প্রিয় গ্রাহক,আপনার অনুভূতি গুলো শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ। আপনার কথা থেকে বুঝতে পারছি আপনার স্বামীর রাগ একটু বেশি তাই আপনার তার সাথে adjust করতে একটু সমস্যা হচ্ছে তাই তো? আসলে রাগ মানুষের একটা স্বাভাবিক ইমোশন। তাই রাগ কে পজিটিভ ভাবে প্রকাশ করা সবার জন্য ই ভালো। পজিটিভ ভাবে বলতে বুঝায় অন্যের কোনো ক্ষতি না করে বা নিজের কোনো ক্ষতি না করে রাগ কে প্রকাশ করা।তাই আগে খুজে বের করুন উনি কোন কোন সময় বেশি রাগ করেন বা কোন পরিস্থিতিতে বেশি রাগ করেন। ঐ পরিস্থিতি গুলোতে উনার সাথে কথা বলার জন্য অন্য কিভাবে আর কথা বলা যায় সেটা ভেবে দেখতে পারেন। উনার ভাল লাগা ও খারাপ লাগার জায়গা গুলো জেনে সেই অনুযায়ি তার সাথে আচরণ করার চেষ্টা করা। আপনাদের দুজনের মধ্যে দাম্পত্য সম্পর্ক কেমন সেটা ভেবে দেখতে পারেন কারন সম্পর্ক ভালো থাকলে দাম্পত্য জীবনে অনেক সমস্যা এমনিতেই কমে আসে।তাই সর্ম্পক সুন্দর রাখার চেষ্টা করতে পারেন। একে অপরের মনকে বুঝার চেষ্টা করতে পারেন। বেশি বেশি নিজেদের মাঝে শেয়ারিং বাড়াতে পারেন এতে দুজনের মধ্যে বোঝাপড়া বাড়বে। পাশাপাশি রাগ কন্ট্রোল এর কিছু নিয়ম তার সাথে শেয়ার করতে পারেন। যেমনঃ  রাগ হলে কিছু সময় নিন সেই স্থান টা থেকে বেরিয়ে যেতে পারে এ সময়ে ১-১০ পর্যন্ত গুনতে পারে।এরপর তার যা বলার তা প্রকাশ করতে পারে।যেমন- এভাবে বলতে পারে আমি রাগ অনুভব করছি যেহেতু তুমি খাওয়ার পর প্লেট টা না গুছিয়ে ই চলে গেছো।এছাড়া ও রাগের সময় কিছু শারীরিক ব্যায়াম বা মেডিটেশন করা যেতে পারে।রাগ কমানোর জন্য রাগের কারন টা ডায়েরি তে লিখা যেতে পারে।এছাড়া যখন রাগ হবে তখন গুন গুন করে গান করা বা অন্য কাজ করা ইত্যাদি করলে রাগ কিছু টা কমে।এছাড়া দুইজন একসাথে রাগ না করে একজন চুপ থাকা এবং পরে রাগ কমে গেলে তখন ঐ বিষয় টি নিয়ে কথা বলতে পারেন।ধরুন তার কোনো কোথায় আপনার খুব রাগ হলো কিন্তু তখন ই সেটা তাকে প্রকাশ না করে কিছুক্ষন অন্য কাজ করতে পারেন বা মনে মনে ১-১০ পর্যন্ত গুনতে পারেন।জোড়ে জোড়ে নিঃশ্বাস নিতে পারেন কিছুক্ষন এতে দেখবেন রাগ টা কিছুটা কম অনুভব হচ্ছে তখন আপনার মনের কথাটা বা তার যে কথাটা নিয়ে রাগ হয়েছে সেটা ধীরে ধীরে বুঝিয়ে বলতে পারেন।তবে বলার সময় অভিযোগ এর সুরে না বলে আপনার খারাপ লাগাটা প্রকাশ করার চেষ্টা করতে পারেন।এতে দেখবেন ঝগড়া বা মনোমালিন্য এর সৃষ্টি হবেনা সেই সাথে আপনি যেটা বলতে চান সেটাও বলা হবে।আশা করি ,আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোনো প্রশ্ন থাকলে মায়া কে জানাবেন,রয়েছে পাশে সবসময় মায়া ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও