প্রিয় গ্রাহক,আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। ইমপ্লান্ট পদ্ধতিতে জন্মনিয়ন্ত্রন পিলের মতোই কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া রয়েছে। যেমন মাসিকের রাস্তায় অনিয়মিত রক্তপাত, মাসিক অনিয়মিত হওয়া, প্রথম দিকের তলপেট ব্যথা ,মাথা ঝিমঝিম করা ইত্যাদি।এগুলো সাধারণত কিছুদিনের মধ্যে স্যারের সাথে মানিয়ে যায়। তবে আপনি যে সমস্যা টিতে  পড়েছেন সেটিও এক ধরনের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া। কারণ ইমপ্ল্যান্ট এর মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে বা খুলে ফেললে ডিম্বাশয়ের স্বাভাবিক ডিম্বাণু তৈরি প্রক্রিয়ায় আসতে 3 থেকে 6 মাস সময় লাগতে পারে। তাই এক্ষেত্রে দেখা যায় অনেকেই চেষ্টা করলেও গর্ভধারণ করতে পারেন না। কিছুটা সময় লেগে যায়।আবার কারো ক্ষেত্রে ইম্প্লান্টস ছেড়ে দিলে মাসিক অনিয়মিত হতে পারে, মাসিকের রাস্তা অনিয়মিত রক্তপাত হতে পারে। তবে আপনার যে সমস্যাটি হচ্ছে সেটি নিয়ে দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হবেন না। মানসিক ভাবে সব সময় প্রফুল্ল থাকুন। চেষ্টা চালিয়ে যান। বিশেষ করে ঋতুচক্রের10 থেকে 20 তম দিনে বেশি চেষ্টা করুন। প্রয়োজনে এক্ষেত্রে আপনার স্বামী এবং আপনার গর্ভ পূর্ববর্তী কালীন চেকআপে একজন গাইনোকলজিস্টের কাছে যাওয়া অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এই চেকআপে প্রয়োজনীয় শারীরিক পরীক্ষা এবং কিছু টেস্ট করা করে নিশ্চিত হওয়া যায় কোন অসুবিধা আছে কিনা এবং সে অনুযায়ী চিকিৎসা দেয়া হয়। এর সাথে প্রয়োজনীয় কিছু ভিটামিন দেওয়া হয়। যা বাচ্চার ব্রেন অনেক সুন্দর তো কোন ভূমিকা পালন করে এবং গর্ভকালীন সময়ের অনেক অনাকাঙ্খিত ঝুঁকি থেকে মুক্ত থাকা যায়আশা করি কিছুটা হলেও আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি।আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়াকে জানাবেন,রয়েছে পাশে সবসময়। ধন্যবাদ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও