প্রশ্ন সমূহ
আর্টিকেল
মায়া শপ

মায়া প্রশ্নের বিস্তারিত


প্রিয় গ্রাহক আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আত্মবিশ্বাস পাচ্ছেন না পরীক্ষার পড়া মনে থাকছে না পড়ায় মন বসাতে পারছেন না। আত্মবিশ্বাস দিন দিন কমে যাচ্ছে। বুঝতে পারছি বিষয়টা নিয়ে আপনি খুবই চিন্তিত।গ্রাহক আপনার প্রশ্ন পড়ে অনুভব করতে পারছি যে আপনি নিজের ব্যাপারে বেশ সচেতন যা আপনার একটি ইতিবাচক দিক।গ্রাহক আপনি কি কারনে আত্মবিশ্বাস হারাচ্ছেন বলে মনে হচ্ছে?কবে থেকে এরকম হচ্ছে?আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর জন্য নিজের ভেতরের ইতিবাচক দিকগুলো বের করা জরুরি। আপনার ভেতরের পটেনশিয়ালিটি গুলো ভেবে দেখতে পারেন।সাধারণত আমরা যখন আমাদের নেতিবাচক দিকগুলো নিয়ে অনেক ভাবি,বা সবকিছুতে নেতিবাচক চিন্তা করি তখন আমাদের আত্মবিশ্বাস কমে যেতে থাকে।তাই নিজের ইতিবাচক দিকগুলো নিয়ে ভাবতে পারেন।আপনি যা পারেন তাতে আরো দক্ষতা অর্জনের পাশাপাশি নিজের গন্ডি থেকে বের হয়ে এসে নতুন নতুন জিনিস শেখার চেষ্টা করতে পারেন।কোনো কিছুতে নিখুত হয়ে ওঠা থেকে আত্মবিশ্বাস আসে না বরং চেষ্টা এবং তার ফলাফল যাই হোক না কেন তা মেনে নেওয়ার মানসিকতা থেকেই আসে।তাই ব্যর্থতা আসতেই পারে এই সত্যটা মেনে নেয়ার চেষ্টা করতে পারেন।ব্যর্থতা খারাপ নয়।এটা আপনার জন্য নতুন একটি বার্তা যে আপনি চেষ্টা করছেন।নিজের দেহভঙ্গিতেও আত্মবিশ্বাস ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করতে পারেন।নিজের অর্জনগুলোকে উদযাপন করতে পারেন তা যত ছোটই হোক না কেন।নিজের উপর বিশ্বাস রাখার চেষ্টা করুন যে আপনি পারবেন।অন্যদের সাথে তুলনা না করার চেষ্টা করতে পারেন।কারণ তুলনা আমাদের আত্মবিশ্বাস কমিয়ে দেয়।তাই অন্যের সাথে তুলনা না করে নিজের ব্যক্তিগত উন্নয়নের জন্য কাজ করে যেতে পারেন। পড়াশোনায় মনোযোগ দিতে আপনি কিছু বিষয় মেন্টেন করার চেষ্টা করতে পারেন।আপনি পড়া শুরু করার আগে একটি রুটিন করে নিতে পারেন,সহজ টপিক আগে ও কঠিন টপিক পরে পড়তে পারেন,সহজগুলো আগে পড়া শেষ হয়ে গেলে তা আপনার আত্মবিশ্বাস বাড়াবে যা কঠিন বিষয়গুলোও সহজ করে দিবে।একটানা না পড়ে অল্প অল্প বিরতি দিয়ে পড়তে পারেন।মুখস্ত করার চেষ্টা না করে বুঝে পড়ার চেষ্টা করলে পড়া বেশি মনে থাকে।কঠিন বিষয়গুলো লিখে লিখেও পড়তে পারেন।পড়ার আগে পড়ার মনোযোগ নষ্ট করে এরকম কিছু থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করতে পারেন।পড়ার পরিবেশটা আপনার অনুকূলে রাখার চেষ্টা করুন।যেমন-পর্যাপ্ত আলো থাকা,শব্দ না থাকা,অগোছালো না থাকা এরকম।সেই সাথে শারীরিক সুস্থতা ও পর্যাপ্ত ঘুমও প্রয়োজন।আপনি কোনো মানসিক দুশ্চিন্তায় থাকলে সেটি সমাধান করার চেষ্টা করুন।কোন কিছু মনে রাখার জন্য তার সাথে কোন কিছুকে মিলিয়ে অথবা কোন ছবি কল্পনা করে মনে রাখার চেষ্টা করতে পারেন।গুরুত্বপূর্ণ জিনিসগুলো লিখে চোখের সামনে রাখতে পারেন যেন ভুলে না যান। মনযোগ ধরে রাখার জন্য মাইন্ডফুলনেস টেকনিকও অনেক হেল্পফুল। মাইনফুলনেস টেকনিক কিভাবে প্রেকটিস করবেন তা নিচের এই ভিডিওতে বলা আছেঃ https://youtu.be/n0ylBFc3tMc আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। ধন্যবাদ। মায়া।

পরিচয় গোপন রেখে ফ্রিতে শারীরিক, মানসিক এবং লাইফস্টাইল বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করতে পারেন Maya অ্যাপ থেকে। অ্যাপের ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://bit.ly/38Mq0qn


প্রশ্ন করুন আপনিও