দিন অনুযায়ী লক্ষ্মণসমূহ :প্রথম তিনদিন :- সাধারণ সর্দিকাশি, হাল্কা গলাব্যথা, তেমন কোনো জ্বর নেই।আপেক্ষিক ভাবে সুস্থ এবং খাওয়া দাওয়া করতে সমস্যা হবে না।চতুর্থদিন :- গলা ব্যথা প্রথম ৩ দিনের তুলনায় কিছুটা বে‌শি। মাথা ঘোরা ও কিছুটা ভারসাম্যহীন অনুভব করা।- কথা বলতে কষ্ট হওয়া, শরীরের তাপমাত্রা ৯৮.৪° এর আশপাশে।- খাওয়া দাওয়া করতে সমস্যা হওয়া।- হাল্কা মাথা ব্যথা, অনেক সময় ডায়রিয়ার মতো হওয়া।পঞ্চমদিন :গলা ব্যথা আ‌গের চেয়ে বেশি। কথা বললে গলায় বেশি ব্যথা করা। দেহের তাপমাত্রা ৯৮.১°- ৯৮.৪° এর কাছাকাছি। শারীরিক দূর্বলতা ও জয়েন্টে জয়েন্টে ব্যথা।ষষ্ঠ দিন :- জ্বরের তীব্রতা আস্তে আস্তে বেড়ে ৯৮° এর আশপাশে থাকা। শুকনা কাশি শুরু হওয়া। কথা বলার সময় বা ঢোক গিলতে গেলে ব্যথা করা।অস্বাভাবিক দূর্বলতা, বমি বমি ভাব,মাঝে মাঝে শ্বাসকষ্ট হওয়া। হাতের আঙুলগুলোতে ব্যথা শুরু হওয়া।- বমি, ডায়রিয়া।সপ্তমদিন :- উচ্চমাত্রায় জ্বর (৯৯.৩°- ১০০°)- কফসহ কাশি- মাথা ও শরীর ব্যথা, বমি ও ডায়রিয়া বৃদ্ধি পাওয়া।অষ্টমদিন :- জ্বরের মাত্রা বৃদ্ধি পেয়ে ১০০.৪°এর উপরে চলে যায়।- শ্বাসকষ্ট এবং প্রতিবার শ্বাসপ্রশ্বাস নেয়ার সময় বুক ভার ভার লাগে।- বিরতিহীন কাশি।- মাথা ব্যথা, জয়েন্ট ব্যথা এবং কোমরের মাংস ব্যথা।নবমদিন :আগের সকল সিম্পটম থাকবে, তবে সেগুলো মারাত্মক আকার ধারন করা। যেমন জ্বরের অবস্থা আরো অবনতি, শ্বাসপ্রশ্বাস বন্ধ হয়ে যাওয়ার অবস্থা।বিঃ দ্রঃএগুলোর যেকোনো একটা সাইন সিমটম্প দেখা দিলে, দ্রুত IEDCR-এর ফোন নাম্বারে যোগাযোগ করতে হবে।*** ডায়াবেটিস রোগীদের ইমইউন সাপ্রেজড থাকায়, তাদের ঝুঁকি বেশি।

পরিচয় গোপন রেখে ফ্রিতে শারীরিক, মানসিক এবং লাইফস্টাইল বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করতে পারেন Maya অ্যাপ থেকে। অ্যাপের ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://bit.ly/38Mq0qn


প্রশ্ন করুন আপনিও