টিকা বাল্যরোগ চিকিৎসা শিশুর যত্ন

হেপাটাইটিস বি এর প্রতিরোধঃ

হেপাটাইটিস বি হওয়ার উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে এমন যেকারোরই টীকা নেয়া উচিত।

এছাড়াও আপনার টীকা নেয়া উচিত যদি আপনি হেপাটাইটিসের প্রকোপ অত্যন্ত বেশী এমন কোন জায়গায় বেড়াতে যাবার প্ল্যান করে থাকেন যেমনঃ দক্ষিণপূর্ব এশিয়া, সাব-সাহারান আফ্রিকা, প্রশান্ত মহাসাগরীয় বিভিন্ন দ্বীপ যেমনঃ হাওয়াই দ্বীপ, সলোমন দ্বীপ, ফিজি ইত্যাদি।

টীকাদানঃ

হেপাটাইটিস বি এর টীকাদান সম্পর্কে জানতে স্বাস্থ্যকর্মী বা যৌন স্বাস্থ্য সেবা প্রদানকারী ক্লিনিকগুলোতে যোগাযোগ করুন।

সম্পূর্ণ সুরক্ষার জন্যে ৪ থেকে ৬ মাসের মধ্যে হেপাটাইটিস বি এর ৩টি ইঞ্জেকশান আপনাকে গ্রহন করতে হবে। ৩য় ডোজটি দেয়ার ১ মাস পর আপনার একটি রক্ত পরীক্ষা করে দেখা হবে যে টীকাটি আদৌ আপনার শরীরে কাজ করেছে কি না।

এরপর সাধারণত, পরবর্তী ৫ বছরের জন্যে আপনার সুরক্ষিত থাকা উচিত। প্রথম ইঞ্জেকশানটি দেয়ার ৫ বছর পর সাধারনত বুস্টার ডোজটি দেয়া হয়।

ইমিউনোগ্লোবিউলিনঃ

কেউ যদি হেপাটাইটিস বি ভাইরাস দ্বারা সংক্রমিত হয়েই পড়ে তবে তাকে হেপাটাইটিস বি এর টীকা দেয়ার পাশাপাশি তৎক্ষণাৎ একটি অ্যান্টিবডি ইঞ্জেকশান দেয়া হয় যা ইমিউনোগ্লোবিউলিন নামে পরিচিত। এটি এজন্যেই দেয়া হয় যে, এ সময় টীকা শরীরে কাজ করা অব্দি অপেক্ষা করার মত পর্যাপ্ত সময় হাতে থাকে না।

এটি আক্রান্ত হবার পর প্রথম ৪৮ ঘন্টার মধ্যে দেয়াটাই সর্বোত্তম তবে, এক সপ্তাহের মধ্যেও দেয়া যেতে পারে।

About the author

Maya Expert Team