প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। শুধু শীতকালেই নয়, গরমের সময়েও অনেকে ত্বকের শুষ্কতা নিয়ে সমস্যায় ভোগেন। নিত্যদিনের ব্যস্ততায় কারই বা সময় আছে আলাদা ভাবে ত্বকের একটু বেশি যত্ন নেয়ার।কিন্তু ঠিকমতো যত্ন না নিলে ত্বক শুষ্ক ও রুক্ষ্ম হয়ে যায়, ত্বকের উজ্জ্বলতা হারায়, ত্বকের উপরিভাগ কালো হয়ে আসে এবং ত্বক ফেটে যায়। ত্বককে শুষ্কতার হাত থেকে বাঁচাবার কিছু উপায়-ত্বককে যতটা সম্ভব আর্দ্র রাখতে হবে। প্রতিদিন নিয়মিত ২ বার বা প্রয়োজনে ৩ বার ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। ত্বকের শুষ্ক ভাব দূর হয়ে নরম ও মসৃণ হবে।পরিমাণমতো পানি পান না করলে ত্বক পানিশূন্য হয়ে পরে। এতে ত্বক শুষ্ক, রুক্ষ ও নিষ্প্রাণ হয়ে পরে। তাই দিনে ১২ গ্লাস পানি পান করুন।অ্যালকালাইন ত্বকের উপরিভাগের আদ্রর্তা দূর করে যা ত্বকের শুষ্কতার জন্য অনেকাংশে দায়ী। তাই ফেসওয়াস ও সাবান নির্বাচন করুন অ্যালকালাইন মুক্ত। এতে ত্বকের আদ্রর্তা বজায় থাকবে ও ত্বক শুষ্ক হবে না।আমাদের ত্বকের শুষ্কতা অনেকটাই বেড়ে যায় খাদ্যাভ্যাসের কারণে। তাই ত্বকের আদ্রর্তা বজায় রাখতে পানিযুক্ত খাবার খাওয়া অনেক বেশি জরুরি। পানি সমৃদ্ধ সবজি ও ফলমূল খান। এগুলো দেহের পানির পরিমাণ ঠিক রাখে ও ত্বক শুষ্ক হওয়ার হাত থেকে বাঁচায়।ত্বক যদি খুব বেশি পরিমাণে শুষ্ক হয় তবে তা দূর করতে মধুর সাহায্য নিন। এই কাজটি রাতে করলে সব চাইতে ভালো ফল পাবেন। এক টেবিল চামচ মধু হাতে নিয়ে মুখে ম্যাসাজ করুন ২০-২৫ মিনিট। পরে মুখ ধুয়ে ফেলুন পানি দিয়ে। মুখে কোনো ধরনের প্রসাধনী লাগাবেন না।সকালে উঠে সাধারণভাবে মুখ ধুয়ে ময়সচারাইজার লাগান। প্রতিদিন ব্যবহারে ত্বকের শুষ্কতা দূর হওয়ার সাথে সাথে ত্বক উজ্জ্বল, মসৃণ ও কোমল হবে। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও