প্রিয় গ্রাহক, আপনার ব্যক্তিগত বিষয়টি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ। আপনি  বলেছেন যে, আপনি অনার্স ৪র্থ বর্ষে পড়ছেন। সামনে আপনার পরীক্ষা, কিন্তু কেন জানি আপনি গুরুত্ব দিয়ে পড়াশোনা শুরু করতে পারছেন না, তাই কি? আপনি বুঝতে পারছেন যে, আপনার ক্ষতি হচ্ছে কিন্তু তাও পড়তে বসতে পারেন না। আপনার মনে হচ্ছে যে, নে হচ্ছে পড়াশোনা টা আমার প্রধান কাজ না। কি করলে এ ধরণের অনুভুতি থেকে বের হতে পারবেন সে সম্পর্কে আপনি জানতে চেয়েছেন।গ্রাহক, আপনার বিষয়টি বোঝার চেষ্টা করছি। বুঝতে পারছি যে আপনি নিজেকে ও পড়াশোনা নিয়ে বেশ সচেতন। এটি বেশ চমৎকার একটি ব্যাপার।অতীত কিংবা ভবিষ্যত নিয়ে চিন্তা না করে বর্তমানের উপর ফোকাস রেখে আপনি ধীরে ধীরে ধীরে আগাতে পারেন। জোর করে কোন কিছু না করলে সেটিকে অভ্যাসে পরিণত করলে সেই কাজটিকে নিয়মিত করতে সুবিধা হয়, তাই না? প্রতিদিন অল্প অল্প করে পড়তে বসে আপনি একটি অভ্যাস তৈরি করতে পারেন। পধরুন, প্রথম সপ্তাহ একটানা আধা ঘন্টা করে নিয়মিত পড়তে বসার চেষ্টা করতে পারেন। দশ মিনিট ব্রেক দিয়ে আবার আধা ঘন্টা। এই পুরোটা সময় মোবাইল বা  পড়াশোনায় বিঘ্ন ঘটায় এমন জিনিসগুলোকে দূরে রাখুন।এভানে এক সপ্তাহ করার পর আধা ঘন্টা থেকে ধীরে পড়ার সময় বাড়াতে পারেন।পড়াশোনার জন্য আপনি প্রথমে যেটি করতে পারেন তা হল , একটা রুটিন তৈরি করতে পারেন। পরীক্ষার আর যে কয়দিন আছে তা হিসেব করে একটি রুটিন তৈরি করতে পারেন। এই link টি আপনাকে রুটিনের ব্যাপারে সহায়তা করবে বলে মনে করছিhttps://www.youtube.com/watch?v=Djfu7MAVorU&feature=youtu.be&fbclid=IwAR3lxFlqDbbBwxFmjQ09EMmsGLeHUlo1OHm7wNAgZGp-5sTPfpzCk2FsKSMসাধারণত আমরা বিশ মিনিটের বেশি কোন বিষয় নিয়ে একটানা মনোযোগ ধরে রাখতে পারি না তাই, যেগুলো পড়তে কঠিন এবং বিরক্ত লাগতে বিশ মিনিট করে সেগুলো পড়ে পাঁচ মিনিটের ব্রেক নিতে পারেন তবে ঐ বিশ মিনিট অন্যকিছু না করে পুরোটা ফোকাস পড়ার প্রতি দিলে খুব ভালো। এভাবে পুরো পড়াটাকে সময় এবং সিলেবাস অনুযায়ী ছোট ছোট ভাগে ভাগ করে পড়লে ফোকাস ধরে রাখতে সুবিধা হবে। কঠিন বিষয়গুলো সকালের দিকে বা প্রথম দিকে পড়তে পারেন এবং পড়ার পর যা বুঝলেন তা না দেখে নিজের মত লিখে ফেলুন অথবা আয়নার সামনে গিয়ে কাউকে বোঝাচ্ছেন এরকম রিহার্সেল করে দেখতে পারেন তাতে সহজেই নিজের গ্যাপগুলি ধরতে পারবেন। সফল হলে নিজেকে পুরস্কার দিন। মুখস্ত করার আগে পুরো ব্যাপারটি বোঝার চেষ্টা করে দেখতে পারেন। তাহলে মুখস্ত না করলেও চলবে বা মুখস্ত করতেও সহজ লাগবে। ছোট ছোট গোল ঠিক করে পড়ুন। যেমন, হতে পারে আপনি ঠিক করলেন দুপুরে খাওয়ার আগে অন্তত তিনটা চ্যাপ্টার শেষ করবেন কিংবা পছন্দের দলের খেলা আছে নিজের কাছে কমিটমেন্ট করুন ঠিক মত দুটি চাপ্টারের পড়া শেষ করতে পারলেই আমি এগুলো করতে পারব , এরকম। আর যেগুলো সহজ লাগে এবং পছন্দের বিষয় সেগুলো পরের দিকে পড়ুন। এভাবে পড়াটাকে উপভোগ করার চেষ্টা করুন। আপনি যদি কোন ব্যাপারে বা বিষয় নিয়ে আগ্রহী থাকেন তাহলে সে বিষয়টির প্রতি আপনার ফোকাস বা মনোযোগ এমনিতেই বেশি থাকবে তাই প্রথমে আপনার অমনোযোগের কারণ গুলি খুঁজে বের করুন। কোন সময়টাতে পড়তে বসলে আপনার মনোযোগ কম থাকে এখন কখন বেশি থাকে তা একটু ভেবে বের করুনl মনোযোগের জন্যে আপনার পড়তে বসার ভঙ্গিও গুরুত্বপূর্ণ। সোজা হয়ে আরামে বসুন। পড়ার টেবিলে অপ্রয়োজনীয় এবং মনোযোগে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে এমন জিনিস সরিয়ে রাখুন। এমনভাবে পড়তে বসুন যাতে আশেপাশের কোন মানুষ বা জিনিস যাতে আপনার মনোযোগ সহজেই নষ্ট করতে না পারে। পড়ার সময় মোবাইল চোখের আড়ালে এবং দূরে রাখতে পারলে ভালো। পড়ার রুমের পরিবেশও গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। এছাড়া কোন কিছু মনে রাখাকে সহজ এবং অভ্যাসের মধ্যে নিয়ে আসতে আপনি mindfulness practice করতে পারেন। mindfulness হচ্ছে কোন কাজ করার সময় পূর্ণ মনোযোগ সেই কাজের প্রতি ধরে রাখার technique. এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে  এই link টি দেখতে পারেনhttps://theconversation.com/mindfulness-meditation-ten-minutes-a-day-improves-cognitive-function-103386 এর সাথে এই linkটি আপনাকে বিশেষভাবে সহযোগীতা করবে বলে মনে করছি  https://www.youtube.com/watch?v=mBe46FY7eBUerআশা করি  কিছুটা হলেও আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আপনার আরও কোন প্রশ্ন থাকলে সেটিও আমাদের কাছে করতে পারেন। মায়া আপনার পাশে আছে সব সময়। 

পরিচয় গোপন রেখে ফ্রিতে শারীরিক, মানসিক এবং লাইফস্টাইল বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করতে পারেন Maya অ্যাপ থেকে। অ্যাপের ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://bit.ly/38Mq0qn


প্রশ্ন করুন আপনিও