প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। ধূমপান এর ক্ষতির দিকগুলো নিচে তুলে ধরা হল। ১। প্রথম ধূমপানের ফলে যৌন ক্ষমতা কমে যায়। ফলে দাম্পত্য জীবনে অশান্তি নেমে আসে। দেখা দেয় পরিবার ভাঙ্গন। ২। ধূমপায়ীর মুখে প্রচণ্ড র্দুগন্ধ হয়। অনেক অধূমপায়ী স্ত্রী স্বামীর এই অসহনীয় দুর্গন্ধ সহ্য করতে পারে না। ফলে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝাগড়ার সৃষ্টি হয়। এর ফলে পরিবারে ভাঙ্গন সৃষ্টি হয়। ৩। ধূমপায়ীর ঠোঁট কালো হয়ে যায়। ৪। ধূমপানের ফলে মরণব্যাধি ক্যান্সার সৃষ্টি করে। ক্যান্সার মানুষকে ধুকে ধুকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়। ৫। আয়ু কমে যায়। ৬। আলসার হয়। ৭। গ্যাস্ট্রিক হয়। ৮। ফুসফুসে ক্যান্সার হয়। বিজ্ঞানীরা গবেষণা করে দেখেছেন যে, ধূমপানের ফলে ধোঁয়ার সাথে নিকোটিন নামক এক প্রকার বিষাক্ত পদার্থ মানুষের শ্বাসনালী দিয়ে প্রথমে ফুসফুসে প্রবেশ করে, পরে তার রক্তের সাথে মিশে সারা দেহে ছড়িয়ে পড়ে এবং কিছু অংশ পুনরায় বের করে দেয়া ধোঁয়ার সঙ্গে বের হয়ে আসে। এর ফলে নিয়মিত যারা ধূমপান করে তাদের ফুসফুসের ভেতর খুব ধীরে ধীরে মৌচাকের মত নিকোটিন জমতে থাকে। এই বিষ এক সময় ফুসফুসকে পঙ্গু করে দেয়। এই নিকোটিন অত্যন্ত ক্ষতিকর। যদি কোন সুস্থ্য মানুষের দেহে বিশটি সিগারেটের নিকোটিন এক সাথে ইনজেকশনের মাধ্যমে প্রবেশ করানো যায়, তাহলে তার মৃত্যু অনিবার্য। ৯। স্তন ক্যান্সার হয়। ১০। যক্ষ্মা হয়। ১১। শ্বাসকষ্ট হয়। ১২। হাঁপানি হয়। ১৩। দন্ত ক্ষয়, দাঁতের স্বাভাবিক সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে যায়। ১৪। হৃদরোগ হয়। ১৫। দৃষ্টি শক্তির ক্ষতিসাধন করে। এক সময় চোখ অন্ধ হয়ে যায়। ১৬। মস্তিষ্কের রক্তরণের অন্যতম প্রধান কারণ ধূমপান। ১৭। হৃৎপিন্ডে রক্ত সঞ্চালনে বাধা সৃষ্টি করে। ১৮। উচ্চ রক্তচাপ বৃদ্ধি করে। ১৯। স্বাস্থ্য নষ্ট করে। ২০। ক্ষুধামান্দা দেখা দেয়। ২১। গর্ভবতী নারীরা যারা ধূমপান করেন তাদের মধ্যে তাদের শিশুর শারীরিক ওজন কম হবে। আবার মৃত্যুর কারণ ও হতে পারে। ২২। সিগারেট শুধু নিজে জ্বলে না, অন্যকে জ্বালায়। যেমন যারা ধূমপান করে না তারা যদি ধূমপায়ীদের নিকট বসা থাকে তাহলে তাদের উপরও ধূমপানের প্রভাব পড়ে। ২৩। ধূমপানের ধোঁয়া শিশুদের উপর প্রভাব পড়ে। এই বিষাক্ত ধোঁয়ার ফলে অনেক শিশু হাঁপানিতে ভুগতে পারে। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও