কৈশোর স্বাস্থ্য

ঘুমানোর উৎকৃষ্ট নিয়মাবলী

কেন ঘুম জরুরি ?

স্মৃতি এবং কর্মদক্ষতার জন্য যে ঘুম উপকারী তা প্রমাণিত। স্কুলের দিনগুলোতে অন্তত ৮ থেকে ৯ ঘণ্টা তো ঘুমাতেই হবে। মনে রাখতে হবে যে কৈশোর বয়সে শেখা অভ্যাস কখনো কখনো সারাজীবনের অভ্যাস হয়ে যায়। সুতরাং, ভালো ঘুমের জন্য ভালো অভ্যাস তৈরির এখনই সময়।

কিশোর-কিশোরীদের জন্য

  • কোনোকিছুর জন্য যদি প্রচণ্ড মানসিক চাপে থাকো, সেটা কমাতে চেষ্টা করো। প্রয়োজনে বাবা-মা কিংবা কোনো বন্ধুকে জানাও কি নিয়ে তুমি চাপ অনুভব করছো। যদি তাতে তোমার সমস্যার সমাধান নাও হয়, অন্তত তোমার মনের ভার তো একটু কমবে।
  • প্রতিদিন অন্তত ৬০ মিনিট ব্যায়াম করার চেষ্টা করো। ঘুমের জন্য ব্যায়াম সহায়ক এবং এটা মানসিক চাপ কমায় যা তোমার বিকাশ এবং পেশীর গঠনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। ব্যায়ামের মধ্যে যেন বিভিন্ন ধরনের শারীরিক ক্রিয়া থাকে যাতে তুমি আনন্দ পাও। তুমি বন্ধুদের সাথে সাঁতার কাটতে পারো, দৌড়াতে পারো, নতুন কোনো খেলা খেলতে পারো কিংবা যেটা তুমি পছন্দ করো সেটাই করো। তবে, যাই করো, নিয়মিতই যেন করা হয়। আর, রাতে ঘুমানোর আগে অবশ্যই কোন ধরনের ব্যায়াম করবে না।
  • কার্বোনেটেড পানীয়, যেমন কোক, স্প্রাইট ইত্যাদি, কফি এবং চা বিকাল পাঁচটার পর না খাওয়াই ভালো। এগুলোতে ক্যাফেইন থাকে, যার কারণেও অনেক সময় ঘুমের সমস্যা হতে পারে।
  • শুতে যাবার আগে খুব বেশি বা খুব কম খাওয়া যাবে না। দুটোই ঘুমের ক্ষতি করে। খালি পেটে ঘুমাতে গেলে হয়তো ক্ষুধাভাবের কারণে রাতে ঘুমাতে পারবে না। আর অতিরিক্ত খাওয়ার ফলে যে হাঁসফাঁস ভাব আর ভারী বোধ হয়, তার জন্যও ঘুমের ব্যাঘাত ঘটে।
  • প্রতিদিন ঘুমাতে যাবার আগে অনুসরণ করবে এমন একটা রুটিন করে নাও। একইরকম কাজ যদি প্রতিদিন বিছানায় যাবার আগে করা হয়, তাহলে ঘুমও তাড়াতাড়ি আসে।

অভিভাবকদের জন্য

  • ঘুমের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে বাচ্চার সাথে কথা বলুন।
  • আপনার বাচ্চার যদি কোনোকিছু নিয়ে সমস্যা হয়ে থাকে, তাহলে তার সাথে খোলাখুলি কথা বলুন এবং সমাধান খুঁজতে তাকে সাহায্য করুন। তাদেরকে দেখান কিভাবে একটা সমস্যাকে বিভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি থেকে দেখা যায়।
  • তার ঘুমের জন্য একটা আরামদায়ক পরিবেশ নিশ্চিত করুন। বিশেষ করে ঘরটি যেন অন্ধকার, শীতল, নিঃশব্দ, নিরাপদ আর সর্বোপরি আরামদায়ক হয়।
  • বাচ্চার ঘরে যেন টিভি না থাকে। তবে মিউজিক সিস্টেম থাকতেই পারে। আর কম্পিউটার কিংবা টিভি স্ক্রিনের আলোতেই বেশিরভাগ সময় ঘুমের সমস্যা হয়।
  • ঘুমানোর জন্য বিছানা বা ম্যাট্রেসটি যেন আরামদায়ক হয়। যদি নতুন কিনতে হয়, তাহলে বাচ্চাকেই বেছে নেয়ার সুযোগ দিন।

About the author

Maya Expert Team