প্রশ্ন সমূহ
আর্টিকেল
মায়া শপ

মায়া প্রশ্নের বিস্তারিত


সাধারণত এই সমস্যাটি খুব বড় কোনো সমস্যা নয় কিন্তু এর থেকে চোখে ব্যথা হওয়া বা পুঁজ পড়ার যন্ত্রণাও ভোগ করতে হতে পারে। এই সমস্যাটি আপনাআপনি সেরে যেতে প্রায় ২ থেকে ৮ সপ্তাহ লাগে। কিন্তু আপনি চাইলে ঘরোয়া কিছু উপায়ে এই সমস্যা থেকে দ্রুত মুক্তি পেতে পারেন। চলুন জেনে নেয়া যাক এই যন্ত্রণাদায়ক অঞ্জলি থেকে দ্রুত মুক্তি পাওয়ার ঘরোয়া সহজ কিছু উপায়।
১) চোখে গরম ভাপ নিন
চোখে গরম ভাপ নিয়মিত নিলে এই যন্ত্রণা থেকে দ্রুত মুক্তি পেতে পারেন। গরম ভাপ নেয়া রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে এবং বন্ধ হয়ে যাওয়া গ্ল্যান্ড খুলতে সহায়তা করে। এটি ব্যথা ও প্রদাহ দূর করতেও সহায়তা করে। গরম পানিতে বরিক পাউডার দিয়ে মিশ্রিত পানিক সেঁক ব্যবহার করবেন ।
যেভাবে করবেনঃ
- একটি নরম সাদা ধরণের পরিষ্কার কাপড় গরম পানিতে ভিজিয়ে ভালো করে চিপে নিন।
- এই গরম ভেজা কাপড়টি আক্রান্ত চোখের উপরে আলতো চেপে ধরে রাখুন ৫-১০ মিনিট করে।
- প্রতিদিন ৩-৪ বার করুন ঠিক হওয়া পর্যন্ত।
২) পেয়ারা পাতার ব্যবহার
পেয়ারার পাতায় রয়েছে অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি উপাদান যা ব্যথা ও ফুলে যাওয়া দূর করতে সহায়তা করবে এবং এর প্রাকৃতিক ঔষধি ক্ষমতা দ্রুত সমস্যা সমাধানে কাজ করে।
যেভাবে করবেনঃ
- ৫-৬ টি পেয়ারা পাতা ভালো করে ধুয়ে নিন।
- মাইক্রোওয়েভ ওভেনে বা একটি গরম পানির পাত্রের উপরে বাটি রেখে তাতে পাতা রেখে গরম করে নিন পেয়ারা পাতা গুলো।
- এরপর গরম পেয়ারা পাতাগুলো একটি পরিষ্কার নরম কাপড়ে রেখে মুড়ে নিন।
- পাতা সহ এই কাপড় আক্রান্ত স্থানে আলতো চেপে ধরে রাখুন। ঠাণ্ডা হলে আবার পাতা গরম করে নিন।
- এভাবে দিনে ২ বার করুন ঠিক হওয়া পর্যন্ত। দ্রুত সেরে যাবে।
৩) ক্যাস্টর অয়েল
ক্যাস্টর অয়েলে রয়েছে উচ্চমাত্রার অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি উপাদান যা ব্যাথা ও প্রদাহ দূর করে এবং এটি দ্রুত অঞ্জলির আকার কমিয়ে আনতেও সক্ষম।
যেভাবে করবেনঃ
- প্রথমে যেভাবে গরম ভাপ নিয়েছিলেন সেভাবে আক্রান্ত চোখে গরম ভাপ নিন ৫ মিনিট। এরপর একটি তুলোর বলে ক্যাস্টর অয়েল লাগিয়ে নিয়ে চোখে লাগান। এভাবে প্রতিদিন ২ বার করুন সেরে যাওয়া পর্যন্ত।
- অথবা, হলুদ বেটে নিন, আধা চা চামচ হলুদে আধা চা চামচ ক্যাস্টর অয়েল মিশিয়ে পেস্টের মতো তৈরি করুন। চোখ কুসুম গরম পানিতে ধুয়ে এই পেস্টটি অঞ্জলির উপর লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট। এরপর কুসুম গরম পানিতে চোখ ধুয়ে নিন। দিনে ৩ বার এটি ব্যবহার করুন। তবে সতর্ক থাকবেন পেস্টটি যেনো চোখের ভেতরে চলে না যায়।




প্রশ্ন করুন আপনিও