প্রিয় গ্রাহক আপনার সমস্যাটি আমাকে খুলে বলার জন্য ধন্যবাদ। প্রিয় গ্রাহক আপনি কি কোন বাক্তিগত, পারিবারিক বা সামাজিক সমস্যার মাঝে রয়েছেন? পরিশ্রম করার সময় কাজকে কেন্দ্র করে কি আপনার মাঝে কোন ভয় কাজ করে থাকে? কাজের সময় আপনার কি চিন্তা হয়? আর শ্রমের প্রতি অনিহা কতদিন থেকে কাজ করছে তা কি আমার সাথে শেয়ার করা যায়।  কাজের প্রতি ইতিবাচক মনোভাব আনতে আপনি যা করতে পারেন তা হল, ১. নিয়মিত নিজের ইতিবাচক চিন্তাভাবনা গুলো খাতাই লিপিবদ্ধ করার অভ্যাস করতে পারেন, ফলে আপনার দৈনন্দিন চিন্তাই ইতিবাচক ভাব প্রকাশিত হবে, যা আপনাকে কাজে মনযোগী থাকতে হেল্প করতে পারে।২.নিজেকে অন্যের সাথে তুলনাকরা থেকে বিরত থাকুন, কারন তুলনা মানুষের ভিতরে ঈর্ষান্বত মনোভাব তৈরী করে থাকে। এতে মন আক্রন্ত, ফলে মনের শান্তি নষ্ট হয় ও কাজে অনিহা তয়রি করে থাকে ৩.অন্যের সফলতাকে ইতিবাচক ভাবে গ্রহণ করার অভ্যাস করতে পারেন, এতে করে আপনার মাঝে সফলতা লাভের ইচ্ছা বাড়তে পারে, যা আপনাকে কাজে উদ্দীপ্ত রাখতে সাহায্য করতে পারে ৪. অতি নেতিবাচক মানুষের সাথে মেশা বা ঘুরা বন্ধ করতে পারেন, কারন নেতিবাচক মানুষের সংস্পর্ষে আপনিও নেতিবাচক হয়ে যেতে পারেন। তাই সফলদের সাথে মেশার অভ্যাস করতে পারেন। নিয়মিত আত্ত্ব উন্নয়নমূলক বই পড়ার, মুভি দেখার অভ্যাস করতে পারেন এতে করে আপনার কাজের প্রতি ইতিবাচক মনোভাব তৈরী হতে পারে।একসাথে একটা কাজ করুন, একাধিক কাজ মনোযোগ নষ্ট করে ও কাজের আগ্রহ কমাতে পারে।  আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি, আর কোন প্রশ্ন থাকলে করতে পারেন।কাজে সফল হলে নিজেকে প্রশংসা করুন দেখবেন কাজে আগ্রহ বাড়বে। 

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও