আমি বর্তমানে অনার্স ৩য় বর্ষে পড়ি। আজ থেকে এক বছর আগে ফেসবুকে একটা মেয়ের সাথে পরিচয় হয়। মেয়েটাই প্রথমে আমাকে হাই লেখে মেসেজ দেয়। তারপর আমরা পারষ্পারিক পরিচয়ের মাধ্যমে খুব ঘনিষ্ঠ হয়ে যাই। আমরা খুব মজা করতাম, ফান করে বলতাম চলো আমরা প্রেম করি। কিন্তু ও রাজি হতোনা বলতো আমরা ভাইবোনের মতো দুষ্টুমির সম্পর্ক রাখব। কারন ভাইবোনের সম্পর্ক অনেক মধুর হয় আর এতে ভাংগনের ও ভয় থাকেনা। তাছাড়া আমাদের রিলেশন করা সম্ভবও ছিলোনা কেননা ওর বাড়ি কিশোরগঞ্জ আর আমার কোথায় জয়পুরহাট। নিয়মিত চলতো আমাদের ফেসবুকের কথাবার্তা, একপর্যায়ে ফোনালাপ ও শুরু হয়। ফাজলামির ছলে অনেকবার প্রপোজ করেছি ও শুধু বলতো, আমি তোমাকে কষ্ট দিতে পারবো না। এক সময় ও নিজেও আমার প্রতি দুর্বল হয়ে পড়ে এবং নিজেই আমাকে প্রপোজ করে। এভাবে ভালোই চলছিল আমাদের দুষ্টু মিষ্টি সম্পর্ক। খুব বেশি ফেসবুকে চ্যাট করার জন্য আমার মাথার সমস্যা হতে লাগলো মাথা ভারি হয়ে থাকে, মাথা ব্যথা করে, স্বাভাবিক জীবনের সাথে তাল মিলাতে পারিনা, বন্ধুদের সাথে মিশতে পারিনা, একটা এলোমেলো টাইপের হয়ে গেলাম আমি। তাছাড়া ওকে কাছে পাওয়ার একটা তীব্র আকাংখা আর সারাক্ষণ ওর ভাবনায় পাগল পরায় হয়ে গেলাম। যতই ওর সাথে যোগাযোগ করি ততই আমার যন্ত্রনা বাড়তে থাকে অর্থাৎ আমি মানসিক রোগীতে পরিনত হলাম। কি করব ভেবে পাচ্ছিলাম না, অবশেষে এক ডাক্তারের কাছে যাই উনাকে সবকিছু খুলে বলি। উনি আমাকে ওষুধ দেন এবং সেই সাথে মেয়েটা কে ভুলে যেতে বলেন। এটা আমার পক্ষে অনেক কঠিন ছিল। কিন্তু আমি নিজেও উপলব্ধি করলাম যে ওকে ভুলতে পারলেই মনে হয় আমি সুস্থ হতে পারবো। তাই অগত্যা ওর থেকে দুরে সরে যেতে থাকলাম। ওর সাথে খারাপ আচরণ করতে থাকি এবং ওর সাথে ব্রেক আপ করে ফেলি। সেদিন আমি খুব কেঁদেছিলাম আর ওকে সবকিছু খুলেই বলছিলাম। ও আমার ভালোর জন্য এটা মেনে নিয়েছে। আর আমাকে বলেছে, আমাকে ভুলে যদি ভালো থাকতে পারো তবে বাধা দিবো না। তবে আমাকে যদি কখনো মনে পড়ে তবে ভালোবাসার হাতটা বাড়িয়ে দিও ফিরিয়ে দিবো না। যাই হোক একমাস হয়ে গেলো ওর সাথে আমার যোগাযোগ নেই, কিন্তু আমি এখনও ওকে না পারছি ভুলতে আর না পারছি সুস্থ হতে। এদিকে ওর সাথে কথা বলতে আমার খুব ইচ্ছে করে, অনেক মিস করি। এখন আমি কি করবো, আমার কি করা উচিৎ। প্লিজ আমাকে সুপরামরশ দিবেন

প্রিয় গ্রাহক,আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।আপনি মানসিকভাবে অনেক কষ্টে থেকেও আপনার অসুবিধার কথাগুলো খুব সুন্দর করে গুছিয়ে তুলে ধরেছেন। আমি আপনার অবস্থানটি বুঝতে পারছি এবং আপনার অনুভূতিগুলো অনুভব করতে পারছি। আপনি কোন বিষয়ে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের কাছে পরামর্শ নিয়েছিলেন সেটা জানতে পারলে ভালো হত। যখন আমরা মাত্রাতিরিক্ত কোন বিষয় নিয়ে ভাবতে থাকি তখন আমরা সেটি নিয়ে অবসেসড হয়ে পড়ি। কোন বিষয়ে অবসেশন এবং মাত্রাতিরিক্ত ফেসবুক ব্যাবহার দুটিই স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। আপনি মেয়েটিকে ভালোবাসেন এবং এখনো তাকে মিস করেন। যার ফলে আপনি যোগাযোগ বন্ধ করেও ভালো থাকতে পারছেন না। এই অবস্থায় আপনি তার সাথে আলোচনা করতে পারেন এবং মিউচুয়ালি কিছু বিষয় ঠিক করতে পারেন। যেমন, কতটুকু সময় কথা বলা আপনার জন্য স্বাস্থ্যকর হবে, আপনি তাকে কিভাবে প্রত্যাশা করেন ইত্যাদি। এর সাথে আপনি চিকিৎসার জন্য কোন মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে পারেন। পাশাপাশি, আপনি কাউন্সেলিং বা সাইকোথেরাপীও নিতে পারেন। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও