প্রিয় গ্রাহক,  আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আপনি কি কোন বিষয় নিয়ে ডিপ্রেশন এ আছেন? আমাদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। তাহলে কিছুটা হলেও আপনার ভাল লাগবে। ডিপ্রেশন হচ্ছে এমন একটা মানসিক অবস্থা যে অবস্থায় একজন মানুষের কোনো কিছুর প্রতি কোনো আগ্রহ থাকে না এবং নিজেকে অসহায় মনে হয়। বিষণ্নতাগ্রস্ত মানুষের কোনো কাজ করতে ভালো লাগে না। খেতে ভালো লাগে না। বেড়াতে ভালো লাগে না । এমনকি গল্প করতেও ভালো লাগে না। বস্তুত তাঁরা জীবনের কোনো অর্থই খুঁজে পায় না।আপনার কি এমন ই হচ্ছে?                                                                                                                                                                                                             কেন এ রোগ হয় নির্দিষ্ট করে কারো পক্ষেই তা বলা সম্ভব না। তবে অনেকের ক্ষেত্রেই কিছু কমন কারণ থাকে যার জন্য এ রোগের উৎপত্তি হতে পারে।১. অপমানবোধমানসিক বা শারীরিকভাবে অবমাননার স্বীকার হলে অনেকে ডিপ্রেশন বা বিষন্নতায় আক্রান্ত হয়।২. নিরাপত্তাহীনতা বা একাকীত্বসামাজিক ও পারিবারিক নিরাপত্তাহীনতার কারণে অনেকে বিষন্নতার স্বীকার হয়। তাছাড়া, বাবা-মা, বন্ধু-বান্ধব বা অন্যান্য কাছের মানুষদের সাথে সম্পর্কহীনতা বা মতবিরোধ থেকেও অনেকে বিষন্নতায় ভোগে থাকে।৩. মৃত্যুশোককাছের মানুষের মৃত্যু অনেকের ক্ষেত্রে বিষন্নতার ঝুঁকি বাড়ায়।৪. বংশগত প্রভাবপরিবারে কারো ডিপ্রেশন থাকলে তা অন্যদের উপর প্রভাব বিস্তার করতে পারে।৫. জীবন পদ্ধতিতে বড় ধরণের পরিবর্তনজীবনে বড় কোন পরিবর্তন ঘটলে তা থেকে অনেকে বিষন্নতায় ভুগে। চাকরি হারালে, অবসরে গেলে, আয় কমে গেলে, জায়গা পরিবর্তন করলে, বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটলে, এমনকি, নতুন বিয়ে করলেও অনেকে ডিপ্রেশনের শিকার হয়।৬. বড় কোন রোগের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াবড় ধরণের কোন রোগ থাকলে রোগী ডিপ্রেশনের শিকার হতে পারে।৭. ঔষধের প্রভাবনির্দিষ্ট কিছু ঔষধ সেবনের ফলেও কেউ কেউ বিষন্নতায় আক্রান্ত হয়। যেমন, ব্রণের চিকিৎসায় ব্যবহৃত আইসোট্রেটিনিয়ন বা অ্যান্টিভাইরাল ‘ইন্টারফেরন-আলফা’ জাতীয় ঔষধ সেবনেও অনেকে বিষন্নতায় আক্রান্ত হয়।এছাড়াও বিভিন্ন কারণে মানুষ বিষন্নতায় ভুগে থাকে। ব্যক্তিভেদে বিষন্নতার কারণে পার্থক্য দেখা যায়।ডিপ্রেশন থেকে বের হতে হলে প্রিয় মানুষের সাথে কথা বলা যেতে পারেন বা দূরে কোন মনোরোম পরিবেশ থেকে ঘুরে আসতে পারেন। নিজের ভাল লাগে এমন সৃজনশীল কাজে নিজেকে যুক্ত রাখতে পারেন। breathing exercise বা relaxation exercise করতে পারেন তাহলে মনে অনেক প্রশান্তি আসবে বলে আশা করছি।আর কোন প্রশ্ন থাকলে মায়াকে জানাবেন। আপনার প্রয়োজনে রয়েছে পাশে সব সময় মায়া।     

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও