নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বয়সঃ ২৪ আমার বয়ফ্রেন্ড জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্স করছে। ৪ বছরের সম্পর্ক আমাদের। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে অনেকবার শারীরিক সম্পর্ক হয়েছে। তার ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে অ্যাবোরশন করতে হয়েছে। আমার বাবা মারা যাওয়ার পরপরই সে আমার সাথে ব্রেকআপ করে। অনেক অনুরোধের পর ফিরে আসে। ফিরে আসার পর সবসময় মানসিক কষ্ট দেয়। ফেসবুকে মেয়েদের সাথে চ্যাটিং, ভিডিও কলে সেক্সুয়াল কথাবার্তা বলে। ক্যাম্পাসের জুনিয়র মেয়েদের সাথে অন্তরঙ্গতা বেশি। ওকে মেয়েদের সাথে মেলামেশায় সংযত হতে বললে উল্টা রেগে যায়। এমনকি দুইতিন হলো সম্পর্ক শেডস করেছে। সে এটাও বলেছে আমি যদি ভবিষ্যতে চাকরি করি তখন ফিরে আসতে পারে। কিন্তু আমি বুঝতে পারছি আমার সাথে প্রতারণা করছে। হতাশা, দুঃখে স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারছি না। তার জন্য আমি সামাজিকভাবে অনেক গঞ্জনা সহ্য করছি। সে বলেছে শুধুমাত্র স্যাক্রিফাইস আর ভালবাসলেই সম্পর্ক হয় না। আমি মনে থেকে ভালবাসি কিছুতেই স্বাভাবিক হতে পারছিনা। আমি বেরোতে চাচ্ছি পারছি না। প্লিজ আমাকে আপনাদের  মূল্যবান পরামর্শ দিয়ে সাহায্য করুন

প্রিয় গ্রাহক,আপনাকে ধন্যবাদ আপনার মনের কথা আমাকে বিশ্বাস করে শেয়ার করার জন্য। দীর্ঘ সময় একজনের সাথে সম্পর্কে আবদ্ধ থাকলে তাকে নিয়ে অনেক স্মৃতি তৈরি হয়ে যায় যা মনে করলে খুশি/কষ্ট অনুভব হয়। সম্পর্ক ছিন্ন করার অবস্থা হলে তখন স্মৃতি ভুলে থাকা কঠিন হয়ে যায় যদি না নিজের কাছে অনেক রিসোর্স থাকে সহযোগিতা পাওয়ার।আপনি যে অবস্থার মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন এখানে হতাশা,দুখবোধ করা স্বাভাবিক। আপনি কি শেয়ার করবেন,আপনি কি থেকে বের হতে চাচ্ছেন? কি রকম জীবনযাপন করলে বুঝেবেন আপনি স্বাভাবিক আছেন?এখনও আপনাদের যোগাযোগ হয় কিনা?  নিয়মিত যোগাযোগ থাকলে যেটা হয় তাকে নিয়ে অটোম্যাটিক চিন্তা/ অনুভূতি চলতে থাকে যা অন্যকিছুতে মনোযোগ দিতে বাঁধা দেয় এবং বারবার তাকেই মনে পড়ে। যদিও কোনকিছুই সম্পূর্ন ভুলে যাওয়া সম্ভব না তবে কাজে ব্যস্ত থাকলে/আপনজনের সাথে সময় কাটালে/ নিজের পছন্দের কাজ করলে/ বর্তমানে যা হচ্ছে সেটায় মনোযোগ দিলে সময়ের সাথে সাথে স্মৃতি হালকা হতে থাকে।এক সময় দেখা যায় আমি যেটা ভুলে থাকতে চাচ্ছি তা আর বারবার চিন্তায় আসে না।যেহেতু আপনি নিজের অনুভূতি এবং আচরণ নিয়ে সচেতন তাই নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন সে বিষয় স্পষ্ট করা বোঝা গিয়েছে আপনার লেখার প্রকাশ থেকে। ধন্যবাদ,আশা আপনাকে সহযোগিতা করতে পেরেছি।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও