প্রিয় গ্রাহক,মনের কথা গুলো শেয়ার করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।জীবনের কিছু ঘটনা আমাদের মনে কষ্ট দিতে পারে। আপনার কি নিয়ে মন খারাপ হয়েছে গ্রাহক? মন খারাপ কি প্রায়ই হয়? মন খারাপ কমাতে আপনার জীবনের ছোট খাটো ইতিবাচক অভিজ্ঞতাগুলো মাথায় রাখবেন। এই অভিজ্ঞতা গুলোর একটা ডাইরি বানাবেন। প্রতিদিন কি কি ইতিবাচক ঘটনা ঘটছে সেগুলো লিখে ফেলবেন। অপর দিকে মনের কষ্টের কথাগুলো আপনি ডাইরিতে লিখতে পারেন। তবে কষ্টের কথাগুলো লিখে ওই পাতাগুলো ছিড়ে ফেলবেন।  আপনার মনের কথাগুলো কোনো বিশ্বস্ত বন্ধুর সাথেও শেয়ার করতে পারবেন। এছাড়া আপনার পছন্দের জিনিসগুলো বেশি বেশি করার চেষ্টা করতে পারেন, যেমন- গান শুনা, বই পড়া, প্রিয় কোন জায়গায় বেঢ়াতে যাওয়া। পরিবার বন্ধুদের সাথে সময় কাটাতে পারেন ব্যক্তিগত, পারিবারিক ও সামাজিক চাপ ডিপ্রেশনের অন্যতম কারন। আপনি কি এমন কোন সমস্যা মধ্যে আছেন থাকলে তাকি আমার সাথে শেয়ার করা যায়? আর ডিপ্রেশন কাটিয়ে স্বাভাবিক জীবন জাপনের জন্য নিচের টিপস ব্যবহার করে দেখতে পারেন। ডিপ্রেশনের জন্য নিজের কষ্ট হলে কষ্টের জায়গাটি বিশ্বস্ত বন্ধুর সাথে শেয়ার করতে পারেন। অনেক সময় মনের চাপা কথা কউকে বলতে না পারার কারনে মন ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ে তখন কাজে মনোযোগ দেওয়া কঠিন হয়ে পড়ে। তাই মনের কথাগুল খুলে বললে মনটা হাল্কা হয়ে থাকে। পার্থনা, নিয়োমিত হাল্কা ব্যাম করা মানুষিক স্বাস্থ্যকে ভালো রাখতে সাহায্য করে থাকে ফলে মানুষিক অবস্থা ইতিবাচক থাকে। পরিবার, আত্নীয় বা বন্ধুদের সাথে কিছু সময় পছন্দসই কথাও ঘুরে আসতে পারেন  আমি অনুভব করতে পারছি বিভিন্ন চিন্তা আপনাকে মানসিকভাবে অনেক কষ্ট দিচ্ছে। আপনার চিন্তার ধরন কিরকম? আপনি সাধারণত কোন কোন ক্ষেত্রে চিন্তায় পরে যান এবং তখন আপনার মাঝে কি অনুভূতি কাজ করে? চিন্তা আশা টা ভাল। কোন বিষয় নিয়ে চিন্তা করলে আপনি সেই বিষয়টি সম্পর্কে আরও গভীর ভাবে জানতে পারবেন। কিন্তু অতিরিক্ত চিন্তার ফলে যদি আপনার দৈনন্দিন কাজে ব্যাঘাত ঘটে তবে তা আপনার জন্য ক্ষতিকর। সাধারণত মানুষ যখন কোন negative চিন্তা করে তখন সে চিন্তিত হয়ে পরে যার থেকে কোন উপকার পাওয়া যায় না। negative চিন্তার বদলে Positive চিন্তা করতে পারেন তাহলে মানসিক চাপ অনেকটা কমে যাবে এবং নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি পাবে। কোন বিষয় নিয়ে যদি অতিরিক্ত চিন্তা আসে তবে মনটাকে Divert করার জন্য আপনার অন্য কোন পছন্দের কাজ নিয়ে নিজেকে ব্যস্ত রাখতে পারেন। অতিরিক্ত চিন্তার সময় নিজেকে relax রাখার জন্য relaxation বা deep breathing করতে পারেন। মেডিটেশন বা Relaxation হল এমন একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে শরীরকে শিথিল করা যায়। মানসিক ভাবে প্রাশান্তি লাভ করা যায়। দুচিন্তা, আবেগ, হতাশা থেকে কিছুটা মুক্তি পাওয়া যায়। এর মাধ্যমে দীর্ঘ নিঃশ্বাস নেওয়ার ফলে মস্তিস্কে বিশুদ্ধ অক্সিজেন প্রবেশ করে মস্তিস্ককে অনেক শিথিল করে যার ফলে পরবর্তীতে আর ও ভাল ভাবে সমস্যা নিয়ে চিন্তা করা যায়। নিম্নের ভিডিও লিঙ্ক টি দেখলে আপনি মেডিটেশন বা relaxation সম্পর্কে আরও ভাল করে জানতে পারবেন। https://www.youtube.com/watch?v=Y_s_iwgvTpA আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়াকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও