প্রিয় গ্রাহক, আপনার সমস্যা সংক্রান্ত প্রশ্নটি করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। বুঝতে পারছি আপনার ঘুমের সমস্যার কারণে আপনার উপর কি ধরনের প্রভাব ফেলছে। গ্রাহক, প্রাপ্তবয়স্ক একজন মানুষের ৬-৮ ঘন্টা ঘুমের প্রয়োজন। আপনার বর্তমান ঘুমের শিডিউল এই সময়টা সঠিক ভাবে পূরণ করছে কি? প্রয়োজনীয় ঘুমের জন্য আপনি প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট সময়ে ঘুমানো এবং ঘুম থেকে ওঠার চেষ্টা করতে পারেন। এছাড়া রাতে ঘুমাতে যাওয়ার অন্তত ২-৩ ঘণ্টা আগে থেকে চা/কফি খাওয়া বন্ধ করুন, খুব ভারি খাবার খেতে হলে সেটাও ঘুমানোর অন্তত ২-৩ ঘণ্টা আগেই সেরে ফেলুন। ক্ষুধা পেটে নিয়েও আবার ঘুমাতে যাবেন না, হালকা কিছু খেয়ে নিতে পারেন। ঘুমাতে যাওয়ার অন্তত ৩-৪ ঘণ্টা আগে থেকে ফোন, ল্যাপটপ এসবের স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকা বন্ধ করুন। নিয়মিত ব্যায়াম করুন। আপনার বিছানা শুধু আপনার ঘুমানোর কাজেই ব্যাবহার করুন। পড়াশুনা বা অন্য কোন কাজে বিছানা ব্যাবহার করা থেকে বিরত থাকুন। ঘুমানোর বেশ কিছুক্ষণ আগে থেকে নিজের কাজের গতি, ঘরের লাইট কমিয়ে দিন। সাউন্ডের কারণে আপনার সমস্যা হচ্ছে বলে আপনি জানিয়েছেন। আপনি যেখানে ঘুমান সেই পরিবেশকে কি সাউন্ড মুক্ত করা সম্ভব? যদি সম্ভব না হয় সেক্ষেত্রে থাকার স্থান পরিবর্তন করা সম্ভব কি না ভেবে দেখতে পারেন। সাউন্ডে অনেকেরই ঘুমের সমস্যা হয়। অন্যদের সমস্যা না হলেও আপনার কেন হচ্ছে সেটা চিন্তা করার কোন অবকাশ নেই কারণ এক একজন ব্যাক্তির এক এক বিষয়ে স্পর্শকাতরতা থাকতে পারে। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি আর কোন প্রশ্ন থাকলে মায়া কে জানাবেন। মায়া আপনার পাশে সবসময় আছে।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও