প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। বয়স অনুসারে বিশেষ করে অনেক ক্ষেত্রেই কিশোর বয়সের শুরুর কিছু পর হতে ধাতুর সমস্যা অনেক ক্ষেত্রে হয়ে থাকে কোন কারণে শারীরিক ও মানসিক উত্তেজনা বিরাজ করলে , এটি স্বাভাবিক শারীরিক প্রক্রিয়া , এটি কোন রোগ নয় , তবে এর জন্য নিজেকে অন্য কাজে ব্যস্ত করে নিলে ধীরে ধীরে এটি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব । তবে এটি তখনি সমস্যা যদি অতিরিক্ত হয় এবং তা স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় কোন বিঘ্ন করে।  অনৈচ্ছিক বীর্যপাতের নামই হলো ধাতু দুর্বলতা । এ ধরনের সমস্যায় স্বপ্নদোষ বা কম উদ্দীপনা ছাড়াই বারবার বীর্যস্থলন হয়। সাধারণভাবে বলতে গেলে ইহা নিজে কোন রোগ নয় বরং অন্যান্য রোগের উপসর্গে আবার অনেক সময় সিফিলিস, গনোরিয়া, ধ্বজভঙ্গ রোগের লক্ষণ স্বরূপ এই সমস্যা দেখা দিতে পারে। গ্রাহক যদি আপনি  বা নিকটস্থ কেউ এই সমস্যায় ভুগেন সেক্ষেত্রে এর থেকে পরিত্রাণের জন্য lifestyle পরিবর্তন করে উপকৃত হতে পারেন এবং অস্বাভাবিক মনে হলে একজন urologist এর শরণাপন্ন হবেন ।lifestyle পরিবর্তনের মধ্যে রয়েছে - ১।পর্নগ্রাফি এড়িয়ে চলা ২।নিজেকে ব্যাস্ত রাখার জন্য কোন কাজে মনোযোগ দেয়া। ৩।ব্যায়াম করা। ৪।বন্ধুত্ত পুর্ন সুস্থ সম্পর্ক তৈরি করা। ৫।হস্তমৈথুন কমিয়ে ফেলা। ৫।ঘুমাতে যাবার আগে কুসুম গরম পানি দিয়ে গোসল করা। ৬।ঢিলেঢালা পোশাক পড়বেন। ৭।রাতে ঘুমাতে যাবার আগে পর্নগ্রাফি দেখবেন না। ৮।দুশ্চিন্তা কমাবেন এবং নিয়মিত মেডিটেট করবেন। ৯।পুস্টিকর খাবার খাবেন। ১০।ধুমপান এর অভ্যস ত্যাগ করতে হবে। ১১।রিলাক্সেশন টেকনিক চেস্টা করতে পারেন।  আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

পরিচয় গোপন রেখে ফ্রিতে শারীরিক, মানসিক এবং লাইফস্টাইল বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করতে পারেন Maya অ্যাপ থেকে। অ্যাপের ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://bit.ly/38Mq0qn


প্রশ্ন করুন আপনিও