প্রিয় গ্রাহক,আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। প্রথমত মাসিকের তারিখ পার হয়ে যাওয়ার পরও মাসিক না হলে প্রেগন্যান্সি টেস্ট করে দেখতে হবে।প্রেগন্যান্সির প্রথম শারীরিক চিহ্ন পিরিয়ড মিস করা। তথাপি  আদতেই প্রেগন্যান্ট কিনা জানার জন্য প্রেগন্যান্সি টেষ্ট করতে হবে। এই টেষ্ট দুইভাবে করা যেতে পারে—রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে Beta hCG লেভেল জেনে এবং ঘরে বসে একটি টেস্ট স্টিক এ (সকালের প্রথম প্রস্রাব) urinating এর মাধ্যমে। প্রেগন্যান্সির ১১ দিনের ভেতর Beta hCG লেভেল জানা যায় এবং এটা প্রতি ৪৮—৭২ ঘন্টায় দ্বিগুণ হতে থাকে। ঘরে বসে ইউরিন পরীক্ষা করে প্রেগন্যান্সি টেষ্ট করা যেতে পারে পিরিয়ড মিস এর প্রথম দিন এবং unprotected sex এর তিন সপ্তাহ পর । প্রেগন্যান্সি টেস্ট রেজাল্ট নেগেটিভ হলে সেক্ষেত্রে মাসিক অনিয়মিতের কারনগুলো দেখতে হবে, একজন গাইনী ডাক্তার দেখিয়ে নিতে হবে। উল্লেখ্য, অনিরাপদ শারীরিক সম্পর্কের নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ইমার্জেন্সি পিল খেতে হয়, আপনার সঙ্গী সেই সময়ের মধ্যে খেয়েছিল কিনা এটা দেখা উচিত।আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি।আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন,রয়েছে পাশে সবসময়,মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও