প্লেয়িং ফর ডেভলোপমেনট মনোসামাজিক সন্তান প্রতিপালনসংক্রান্ত সকল জিজ্ঞাসা সন্তান লালনপালন

খেলনা

খেলনা বিষয়ক সতর্কতা

একটি খেলনা কতটা নিরাপদ তা বুঝানোর জন্য কিছু স্ট্যান্ডার্ড ঠিক করা থাকে (যুক্তরাজ্যে প্রচলিত স্ট্যান্ডার্ড গুলো হলো কাইটমার্ক, লায়ন মার্ক কিংবা সিই মার্ক)। খেলনা কেনার সময় স্ট্যান্ডার্ড দেখে নিন, যাতে করে বুঝে নিতে পারেন খেলনাটা কতটা নিরাপদ। সেকন্ডহ্যান্ড খেলনা কিনতে গেলে, কিংবা সাধারন দোকান থেকে খেলনা কেনার সময় আরও সর্তকতা জরুরি কারণ এসব খেলনায় নিরাপত্তা সংক্রান্ত কোনো নির্দেশনা থাকে না, যার কারনে এটি ঝুকিপূর্ণ হতে পারে।

সব ধরনের খেলনায় সাধারণত বয়স সংক্রান্ত সতর্কতামুলক নির্দেশনা দেয়া থাকে। যদি কোনো খেলনায় লেখা থাকে ‘ ৩৬ মাসের নিচের শিশুদের জন্য নিরাপদ নয়’ , তাহলে আপনার বাচ্চার তিন বছর হবার আগে সেই খেলনা তাকে দেবেন না। খেলনা কেনার সময় ধারালো কোণা আছে কি না, কিংবা এমন কোনো অংশ আছে কি না, যা আপনার বাচ্চা গিলে ফেলতে পারে, সেগুলো সতর্কতার সাথে দেখে নিন।

বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুদের জন্য খেলনা

যেসব শিশু বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন তাদের জন্য খেলনা বাছাইয়ের ক্ষেত্রে তাদের বিকাশের বয়স এবং দক্ষতার দিকে খেয়াল রাখতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে, খেলনাগুলো যেন উজ্জ্বল রঙের হয়, অনেক শব্দ করে এবং এর বিভিন্ন অংশ যেন নাড়ানো যায়।

যদি আপনার বাচ্চা বয়সের তুলনায় ছোটোদের খেলনা দিয়ে খেলে, খেয়াল রাখবেন সেটা যেন মজবুত হয় এবং সহজে ভেঙ্গে যাবার ঝুঁকি না থাকে।

যেসব শিশুর দৃষ্টিশক্তি সংক্রান্ত সমস্যা আছে, তাদের খেলনাগুলো যেন অমসৃণ বা টেক্সচারড হয়, যাতে করে তারা হাত ও মুখের মাধ্যমে খেলনাগুলোর আকার-আকৃতি বুঝতে পারে।

শ্রবণজনিত সমস্যা থাকলে সেসব বাচ্চাকে এমন খেলনা দিতে হবে যা তার ভাষার বিকাশে সহায়ক হবে। যেমন, কোনো ধাঁধা মেলানোর খেলনা যেটা দিয়ে সে শব্দ বানাতে পারে বা আঙ্গুল ব্যবহার করে ছবির সাথে সাথে শব্দ মেলাতে পারে।

About the author

Maya Expert Team