প্রিয় গ্রাহক,আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।১)Brain Game স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে।তাই প্রতিদিন নাহলেও মাঝে মাঝে Brain Game খেলতে পারেন। ২)শাক-সবজি এবং শস্য জাতীয় খাবার যেমন: গম, যব এগুলো খাদ্য তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করুন। নিম্ন মাত্রার চর্বিযুক্ত খাবার খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন এবং প্রোটিন যুক্ত খাবার খান; যেমনঃ মাছ, চর্বিহীন মাংস ইত্যাদি। এ খাবার গুলো আপনার মস্তিস্কে পুষ্টি সরবরাহ করে আপনার স্মৃতিকে উন্নত করবে।৩) বিষণ্ণতা এবং অতিরিক্ত মানসিক চাপ স্মৃতি শক্তি কমে যাওয়ার অন্যতম কারণ। তাই সামাজিক কর্মকাণ্ডে নিজেকে যুক্ত করুন। সামাজিক কর্মকাণ্ড বিষণ্ণতা এবং মানসিক চাপ থেকে বেরিয়ে আসতে সহায়তা করে।৪) রাতে কম পক্ষে ৮ ঘণ্টা ঘুমালে তা আমাদের স্মৃতিকে ক্ষণস্থায়ী থেকে দীর্ঘস্থায়ী হতে সাহায্য করে তাই প্রতি রাতে অন্তত পক্ষে ৮ ঘণ্টা ঘুমানোর অভ্যাস করুন।আমরা অনেকেই একসাথে অনেকগুলো কাজ করে থাকি। ৫) একসাথে অনেক কাজ করলে মস্তিষ্ক ঠিকমতো স্নায়ু সংযোগ করতে পারেনা সেই ক্ষেত্রে আমরা কাজগুলো করি ঠিকই কিন্তু সেগুলোর তথ্য ক্ষণস্থায়ী স্মৃতি থেকে দীর্ঘস্থায়ী স্মৃতিতে সংরক্ষিত হয় না এবং তখন আমরা ভুলে যাই । তাই স্মৃতি শক্তিকে উন্নত করতে হলে একসাথে অনেক কাজ করা থেকে বিরত থাকুন।৬)শারীরিক পরিশ্রম পুরো শরীর এবং মস্তিস্কে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে । এই রক্ত সঞ্চালন আমাদের স্মৃতিকে উন্নত করতে সহায়তা করে । সুতরাং দিনের কিছু সময় অতিবাহিত করুন শারীরিক পরিশ্রম বা ব্যায়াম করে।৭) যে বিষয়গুলো স্মৃতিতে রাখতে চান তা লিখে ফেলার অভ্যাস করুন। একবার লেখা নাকি বিশবার পড়ার সমান। এটার বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যাও আছে। লেখার সময় মস্তিষ্কে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তপ্রবাহের পরিমান বাড়ে। তাই লিখে রাখুন ডায়রিতে, ইমেইলে বা ব্যক্তিগত ব্লগে।৮)নিজে যা শিখতে চাচ্ছেন। তা একবার শিখে নিয়ে অন্যকে শেখান। আরজনকে শেখাতে গিয়ে দেখবেন আপনার জানার ঘাটতিগুলো ধরতে পারছেন। আবার চর্চাও হবে আরেক জনকে শেখানোর মাধ্যমে। নতুন কিছু বিষয়ে আপনার কোন চিন্তা আরেকজনের সাথে শেয়ারও করতে পারেন। তাহলে আপনার স্মৃতিতে তা স্থায়ী হবে। লোকটাকে দেখা মাত্রই বিষয়টি আপনার স্মৃতিতে আসবে। চর্চা আর প্রচেষ্টার মাধ্যমে সব কিছু অর্জন সম্ভব। একটু চেষ্টা করলেই বাড়িয়ে নিতে পারেন স্মৃতিশক্তি, মনে রাখার ক্ষমতা। সুস্থ থাকুন।আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি।আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন,রয়েছে পাশে সবসময়,মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও