, বিকেল বেলা পড়ুন। চা কফি খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে পারেন। তবে অবশ্যই তা বেশি না। । আপেল কলা খাওয়ার অভ্যাস করুন। আপেলের ক্যাফেইন ঘুম তাড়ায়। আর রাতে শোবার আগে কলা খেলে ঘুম ভালো হয়। রাতে খুব ভালো ঘুম হলে দিনে ঝিমুনি ভাবটা থাকেনা। এছাড়া যা যা করবেন : ১। দুপুরে ঘুমাবেন না । ২। রাতের ঘুমটা সময়মতে ঘুমানোর চেষ্টা করুন। ৩। সারাদিন অল্প অল্প করে চার থেকে পাঁচবার খাবেন, বেশি খাবার ঘুম বাড়ায়। তাই বেশি খাবার সম্পূর্ণ রুপে বর্জন করুন। ৪। লাল মাংস, মিষ্টি, ভাত, আম -এগুলো ঘুম বাড়ায়-যথাসম্ভব বর্জন করুন। ৫। শুয়ে শুয়ে বই পড়ার অভ্যাস বাদ দিন। ৬। প্রতিদিন আধাঘন্টা ব্যায়াম করুন -ঘুমানোর আগে হাঁটুন। ৭। নেশাজাতীয় দ্রব্য বর্জন করুন। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

পরিচয় গোপন রেখে ফ্রিতে শারীরিক, মানসিক এবং লাইফস্টাইল বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করতে পারেন Maya অ্যাপ থেকে। অ্যাপের ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://bit.ly/38Mq0qn


প্রশ্ন করুন আপনিও