উচ্চ রক্তচাপ, সাধারণভাবে যা আমরা বলে থাকি হাই ব্লাড প্রেসার, এখন একটি বিশ্বব্যাপী সংকট হয়ে দাঁড়িয়েছে। ব্লাড প্রেসার ৯০ থেকে ১৪০ এর উপর গেলেই তাকে উচ্চ রক্তচাপ হিসাবে গণনা করা হয়। এর প্রধান ঝুঁকির মধ্যে পরে হৃদরোগ, কিডনি বিষয়ক রোগ, স্ট্রোক। হাই ব্লাড প্রেসার থাকলে অথবা না হয়ে থাকলেও, তা নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য রোজকার জীবনে কিছু জিনিষ মেনে চলে এই ঝুঁকি এড়ানো সম্ভব।যেসব নিয়ম মেনে জীবনধারায় পরিবর্তন এনে আপনি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারবেন তা হলঃ১। স্বাস্থ্যকর ওজন বজায় রাখা. মাত্রাতিরিক্ত ওজন ২ থেকে ৬ গুণ বেশি উচ্চ রক্তচাপ এ আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা দেখায়।২। নিয়মিত ব্যায়াম করা। যারা বেশি শারীরিক পরিশ্রম করে, তাদের উচ্চ রক্তচাপের সবচেয়ে কম ঝুঁকি থাকে। হালকা পরিশ্রমও, যেমন হাটা চলা, ঘরের কাজ, ইত্যাদি, যদি নিয়মিত করা যায়, তা মানুষকে ঝুঁকিমুক্ত রাখবে।৩। কম লবণ খাওয়া। প্রতিদিন ২.৫ গ্রাম এর বেশি লবণ খাওয়া একদম এ চলবে না। কাঁচা লবণ খাওয়া পুরোপুরি বাদ দিতে হবে ও রান্নাতেও লবণের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। সোডিয়াম বেশি থাকা খাবার, যেমন প্যাকেট এর চিপস না খাওয়াই উপযুক্ত।৪। পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম যুক্ত খাবার খাওয়া।নার্ভের কার্যকলাপ ভালো রাখতে, মাসল কন্ট্রোল রাখতে ও ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণ রাখতে সহায়তা করে পটাশিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম। সবুজ শাক-সবজির ও সাথে লেবু, কমলালেবু, কলা, টমেটো, ডাবের পানিও খেতে হবে। পটাশিয়াম সমৃদ্ধ খাবার যেমন আলুবোখারা, আম, সবুজ মুগ ডাল, মিষ্টি আলু, পালং শাক, বেগুন জাতীয় খাবার শরীরে লবণ ও ফ্লুয়িড ব্যালেন্স বজায় রেখে ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণে রাখে।শরীরে ক্যালসিয়ামের অভাব হলেও হাইপারটেনশনের আশঙ্কা বেড়ে যায়। তিল, কমলালেবু, মেথি, ধনেপাতা, ফুলকপি, গাজর খাওয়ার অভ্যাস করতে হবে। রসুনও ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে।৫। নিজেকে স্ট্রেস মুক্ত রাখা ও চিন্তামুক্ত থাকা।মেডিটেশন জীবনকে স্ট্রেস মুক্ত রাখতে সাহায্য করে। এর পাশাপাশি জীবনে যেকোনো সমস্যা নিয়ে অতিরিক্ত চিন্তা না করে, তা যুক্তি ও বুদ্ধি দিয়ে বিবেচনা করে সমাধান করতে হবে।৬। খাবারে বাড়তি সতর্কতা মেনে চলুন, যেমনঃ* লো ফ্যাট ও লো স্যাচুরেটেড ফ্যাট জাতীয় খাবার খান* ড্রিপ ফ্রায়েড খাবার ও জাংক ফুড এড়িয়ে চলুন* কোলেস্টেরল সমৃদ্ধ খাবার যেমন এড়িয়ে চলুন* প্যাকেটেড ফুড যেমন রেডিমেড আচার, সস, স্যুপ, সল্টেড বাদাম, পপকর্ন, চিপস কম খান* সকালে ঘুম থেকে উঠে একটা পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে পান করুন* তেল, ঘি, মসলা এড়িয়ে চলুন* চা ও কফি যত পরিমাণ কম সম্ভব পান করুন* অ্যালকোহল ও ধূমপান পরিহার করুন*অতিরিক্ত চিনি খেলেও প্রেসার বাড়ে। ডায়বেটিস না থাকলেও চিনি কম খেতে চেষ্টা করবেন। আপনার আরও কোনো মেডিকাল, সোসাল, লিগাল প্রশ্ন থাকলে আমাদের জানাতে পারেন। আমরা তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষা করে উত্তর করে থাকি।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও