আমি সারাক্ষন শুয়ে বোসে খাই। অলস জিবন জাপন করি আমি কোনো কাজ বাজ করি না অনেক বছর ধরে সারাদিন এভাবে থাকি। এই ভাবে দীর্ঘোদিন যাবত শুয়ে বোসে খেতে খেতে আমার আলসেমিতে ধোরেছে। এখন আমার কোনো কিছু কোরতে মনে চায় না। কোন কাজ কোরতে তো পারিই না। আর কোরতে গেলে অনেক কস্ট হয়। অলপোতেই হাপিয়ে যাই। আর এই ভাবে আমার শুয়ে বোসে থাকতে মনে চায় না। আমি কি কোরে আলসেমি থেকে মুক্তি পেতে পারি? আর আমার প্রতিদিনের কাজের প্রতি কোনো মনোযোক থাকে না। যেটুকু নিজের কাজ তাও কোরতে মনে চায় না। সারাক্ষন শুধু ঘুমাতে মনে চায়। আর একবার ঘুমিয়ে পোরলে আর ঘুম থেকে উঠতে পারি না। আমার আরো অনেক সমস্যা আছে এক কথায়  আমি এখন একটা অশান্তির জিবন নিয়ে বসবাস করছি। সারাক্ষন অসস্তি লাগে এই সমস্যার সমাধান দেন প্লিজ  মায়া আপা

প্রিয় গ্রাহক,মনের কথা গুলো শেয়ার করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।গ্রাহক আপনার কথা থেকে বুঝতে পারছি আপনি আলসেমি অনুভব করেন কাজের প্রতি আগ্রহ মনোযোগ পাচ্ছেন না, এটা খুব ভালো বিষয় যে আপনি নিজের অনুভূতির প্রতি সচেতনআপনি কি আমাকে বলবেন জীবনে গুরুত্ব পূর্ণ কোন ঘটনা ঘটেছে কি যার পর থেকে এমন টা হচ্ছে?আপনার নিশ্চয়ই অনেক সখের আগ্রহের বিষয় আছে সেগুলো কি জানতে পারি?কোন বিষয়ে দুশ্চিন্তা , হতাশ বিসন্ন অনুভব করেন কি?শরীর ও মন একে অন্যের সাথে জড়িত একটি ভালো না থাকলে অন্যটিও ভালো থাকে না,মানসিক শক্তি না থাকলে বা কমে গেলে অনেক সময় কিছুই ভালো লাগে না যে কাজ গুলো আপনার করতে ভালো লাগে, মন ভালো থাকে, মনের সুস্থতার জন্য আপনি হাসিখুশি থাকার চেষ্টা করতে পারেন, দিনের কিছুটা সময় নিজের জন্য রেখে নিজের জন্য কিছু করতে পারেন, সখের আগ্রহের কাজগুলো করতে পারেন এতে আপনি মানসিক ভাবে সুস্থ থাকবেন, মানসিক চাপ থাকলে যোগব্যায়াম, মেডিটেশন করতে পারেন, এতে মানসিক চাপ কমবে।শারীরিক ব্যায়াম, খেলাধুলা ইত্যাদির মাধ্যমেও একটিভ থাকা যায়সারদিনের একটা রুটিন তৈরি করতে পারেন , প্রতিদিনের কাজের কিছু লক্ষ্য সেট করে সে অনুযায়ী কাজ গুলো সম্পন্ন করতে পারেন নিজেকে ভালবাসার চেষ্টা করতে পারেন, নিজের মতামত কে গুরুত্ত দেয়ার চেষ্টা করতে পারেন, নিজের ভাললাগা খারাপ লাগার জায়গা গুলো নিয়ে ভেবে দেখতে পারেন, নিজের অনুভূতি চিন্তা চেতনার জায়গা গুলো নিয়েও চিন্তা করতে পারেন। পরিবার বন্ধুদের সাথে কোয়ালিটিপূর্ণ সময় কাটাতে পারেন। মনের জমানো কথাগুলো বিশ্বস্ত একজন মানুষের সাথে শেয়ার করতে পারেন।আশা করি আপনাকে কিছুটা হলেও সাহায্য করতে পেরেছিআর কিছু জানার থাকলে মায়া আপাকে বলবেন,আপনার পাশে রয়েছে,মায়া আপা।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও