জন্মসংক্রান্ত পরিকল্পনা নারী স্বাস্থ্য- গর্ভাবস্থা

জন্ম পরিকল্পনা সম্পর্কে যে সব সিদ্ধান্ত নিতে হবে

গর্ভাবস্থায় আপনাকে নানা বিষয় নিয়ে ভাবতে হবে এবং অনেকগুলো সিদ্ধান্ত নিতে হবে। যারা প্রসূতি সেবা দেবেন তাঁরা আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে অনেক ভাবে সহায়তা করবেন, কিন্তু আপনার ও আপনার শিশুর জন্য কোনটি সবচেয়ে ভাল, তা আপনার চাইতে ভালো কেউ জানে না। নিচের লিংকগুলোতে আপনি যে তথ্য পাবেন তা আপনাকে সুখী, সুস্থ্ গর্ভাবস্থার পরিকল্পনায় সহায়তা করবে।

কী ধরনের প্রসব-পূর্ব সেবা চান?

কোন কোন ধরনের সেবা আপনি পেতে পারেন এবং তার কোনটি আপনার জন্য সবচেয়ে ভাল হবে জেনে নিন।

এখান থেকে প্রসব-পূর্ব সেবা সম্পর্কে জানুন।

প্রসবের বেলায় কোন বিষয়টি আপনার কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ?

কীভাবে বাচ্চার জন্ম হবে সে বিষয়ে আগাম পরিকল্পনা করতে গেলে কোন বিষয়টি আপনার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ তা বুঝতে পারবেন।

এই বিষয়ক পরিকল্পনা কীভাবে করবেন সে সম্পর্কে এখান থেকে আরো বিশদ জানুন।

আপনি কোথায় বাচ্চা জন্ম দিতে চান?

আপনি আপনার বাড়িতে অথবা হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগে বাচ্চা

জন্ম দিতে পারেন।

বাচ্চা জন্মের স্থান বিষয়ে আরও তথ্য এখানে পাবেন।

প্রসবের সময় আপনি কোন ধরনের বেদনানাশক চান?

বেশিরভাগ মহিলাই বাচ্চা প্রসবের সময় ব্যাথা কমানোর জন্য কোন না কোন ব্যাবস্থা গ্রহন করেন। ব্যাথা কমানোর বিভিন্ন ব্যবস্থা কিভাবে কাজ করে তা জানুন এবং কোনটি আপনার জন্য সবচেয়ে ভাল হবে তা ঠিক করুন। ব্যাথা কমানো সম্পর্কে আরও তথ্য এখানে পাবেন।

শিশুকে কী খাওয়াবেন?

শিশুকে বুকের দুধ খাওয়াতে চান না ফিডার খাওয়াতে চান তা একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত।

বাচ্চাকে খাওয়ানো সম্পর্কে আরও তথ্য এখানে।

শিশুর জন্ম পরিকল্পনা

জন্ম পরিকল্পনা কী জানেন না?

বাচ্চা জন্ম দেয়ার জন্য আগাম পরিকল্পনা করা কেন জরুরি জানতে আরো পড়ুন।

জন্ম পরিকল্পনা তৈরি করার আগে, যেসব বিষয় (যেমন: ব্যাথা কমানোর উপায় এবং প্রসবের স্থান) বিবেচনা করতে হবে সেগুলো সম্পর্কে জেনে নিন। আরও জানতে নিচের লিঙ্কগুলোতে ক্লিক করুন:

কোন কোন স্থানে প্রসব হতে পারে

প্রসবের সময় কি ঘটে?

ফোরসেপ ও ভ্যাকুয়ামের সাহয্যে প্রসব।

সিজারিয়ান সেকশন।

ব্যাথা কমানো।

বাচ্চাকে খাওয়ানো।

জন্মের পর পর নবজাতকের নিয়মিত পরিচর্যা।

খেয়াল রাখবেন পাতাটি ৩০ মিনিট পর পর রিফ্রেশ হবে। এর মধ্যে এখানে যা লিখবেন তা পাতাটি খোলার কয়েক মিনিটের মধ্যে তা সেভ না করলে হারিয়ে যাবে। একবার এই পাতাটি সেভ করার পর আপনাকে আবার সেভ করতে হবেঃ

প্রতি ৩০ মিনিট পর পর, এবং

এই পাতাটি বন্ধ করে দেয়ার আগে।

এই পাতার একেবারে নিচের দিকে থাকা ‘save’ বাটনে ক্লিক করে আপনি জন্ম পরিকল্পনা সেভ করতে পারবেন। পরিকল্পনা চুড়ান্ত করার আগে জন্ম পরিকল্পনার একটি খালি ছক ডাউনলোড করে হাতে লিখেও পূরণ করতে পারেন।

About the author

Maya Expert Team