প্রোডাক্ট রিভিউ মনোসামাজিক সৌন্দর্য চর্চা

মেরিল বেবি লোশন

মেরিল বেবি লোশন
আমাদের অনেকেই আগে শিশুপণ্য ব্যবহার করেছি এবং অধিকাংশ ক্ষেত্রে সংবেদনশীল ত্বকের জন্য শিশুপণ্যগুলো ব্যবহার নিরাপদ হয়। বিশ্ববিখ্যাত জনসন অ্যান্ড জনসন এর বেবি লোশন ছাড়া আপনার কি শিশুর এবং নিজের জন্য কখনো মেরিল বেবি লোশন ব্যবহার করেছেন? স্কয়ার গ্রুপ দ্বারা প্রস্তুতকৃত এটি একটি স্বদেশি পণ্য এবং আমাদের বিশেষজ্ঞরা এখানে পণ্যটির পর্যালোচনা করেছেন।

মূল্য ও পরিমাণঃ ১০০ মিলিলিটার বোতলের মূল্য ১০০টাকা।

পণ্যটির কার্যকারিতা সম্পর্কে যা বলা হয়েছেঃ
শিশুর যত্নে মেরিল বেবি লোশনের মিষ্টি সুগন্ধ ও কোমলতা শিশু ও অভিভাবক উভয়কেই এক অন্য মাত্রার আনন্দদায়ক অনুভুতি এনে দিবে। শিশুর যত্নে নিয়োজিত অন্যান্য পণ্যের পাশাপাশি এ বেবি লোশন বাংলাদেশের শিশুদের প্রয়োজনীয়তা মেটানোর জন্য বিশেষভাবে প্রস্তুত করা হয়েছে এবং এদেশের পরিবেশ ও জলবায়ুর প্রতি খেয়াল রাখা হয়েছে। মেরিল বেবি লোশনের ভালোবাসা শিশুর ত্বক সবসময় গ্রহণ করে নেয়।

ব্যবহার পদ্ধতিঃ গোসলের পর শিশুর শরীরে লোশন ম্যাসাজ করে দিন।

উপাদানসমূহঃ হালকা লিকুইড প্যারাফিন, ডাইমেথিকন, সূর্যমুখী তেল, জিএমএস, পলিশরবেট, গ্লিসারিন, হাইড্রোজাইথিসেলুলোজ, মিথাইল প্যারাবেন, ডিএমডিএমএইচ(DMDMH), সুগন্ধি, পানি (এ্যাকুয়া)।

তবে গবেষণায় এর মধ্যে ২টি উপাদান অ্যালার্জি সৃষ্টিকারী ও কারসিনোজিক হওয়ার প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে।

ডিএমডিএমএইচ (DMDMH) – এ উপাদানটি বিপুল ভাবে ব্যবহৃত হয় কিন্তু এর কিছু স্বাস্থ্য সমস্যা সৃষ্টির প্রমাণ রয়েছে।   এবং  অনুসারে, এই উপাদানটি দেহের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থায় বিষক্রিয়া বা ত্বক অথবা জ্ঞানেন্দ্রিয় গুলোতে বিষক্রিয়ার সৃষ্টি করে। এ উপাদানটি জাপানে নিষিদ্ধ হলেও যুক্তরাষ্ট্র এর ইউরোপে নিষিদ্ধ নয়।

প্যারাবেন – প্যারাবেন হচ্ছে সংরক্ষক (প্রিজারভেটিভ) এবং শিশুপণ্যে বহুল ব্যবহৃত এ উপাদানটি ইউরোপে নিষিদ্ধ কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র নিষিদ্ধ নয়। এটি একটি বিতর্কিত উপাদান। এ উপাদানটি জনসন এন্ড জনসন দ্বারা ব্যবহৃত হয়।

প্যাকেজ ও গঠনঃ লোশনটি সুন্দর ফিরোজা রঙের বোতলে পাওয়া যায় এবং লোশনের গঠন হচ্ছে কোমল ও ঘন।

আমাদের বিশেষজ্ঞদের ভাষ্যঃ
জনসন এন্ড জনসন বেবি লোশনের তুলনায় রাসায়নিক পদার্থ কম উপস্থিত থাকে, এই কারণে  জনসন এন্ড জনসন বেবি লোশনের থেকে অধিক পছন্দনীয়।

বাংলাদেশে এটি প্রস্তুত হয়ে থাকে এবং স্থানীয় দোকানগুলোতে নকল পণ্য পাওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে।

মা ও শিশু উভয়ের ত্বকের যত্ন নেয়। কোমল ও মসৃণ ত্বক পেতে, গোসলের পর শরীরে লোশনটি ম্যাসাজ করুন।

সব ধরণের ত্বকের সাথে মানায়। তবে, গ্রীষ্মকালে তৈলাক্ত ত্বকের জন্য এবং শীতকালে শুষ্ক ত্বকের জন্য উপযোগী নয়। বিশেষ ক্ষেত্রে সংবেদনশীল ত্বকের জন্য পণ্যটি উপযুক্ত।

প্রতিদিনের ময়েশ্চারাইজার, পরিষ্কারক অথবা মেকআপের ভিত্তি হিসাবে ব্যবহার করা যায়।

ভালো দিক

  • সস্তা ও সহজপ্রাপ্য
  • খুবই হালকা সুগন্ধযুক্ত
  • ত্বককে খুব ভালোভাবে আর্দ্র রাখে
  • ত্বকে সহজে শোষিত হয়
  • বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করা যায়

খারাপ দিক
উপাদান তালিকায় বিতর্কিত দুইটি উপাদানের উপস্থিতি

মূল্যায়নঃ ৪/৫

বিশেষজ্ঞদের পরামর্শঃ নিরাপদ ও আসল পণ্য ব্যবহার করতে চাইলে, আমাদের দেশে প্রস্তুত ও তৈরিকৃত পণ্য ব্যবহার করা উচিত। এসব পণ্য কেনার চেষ্টা করুন এবং এগুলো আপনাকে নিরাশ করবে না।

About the author

Maya Expert Team