গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।গ্রাহক, পুরুষদের জন্ম নিয়ন্ত্রন এর স্থায়ী ও অস্থায়ী দুটি পদ্ধতি রয়েছে।জন্ম নিয়ন্ত্রনের অস্থায়ী ব্যবস্থা ঃ কনডম :পুরুষদের ব্যবহারের জন্য ১টি নিরাপদ, অস্থায়ী জন্মনিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি। এটি ব্যবহারে শুক্রাণু জরায়ুতে প্রবেশ করতে পারে না। ফলে গর্ভধারণের সম্ভাবনা থাকে না।সঠিকভাবে ব্যবহার করলে এটি শতকরা ৯৭ ভাগ কার্যকর। এতে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই বললেই চলে। পাশাপাশি এটি যৌনবাহিত রোগ এবং সংক্রমণ প্রতিরোধ করে।প্রতিবার সহবাসের সময় ১টি নতুন কনডম ব্যবহার করতে হয়। ৫ বছরের বেশি পুরোনো বা মেয়াদউত্তীর্ণ কনডম ব্যবহার করা উচিত নয়।নববিবাহিত, যার স্ত্রী সম্প্রতি সন্তান প্রসব করেছেন, সন্তানকে বুকের দুধ খাওয়াচ্ছেন, যে দম্পতি দুজন দু জায়গায় থাকেন এবং মাঝে মাঝে সহবাসে মিলিত হন, যার স্ত্রী পরপর ২ বা তার বেশি দিন খাবার বড়ি খেতে ভুলে গেছেন- তারা মাস শেষ হওয়ার বাকি দিনগুলোতে কনডম ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়া যারা অন্য কোনো পদ্ধতি গ্রহণের কথা ভাবছেন কিন্তু এখনো মনস্থির করতে পারছেন না কিংবা ভ্যাসেকটমির পর ২০ বার সহবাসের সময় কনডম ব্যবহার করা উচিত। স্থায়ী জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি হল ভ্যাসেকটমি। পুরুষদের জন্য এ পদ্ধতি স্থায়ী, কার্যকর ও নিরাপদ। এটি সহজ ও ছোট্র অপারেশনের মাধ্যমে পুরুষদেরকে এ পদ্ধতি প্রদান করা হয়। এই ছোট্র অপারেশনকে এনএসভি বলা হয়।এ পদ্ধতি গ্রহণের জন্য যে সকল সক্ষম দম্পতির ২টি জীবিত সন্তান রয়েছে এবং ছোটটির বয়স কমপক্ষে ১ বছর অতিক্রান্ত হয়েছে তাদের জন্য এ পদ্ধতি প্রযোজ্য।এনএসভি (ভ্যাসেকটমি)-এর সুবিধা সমূহঃ* এটি ছুরি কাটাবিহীন স্থায়ী পদ্ধতি।* অপারেশনের দু’দিন পরেই স্বাভাবিক কাজ-কর্ম করা যায়।* কোনো পার্শ্বা-প্রতিক্রিয়া নেই।* অপারেশনের জন্য কোনো কাটা বা সেলাই লাগে না, রক্তপাত নেই বললেই চলে। মাত্র ৫ থেকে ৭ মিনিট সময় লাগে। অপারেশনের পর সামান্য ব্যথা থাকে।* যৌন ক্ষমতা স্বাভাবিক থাকে।এনএসভি (ভ্যাসেকটমি)-এর অসুবিধা সমূহঃ* এ পদ্ধতি অপারেশনের ৩ মাস পর থেকে কার্যকর হয়।* অপারেশনের পর প্রথম ৩ মাস সহবাসের সময় কনডম ব্যবহার অথবা স্ত্রীকে অন্য যে কোন অস্থায়ী পদ্ধতি ব্যবহার করতে হবে।* প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ডাক্তার দ্বারা এ অপারেশন করতে হয়।* পূর্বাবস্থায় সহজে ফিরে যাওয়া যায় না।আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে জানাবেন। রয়েছে পাশে সবসময় মায়া আপা।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও