আমার বয়স ২৩। ২০১৬ সাল থেকে দু-আড়াই বছর বেশ ডিপ্রেশনে ছিলাম। যার জন্য কোনো কাজে মন দিতে পারতাম না। কোনো কিছু খেয়াল করতাম না। শুনতাম না, কাজ করতাম না। পড়াশুনা করতাম না। সারাদিন নেটে পড়ে থাকতাম।কোনো কাজে মন আসত না। ঘরেই থাকতাম, মুভি দেখতাম, গান শুনতাম। প্রচির পর্ন দেখতাম। মাস্টারবেশন করতাম। দিনে কয়েকবার না হলেও প্রায় প্রতিদিন হত। টোটালি ঘর বন্দী। এখন বলা যায় ডিপ্রেশন থেকে মুক্ত। এখন চাচ্ছি আমি নতুন করে শুরু করতে। অনলাইন থেকে সরতে পারছি না। স্মৃতি শক্তি কমে গেছে। কারো ফেস মনে করতে পারি না। চেনা মানুষ অথচ নাম ধাম মনে নাই। বললে চিনি। এমন এক অবস্থা। ডাক্তার এর কাছে নয় নিজে নিজে বের হইছি। পড়া শুনায় মনোযোগ দিব। যেহেতু অনার্স করছি সামনে অনেক পড়া। অথচ কিছুই পড়তে পারি না। মনেও থাকে না। টোটালি টাইম লস। আর পর্ণ গ্রাফি থেকে না বের হতে পারলেও অনেক কমায় দিছি। মাস্টারবেশনও কমে গেছে। এখন চাচ্ছি যেসব শারিরিক ও মানসিক ক্ষতি করেছি সেগুলো পূরণ করতে। কিভাবে কি করব? দয়া করে একটু কষ্ট হলেও বিস্তারিত আমাকে সল্যুশন দিবেন।

প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। এটি জেনে খুব ভালো লাগছে আপনি ডিপ্রেশন থেকে বের হয়ে নিজের জন্য ভালো কিছু করতে চাচ্ছেন এবং সামনে এগিয়ে যেতে চাচ্ছেন। যখন আপনার পর্ন দেখতে ইচ্ছে করবে তখন নিজেকে অন্য কোনো কাজে বা কোথায় ব্যাস্ত করে ফেলবেন। রুমে এক বসে থাকলেও আপনি অন্য একজনকে ফোন দিবে, এমন কোনো ভিডিও দেখবেন যেটা দেখলে আপনার পর্ন দেখার ওই অনুভূতিটি আর থাকবেনা। অনলাইন থাকা থেকে বিরত থাকতে নিজের জন্য একটি রুটিন তৈরী করতে পারেন যার ভেতর শুধু কিছু সময় অনলাইন থাকার জন্য থাকবে। প্রথমে বেশি সময় তারপর আস্তে আস্তে কমিয়ে ফেলবেন। অনলাইন থাকতে বেশি ইচ্ছা করলে অন্য কিছু করার চেষ্টা করবেন যেমন বাইরে যাওয়া অথবা ফোন দিয়ে কারো সাথে কথা বলা। কিছু hobby চেষ্টা করতে পারেন যেমন ছবি আঁকা, বই পড়া অথবা কোনো সংস্থার সাথে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করা। ড়ালেখায় মনোযোগ বাড়ানোর জন্য কিছু কৌশল আমি নিচে উল্লেখ করছি:১. পড়তে বসার এক ঘন্টা পর পর ১০ মিনিটের একটি break নিতে পারেন যেখানে একটু হাঁটাচলা, কারো সাহে অল্প কিছু কথা বলবেন অথবা যেটি আপনার করতে ভালো লাগে। ২. যেই প্রতি আপনার বেশি ভালো লাগে সেটি আগে করতে পারেন যেন পড়ার ভেতর ইন্টারেস্ট বেশি আসে। ৩. হাইলাইটের অথবা রঙিন কলম দিয়ে পড়া দাগিয়ে নিলে এটি পড়ার উপর ইন্টারেস্ট বেশি আসে। ৪. পড়ার জন্য একটি সঠিক সময় নির্বাচন করে নিবেন যখন মনে হয় আপনি সবচে বেশি মনোযোগ দিতে পারবেন। এই সময় যে কোনো distraction এড়িয়ে চলার চেষ্টা করবেন। ৫. পড়ার সময় ফোন বন্ধ করে রাখবেন অথবা কাউকে দিয়ে দিবেন এবং বলবেন পড়া না শেষ হওয়া পর্যন্ত আপনাকে না দিতে। ৬. একজন বন্ধুর সাথে পড়া ডিসকাস করতে পারেন এবং দুজন দুজনকে প্রশ্ন করতে পারেন। ৭. নিজে যেটি জানেন সেটি অন্য কাউকে শিখতে পারেন অথবা কাওকে পড়াটি নিয়ে সাহায্য করতে পারেন। ৮. নিজের জন্য একটি টার্গেট সেট করবেন যেমন, "আমি আজকে এই চ্যাপ্টার শেষ করবো এবং এতটুক প্রাকটিস করবো". টার্গেট achieve করতে পারলে নিজেকে একটি পুরস্কার দিবেন।৯. পড়ার পাশাপাশি লিখেও প্রাকটিস করতে পারেন, এটিতে পড়া বেশি মনে থাকে। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি।ধন্যবাদ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও