প্রিয় গ্রাহক, প্রশ্ন করার জন্য ধন্যবাদ। আপনার বাচ্চা গর্ভে কত সপ্তাহ পূরন করার পর জন্ম হয়েছে? আপনি কি বাচ্চাকে বুকের দুধ খাওয়ান? আপনার শিশু প্রতিদিন কতবার প্রস্রাব, পায়খানা করে?    জন্মের পর হতে ১১/১২ সপ্তাহ বয়সী বাচ্চাদের ক্ষেত্রে এই সমস্যাটি দেখা যায়, যা স্বাভাবিক। এটিকে "কোলিকি বেবি সিন্ড্রম" বলে। এর লক্ষন গুলো হল-- দিনের একটা নির্দিষ্ট সময় উচ্চস্বরে কান্না, হাত পা মোচড়ানো, মুখমন্ডল লাল হয়ে যাওয়া, বমি করে দেয়া, পাতলা পায়খানা, শান্ত করতে না পারা, পেটের মাংসপেশি শক্ত করে ফেলা, কখনো কখনো কাঁদতে কাঁদতে ঘুম ভেঙে যাওয়া প্রভৃতি। জম্মের পর বাচ্চারা স্বভাবতই একটু সংবেদনশীল থাকে।তাছাড়া তাদের পরিপাকতন্ত্র পুরোপুরি ম্যাচিউর হয়না তাই খাদ্য থেকে গ্যাস হয়,যা পেটে ব্যথা সৃষ্টি করে। আবার অনেক সময় মায়ের কোন খাদ্য বুকের দুধের মাধ্যমে বাচ্চা গ্রহন করলে তা বাচ্চার পেটে গ্যাস তৈরি করে। এজন্য বাচ্চাকে খাওয়ানো মাত্র শোয়ানো যাবেনা। খাওয়ানোর পর বাচ্চাকে কাঁধে নিয়ে পিঠে হাল্কা করে হাত চাপড় দিবেন যাতে বাচ্চার পেট আপনার কাঁধের সংস্পর্শে থাকে। এভাবে কিছুখন করার পর বাচ্চাকে শুয়ে দিতে পারেন। যে রূমে ঘুম পাড়াবেন তা যেন অতিরিক্ত আলো এবং শব্দবিহীন হয়, এ ব্যাপারে খেয়াল রাখবেন। অতিরিক্ত লোকসমাগম হতে দূরে রাখুন, বাচ্চার জন্য একটি শান্ত পরিবেশ সৃষ্টি করুন। বাচ্চা কান্না করলে আপনি মাথা ঠান্ডা রেখে শান্ত করার চেষ্টা করুন। অস্থির হয়ে পড়লে চলবেনা।বাচ্চার বয়স ৩ মাস হয়ে গেলে এই সমস্যাটি অধিকাংশ সময় দূর হয়ে যায়।বাচ্চার মাকে অবশ্যই ডিম, দুধ, মাছ, মাংস ইত্যাদি সকল ধরনের পুষ্টিকর খাবার খেতে দিতে হবে। নাহলে বাচ্চার মা অপুষ্টিতে ভুগবে, পর্যাপ্ত বুকের দুধ তৈরি হবে না, ফলে আপনার শিশুও অপুষ্টিতে ভুগবে।        গ্রাহক,নবজাতকের নাভি শুকাতে ৭ থেকে ২১ দিন সময় লাগতে পারে। শুকিয়ে পড়ে যাবার পর কাপড়ে বা ডায়াপারে হাল্কা রক্তের দাগ দেখতে পারেন যা স্বাভাবিক। তবে শুকানোর আগ পর্যন্ত নিচের নিয়ম গুলো মেনে চলবেন- # নাভির জায়গাটি সবসময় পরিষ্কার ও শুকনা রাখা উচিত। # ডায়াপার বা কাপড়ে যেন ঘষা না লাগে সেটা লক্ষ্য রাখতে হবে। সেইসাথে জায়গাটিতে যেন  বাতাস চলাচল করতে পারে , তাহলে শুকাতে সময় লাগবে না। # শুকিয়ে পড়ে আগ পর্যন্ত গোসল না দিয়ে গা স্পঞ্জ করে দেয়া যেতে পারে। # নাভি মুছার জন্য ডাক্তার এর পরামর্শ ছাড়া কিছু ব্যবহার করা ঠিক না। # যদি নাভির কিছু অংশ ঝুলে থাকে তাহলে তা কখনই টান  দেয়া যাবে না। # নাভির জায়গাটি যদি ফুলে লাল হয়ে যায়, রক্ত বা পুঁজ বের হয়, তাহলে বুঝতে হবে যে ইনফেকশন হয়েছে । তখন দেরি না করে ডাক্তার এর কাছে যেতে হবে।  আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। মায়া

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও