প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। এক্ষেত্রে আপনাকে হস্তমৈথুন যতটা সম্ভব পরিহার করতে হবে এবং একটি স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন করতে হবে। খাদ্য তালিকায় পর্যাপ্ত পরিমাণে পুষ্টিকর খাবার রাখুন বিশেষ করে ভিটামিন ই যুক্ত খাবার যেমন: সবুজ শাকসবজি, ফলমূল, অলিভ অয়েল,, বিভিন্ন ধরনের বাদাম। দৈনিক 30 থেকে 45 মিনিট শরীরচর্চা করুন। এতে অনেকটাই উপকার পাবেন। সাথে সাথে হস্তমৈথুন থেকে নিজেকে রক্ষা করার জন্য নিচের পদক্ষেপগুলো গ্রহণ করতে পারেন যেকোনো ধরনের নেশা বা আসক্তি থেকে বের হওয়ার জন্য নিজের ইচ্ছাশক্তিই যথেষ্ট। তাই ইচ্ছাশক্তিকে দৃঢ় করুন। - যেসব ব্যাপার আপনাকে হস্তমৈথুনের দিকে ধাবিত করে, সেগুলো ছুড়ে ফেলুন, সেগুলো থেকে দূরে থাকুন।- কোন কোন সময় হস্তমৈথুন বেশি করেন, সেই সময়গুলো চিহ্নিত করুন। টয়লেটে বা ঘুমাতে যাওয়ার আগে যদি উত্তেজিত থাকেন বা হঠাৎ করে যদি এমন ইচ্ছে হয়, তাহলে শারীরিক পরিশ্রমের কাজে লাগে যান। যেমন বুক ডাউন বা অন্য কোনো ব্যায়াম করতে পারেন। যতক্ষণ না শরীর ক্লান্ত হয়ে যায়, অর্থাৎ হস্তমৈথুন করার মতো আর শক্তি না থাকে, ততক্ষণ পর্যন্ত সেই কাজ বা ব্যায়াম করুন। গোসল করার সময় এমন ইচ্ছা জাগলে শুধু ঠান্ডা পানি ব্যবহার করুন ও দ্রুত গোসল সেরে টয়লেট থেকে বের হয়ে আসুন।- যেকোনো ধরনের পর্ন দেখা থেকে বিরত থাকুন।- যতটা সম্ভব নিজেকে কাজে ব্যস্ত রাখুন। -ধূমপান ও মদ্যপানের অভ্যাস থাকলে তা পরিত্যাগ করুন।ছোট ছোট টার্গেট সেট করুন। ধরুন প্রথম টার্গেট টানা দুই দিন হস্তমৈথুন করবেন না। দুই দিন না করে পারলে ধীরে ধীরে সময় বাড়াবেন। এভাবে আপনি আপনার লক্ষ্যে পৌঁছে যেতে পারবেন। পেয়ে যাবেন সেই কাঙ্খিত স্বাভাবিক শারীরিক অবস্থা। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও