প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আসলে আমাদের চলার পথে নেগেটিভ বিষয় গুলোর প্রভাব বেশি।এছাড়া ছোট বেলা থেকে আমরা নেগেটিভ শব্দ বেশি শুনে এসেছি। যার ফলে চিন্তায় তার একটা প্রভাব পড়তে পারে।নেগেটিভ চিন্তা থেকে বের হওয়ার কয়েকটি  উপায় আছে যা আমাদের আচরণ, আমাদের চিন্তা এবং অনুভূতি দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়।                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                   ১। খারাপ স্মৃতি রোমন্থন ত্যাগ করুনঃ অনেকে মনে করেন, বারবার একই বিষয় নিয়ে চিন্তা করে তারা সমস্যা সমাধানের পথে এগিয়ে যাচ্ছেন। আসলে তা নয়, এর মাধ্যমে তারা সমাধানের পথ নয় বরং সমস্যার মধ্যেই ডুবে থাকেন।চিন্তাধারাকে একটি সুনির্দিস্ট কাঠামোয় নিয়ে আসার জন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করতে পারেন।    ক। একটি কাগজ নিয়ে তাতে দুটি কলাম তৈরি করুন। প্রথমটির না‘ সময়’ এবং দ্বিতীয়টির নাম দিন  ‘ সমাধান’    খ।   যখনই নেতিবাচক ভাবনা আপনার মধ্যে ভর করবে তখনই সময় উল্লেখ করে তৎক্ষণাৎ মাথায় আসে এমন    কিছু সমাধান লিখে রাখুন। গ। একসপ্তাহ পর গুণে দেখুন কতবার আপনি বিষয় টি নিয়ে ভেবেছেন এবং তার অনুপাতে ফল্প্রসূ কোন সমাধান পেয়েছেন কিনা।                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                    ২।  প্রমাণ সনাক্ত করুনঃ আপনার ভাবনাগুলো যে যৌক্তিক তার পেছনে কি কোনো প্রমাণ আছে? নাকি শুধু অনুমানের ওপর নির্ভর করেই অযথা ভেবে সময় নস্ট করে যাচ্ছেন? নিজেকে এই প্রশ্নগুলো করে দেখুন আসলেই আপনার এতটা ভেবে কোন লাভ হচ্ছে কিনা।                                                                                                                                                                                                                                                                          ৩।মাইন্ডফুলনেস প্র্যাক্টিস করুনঃ বিজ্ঞানী ক্রিস্টফার বার্গ্ল্যান্ড মাইন্ডফুলনেসের ৩টি ধাপ উল্লেখ করেছেন। এগুলো হল Stop, breathe, think about your thinking. থামুন, শ্বাস নিন এবং আপনার চিন্তার কারণ সম্পর্কে ভাবুন। এই সাধারণ মাইন্ডফুলনেস টেকনিকগুলো খুব প্রশান্তিদায়ক এবং কাজে মনোযোগ বৃদ্ধিতে সহায়ক।                                                                                                                                                                                     ৪। নেতিবাচক চিন্তাগুলোর স্থায়িত্ব সম্পর্কে জানুনঃ নেগেটিভ চিন্তাগুলো আপনার মনে স্থায়ী জায়গা করে নিতে পারবে না, যদি না আপনি চান। যখনই এ ধরনের চিন্তা আপনার মধ্যে ভর করবে তখনই মনে মনে বলুন, “এই ভাবনার মধ্যে আমি নিজেকে জড়াব না। আমার ভাবনার নিয়ন্তা আমি নিজেই”। এভাবে আপনার চিন্তাগুলোকে আপনি নিজেই নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন।তবে নেতিবাচক চিন্তা থেকে পরিত্রানের সবচেয়ে কার্যকর উপায় হল নিজেকে ব্যস্ত রাখা যাতে এ ধরনের চিন্তা আপনার ওপর ভর করার সুযোগই না পায়।                                                                                                                                                                                                                                                 আশা করি কিছুটা সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে মায়া কে জানাবেন।       

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও