অন্তরঙ্গ সম্পর্কে সহিংসতা আইনি নারীর প্রতি সহিংসতা

আপনার সাথী কি আপনার সাথে সঠিক ব্যবহার করছে?

একটি সম্পর্কে কি ‘স্বাভাবিক’ এবং কি না, তা বুঝা কঠিন। একে অপরকে বুঝা এবং কি উভয় পক্ষের জন্যই ঠিক , তা জানতে সময় লাগে। যা হোক না কেন, অবমাননাকর বা হিংসাত্মক আচরণ গ্রহনযোগ্য নয় এবং আপনার সাথে যদি এইসব হয়ে থাকে তাহলে কোথাও সাহায্য কিংবা পরামর্শ নেওয়া ভুল কিছু নয়।

এব্যুস, অথবা অপব্যবহারের শিকার যে কোন কেউ হতে পারেন, এটি বয়স, শ্রেণী বা ধর্মের উপর নির্ভর করে না। এটি ছেলে বা মেয়ে, যেকোন কারোর সাথে হতে পারে তবে মেয়েদের সাথেই বেশি হয়ে থাকে।

নির্যাতন মেনে নেওয়া ঠিক নয়। আপনার সাথে যদি এটা ঘটে থাকে, তাহলে আপনার কোন এক বিশ্বস্ত ব্যাক্তির সাথে কথা বলা উচিত। সে হতে পারেন আপনার পিতা-মাতা, বন্ধু অথবা আপনার শিক্ষক। নিজের ভিতরে কথা না রেখে কাউকে বলুন।

অপব্যবহার কি?

যে কোন ধরনের শারীরিক নির্যাতন হচ্ছে অপব্যবহার, তা হতে পারে মারধর করা, ধাক্কা দেওয়া, লাথি মারা, এমনকি মতের বিরুদ্ধে যৌনকাজ করা। কিছু অন্যধরনের অপব্যবহারও আছে। মানসিক এবং মৌখিকভাবে এব্যুস করতে পারে আপনার প্রেমিকঃ

  • আপনাকে খাটো করে কথা বলা অথবা নিয়মিতভাবে অন্যের সামনে অপমান করা,
  • আপনাকে এমন কোন কাজ করতে বাধ্য করা যা আপনি করতে চান না, এমনকি আপনার মতের বিরুদ্ধে গিয়ে যৌনকাজ করা,
  • সবসময় আপনার ওপর খবরদারি করা বা অনুসরণ করা, কার সাথে আছেন কোথায় গেছেন
  • আপনাকে বা আপনার নিকট কাউকে আঘাত করার হুমকি দেওয়া।
  • মানসিক এবং মৌখিকভাবে এব্যুস শুধু এক সাথে থাকলে নয়, ফোন বা ইন্টারনেটের মধ্যমেও হতে পারে।

এই ধরনের ব্যবহার ভালবাসা নয়ঃ

এখানে আরেকজন বলছেন আপনার কিভাবে চলাফেরা করা উচিত। যারা তাদের সাথীকে মানসিক এবং মৌখিকভাবে এব্যুস করে থাকেন তারা পরবর্তী সময় গিয়ে শারীরিক নির্যাতনের হুমকি হয়ে দাঁড়ায়। এই ধরনের আচরণ একটি সতর্কতার সংকেত।

অনেকেই আপনাকে বলবে যে এমনই হয়, কিন্তু এই ধরনের আচরণ স্বাভাবিক নয়। যে কোন সম্পর্কে সহিংসতা ঠিক নয়, এটি লীলাখেলা নয়। এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা।

মানসিক বা শারীরিক আঘাত আপনার আত্মসম্মানকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে এবং আপনি চিন্তিত ও অসুস্থ হয়ে পড়তে পারেন। দেখা গেছে, যে সব মেয়েরা এব্যুসের শিকার হোন, তারা eating disorder-এ ভুগেন , মদ্যপান করেন এবং মাদক নেন। তারা যৌন অপব্যবহার থেকে যৌনরোগে ভোগেন এবং গর্ভধারণের ঝুঁকিতে থাকেন।

সাহায্যের জন্য কি করবেন?

আপনি যদি কোন নির্যাতনমূলক সম্পর্কে আছেন এবং আপনি বের হয়ে আসতে চান, তাহলে এটা সম্পর্কে কারোর সাথে কথা বলতে ভয় পাবেন না। যে যাই বলুক না কেন, মনে রাখবেন যে এটা আপনার দোষ নয় এবং এই ব্যাপারে কারোর সাথে কথা বলা খারাপ কিছু নয়। এব্যুসের শিকার হবার সাথে আপনি কি কাপড় পড়লেন বা মদ্যপান করেছেন কি না, তার সাথে কোন সম্পর্ক নেই।

একজনের কাছ থেকে প্রথম সাহায্য চেতে কষ্ট হতে পারে। কাউকে জিজ্ঞেস করে দেখেন আপনি কি কিছু নিয়ে তাদের সাথে কথা বলতে পারবেন কি না? তাকে বলুন যে আপনি সাহায্য চান একটি জিনিস নিয়ে, বা আপনার সাথে এমন কিছু হচ্ছে যা নিয়ে তার সাহায্য প্রয়োজন।

আপনি কথা বলে দেখতে পারেন আপনারঃ

  • আপনার শিক্ষক
  • আপনার মা, বাবা বা একটি বিশ্বস্ত ব্যক্তি, হয়তো আপনার মায়ের বান্ধবি
  • একজন নার্স, বা
  • একজন বন্ধু

আপনি যদি কোন সাহায্য না পান, তবে আবার চেষ্টা করুন। যদি অনেক বিপদে থাকেন তাহলে আপনি অন্য কোন মাধ্যমের কাছে যেতে পারেন বা-এ লিখতে পারেন।

আপনি যদি আপনার কোন বান্ধবিকে নিয়ে চিন্তিত হন

আপনি যদি মনে করেন আপনার কোন বান্ধবি নির্যাতনমূলক সম্পর্কে আছেন, তাবে তার সাথে কথা বলে দেখুন। Judgemental এবং condemning না হয়ে শান্ত থেকে কথা বলুন। আপনার বান্ধবির সামনে বিষয়টি তুলতে প্রথমে ঠিক নাও লাগতে পারে। তবে আপনি যদি সাহায্য করতে চান, ভেবেন না যে আপনি ভুল বুঝছেন, ভাবেন আপনি ঠিকও হতে পারেন।

আপনার বান্ধবিকে বলেন যে আপনি তার সাথে কিছু কথা বলতে চান। বলেন যে আপনি তাকে নিয়ে চিন্তিত, সব ঠিক আছে কি না? তার কথা শুনুন এবং তাকে বুঝান যে কেউ এব্যুসের শিকার হলে তা ঠিক নয়। তিনি যদি শারীরিক আঘাত পেয়ে থাকেন, তাহলে তাকে কোন ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান। আপনার বান্ধবি আপনার সাথে রাগ হতে পারেন, কিন্তু তাকে বলুন যে আপনি তাকে সাহায্য করতে পারবেন।

আপনি যদি নির্যাতক হয়ে থাকেন?

আপনি যদি আপনার সাথীকে নির্যাতন করে থাকেন তাহলে আপনি এটা নিয়ে-এ লিখতে পারেন। বেনামী হয়ে আপনার অনুভূতি প্রকাশ করা আপনার রাগ কমাতে পারে।

আপনি একজন নির্যাতক, এটা বুঝতে পারাই হচ্ছে এই ব্যবহার বন্ধ করার প্রথম ধাপ। কিন্তু আপনি পুরাপুরি থামতে চাইলে আপানার সাহায্য লাগতে পারে। কখনো কখনো আমাদের এই দুর্ব্যবহারের কারণ হতে পারে পূর্বে ঘটা কোন ঘটনা, এবং এটি অনেক ক্ষতি করতে পারে। “আমরা সব সময় আমাদের নিজে থেকে সব বন্ধ করতে পারি না, আমাদের সাহায্য লাগতেই পারে এবং তার জন্য কাউকে বলতে পারেন।” আপনি এটা নিয়ে-এ লিখতে পারেন অথবা আমাদের বিশেষজ্ঞ বাদের পরামর্শ নিতে পারেন।

About the author

Maya Apa Expert Team