প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। । নিয়মমতো খাওয়াদাওয়া এবং কিছু ব্যায়াম করলে ওজন কমানো যায়। তবে ওজন কমানোর এই প্রক্রিয়া দীর্ঘমেয়াদি হওয়াই উচিত। * প্রতি তিন ঘণ্টা পরপর তরল বা নরম খাবার খেতে হবে। * রাতে প্রতিদিন ছয় ঘণ্টা ঘুমাতে হবে এবং খুব সকালে উঠেই সকালের খাবার সেরে ফেলতে হবে। * প্রতি বেলায় যে খাবারটি খাওয়া হবে, অবশ্যই তা ২০০ গ্রামের মধ্যে হতে হবে এবং খাবার অবশ্যই উচ্চ প্রোটিনযুক্ত অ্যান্টি-অক্সিডেনটসমৃদ্ধ হতে হবে। এ ছাড়া দিনের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে পানি খেতে হবে, তবে অবশ্যই সেটা ঠান্ডা পানি হওয়া যাবে না। * প্রোটিনের ক্ষেত্রে ডিমের সাদা অংশ, সেদ্ধ মুরগি অথবা রান্না সু৵প খেতে হবে। সামান্য তেল দিয়ে রান্না করতে হবে। শর্করার ক্ষেত্রে গম, আটার খাবার, সেদ্ধ নুডলস এবং লাউ-পেঁপে ইত্যাদি সেদ্ধ অথবা সু৵প করে খেতে হবে। সঙ্গে সালাদ খেতে ভুলবেন না। * ডুবো তেলে ভাজা, অতিরিক্ত ফ্যাটসমৃদ্ধ এবং মিষ্টিজাতীয় খাবার, কোমল পানীয় অবশ্যই বাদ দিতে হবে। দুধের পরিবর্তে টকদই অথবা দুধের সর বাদে তৈরি খাবার খেতে হবে। খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে নিয়মিত ব্যায়ামও করতে হবে। ওজন অনুযায়ী ব্যায়াম করতে হবে। প্রতিদিন এক ঘণ্টা খুব দ্রুত হাঁটতে হবে। কারও যদি শরীরের কোনো নির্দিষ্ট জায়গার ফ্যাট বেশি থাকে, তাহলে সে জায়গাগুলোর ব্যায়াম করতে হবে। কোনো ব্যক্তি কতটুকু খাবার খাবেন, তা তাঁর উচ্চতা, বয়স, ওজন ও পরিশ্রমের ওপর নির্ভর করবে। বিশেষজ্ঞরা এ বিষয়ে পরামর্শ দিতে পারবেন।চর্বি কমানোর জন্য জিম এ গিয়ে বিভিন্ন ধরনের ব্যায়াম করে থাকি। কিন্তু এতে পেটের গঠন টা সুন্দর হয় কিন্তু চর্বি খুব একটা কমে না। আবার অনেকে দেখা যায় সকালে উঠে ৩০-৬০ মিনিট জগিং করে থাকে । এই দীর্ঘ সময় জগিং করার ফলে আপনার হাত , পা ও শরীর ব্যাথা হয়ে যায় । এইজন্য পরদিন আর জগিং এ যাওয়া হয় না অলসতা কাজ করে। সে জন্য প্রতিদিন ১০-১৫ মিনিট হাটাহাটি করা বা জগিং করা উচিত। এতে আস্তে আস্তে আপনার পেটের চর্বি কমতে থাকবে। তাছাড়া চর্বি ও তৈলাক্ত খাবার,অতিরিক্ত কোল্ড ড্রিঙ্কস বর্জন করতে হবে । বেশি করে পানি আর সবজি খেতে হবে। আমরা অনেকেই রাতে খাবারের পর সঙ্গে সঙ্গে শুয়ে পরি। এটা আবার কারো কারো অভ্যাসে পরিনতি হয়ে যায় । কিন্তু এটা ঠিক না। এতে করে পেটের চর্বি আরো বাড়ে, খাওয়ার পরে অবশ্যই ৫-১০ মিনিট হাটার পর বেডে যান । এতে করে আপনার পেটের চর্বি কন্ট্রোলে থাকবে। আমরা একটু নিয়মের মধ্যে দিয়ে চলা-চল করলেই পেটের অতিরিক্ত চর্বি কন্ট্রোলে রাখতে পারি আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও