এডিএইচডি বিশেষ চাহিদা

ADHD এর সঙ্গে বসবাস

ADHDএর সঙ্গে বসবাস

মনোনিবেশের সমস্যা এবং অতিমাত্রায় সক্রিয়তায় আক্রান্ত শিশুদের পরিচর্যা করতে প্রচুর ধৈর্যের প্রয়োজন হয় এবং এটা আপনাকে ক্লান্ত করে ফেলতে পারে।

আবেগপ্রবণতা, বেপরোয়া ও বিশৃঙ্খল আচরন ADHD এর সাধারণ উপসর্গ যা স্বাভাবিক দৈনন্দিন জীবনকে চাপময় ও ক্লান্তিকর করে তুলতে পারে।

মানিয়ে নেওয়ার উপায়সমূহ

এটা মনে রাখা জরুরী যে ADHD আক্রান্ত শিশুরা তাদের আচরণকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না, যদিও তা মনে রাখা মাঝে মাঝে কঠিন হয়ে পড়ে। ADHD আক্রান্ত ব্যক্তিদের জন্য আবেগ দমন করা কঠিন হয়ে পড়ে, যার মানে হলো তারা কোনো কাজ করার আগে পরিস্থিতি বা কাজের ফলাফল বিবেচনা করতে পারেনা। যদি আপনি ADHD আক্রান্ত কোনো শিশুর দেখাশোনা করে থাকেন, তাহলে নিচের পরামর্শগুলো আপনাকে সাহায্য করতে পারে।

দিনের পরিকল্পনা করুন

দিনের পরিকল্পনা করুন যাতে করে আপনার শিশু বুঝতে পারে তার কাছ থেকে কি আশা করা হচ্ছে। সারাদিনের নির্ধারিত কাজগুলোকে একটা রুটিনের মধ্যে নিয়ে আসতে পারলে, বুঝা যাবে এই রুটিনের সাথে সে কিভাবে নিজেকে মানিয়ে নিচ্ছে। উদাহরণস্বরূপ – যদি আপনার সন্তানকে স্কুলের জন্য তৈরী হতে হয় তাহলে পুরো কাজটিকে কয়েকটি ধাপে ভাগ করুন, যেমন দাঁত ব্রাশ করা, হাত-মুখ ধোয়া, নাস্তা করা, স্কুলের ড্রেস পরা- ইত্যাদি, যাতে করে তারা বুঝতে পারে তাদেরকে কি কি করতে হবে।

সুস্পষ্ট সীমারেখা নির্ধারন করুন

এটা নিশ্চিত করুন শিশু যেন বুঝতে পারে সবাই তার কাছে যে কি ধরণের আচরণ আশা করছে। তাৎক্ষণিক প্রশংসা ও পুরষ্কারের মাধ্যমে ইতিবাচক আচরণকে স্বীকৃতি দিন। যদি সীমারেখা লঙ্ঘন করে, তবে তার কোন সুযোগ কমিয়ে দিয়ে বিষয়টি তার কাছে স্পষ্ট করুন এবং ধারাবাহিকভাবে এই পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করুন।

ইতিবাচক হোন

নির্দিষ্ট করে প্রশংসা করুন। সাদামাটাভাবে “এই কাজটি করার জন্য ধন্যবাদ” বলার চেয়ে আপনি বলতে পারেন “তুমি এই কাজটা সত্যিই খুব ভালো করে ধুয়েছ। ধন্যবাদ।” এতে করে আপনার সন্তানের কাছে এটি স্পষ্ট হবে যে আপনি খুশি হয়েছেন এবং কি কারণে।

নির্দেশনা প্রদান করুন

যদি আপনি আপনার সন্তানকে কিছু করার জন্য বলেন তাহলে নির্দিষ্ট করে বলুন কি করতে হবে এবং বিস্তারিত নির্দেশনা দিন। “তুমি কি তোমার শোবার ঘরটি গুছিয়েছ?” এটা জিজ্ঞেস করার পরিবর্তে এভাবে বলুন “তোমার খেলনাগুলো বাক্সে ভরে রাখো আর বইগুলো আবার তাকের মধ্যে রেখে দাও।” এতে করে আপনার শিশু স্পষ্ট করে বুঝতে পারবে যে তাকে কি করতে হবে এবং যখন সে তা ঠিকমতো করতে পারবে তখন প্রশংসা করার জন্য সুযোগ তৈরী হবে।

উদ্দীপক প্রকল্প

কোন ভাল কাজের জন্য কি পুরষ্কার তার একটি তালিকা তৈরী করুন, যাতে প্রতিটি ভাল আচরণের জন্য সে একটি বিশেষ সুবিধা অর্জন করতে পারে। উদাহরণস্বরুপ কেনাকাটার সময় ভাল আচরণ করলে বেশিক্ষন কম্পিউটারের বসা যাবে বা কোন প্রিয় খেলা খেলার সুযোগ পাবে। এই তালিকা তৈরির সময় আপনার সন্তানকেও এরসাথে যুক্ত করুন এবং কোন ভাল কাজের কি পুরুস্কার হতে পারে তা তাকেই নির্ধারণ করার সুযোগ দিন।

এই তালিকাগুলো নিয়মিত পরিবর্তন করতে হবে নতুবা এগুলো বিরক্তিকর হয়ে পড়বে। লক্ষ্য হওয়া উচিতঃ

তাৎক্ষণিক (উদাহরণস্বরূপ- দৈনিক)

মধ্যকালীন (উদাহরণস্বরূপ- সাপ্তাহিক)

দীর্ঘমেয়াদী (উদাহরণস্বরূপ- ত্রৈমাসিক)

একবারে একটি বা দুইটি আচরণের দিকে মনোযোগ দিন।

উত্তেজিত হয়ে পড়লে বা আত্মনিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে দ্রুত হস্তক্ষেপ করুন

সতর্কতার চিহ্নগুলো লক্ষ্য করুন। যদি আপনার সন্তানকে দ্বিধাগ্রস্থ, অতিমাত্রায় উত্তেজিত এবং আত্মনিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলছে এমন দেখায় তাহলে হস্তক্ষেপ করুন। সম্ভব হলে তাকে পরিস্থিতি থেকে দূরে সরিয়ে তার মনোযোগ বিক্ষিপ্ত করে দিন, হয়তো এতে করে সে শান্ত হয়ে পড়বে।

সামাজিক পরিস্থিতি

যদি কোন সামাজিক অনুষ্ঠান আয়োজন করেন বা ঘরের বাইরে কোন সামাজিক অনুষ্ঠানে শিশুকে নিয়ে যান, সেগুলো যেন সংক্ষিপ্ত ও মনোরম হয়। বন্ধুদেরকে খেলার জন্য ডাকুন তবে খেলার সময়কে সংক্ষিপ্ত রাখুন যাতে করে আপনার শিশু আত্মনিয়ন্ত্রণ হারিয়ে না ফেলে। তবে যখন আপনার সন্তান ক্লান্ত বা ক্ষুধার্ত তখন এটা করবেন না, যেমন- স্কুল থেকে ফেরার পর।

ব্যয়াম

দিনের বেলা আপনার শিশু যাতে প্রচুর শারীরিক কার্যকলাপের সুযোগ পায় তা নিশ্চিত করুন। হাটা, দড়ি লাফানো ও খেলাধুলা করা আপনার শিশুকে ক্লান্ত হতে সাহায্য করে এবং তার ঘুমের মান বাড়াবে। ঘুমাতে যাওয়ার আগে তারা যেন শ্রমসাধ্য ও উত্তেজনাপূর্ণ কোনো কিছু না করে তা নিশ্চিত করুন।

ঘুমানোর সময়

একটি রুটিন পালন করুন। আপনার সন্তান যাতে প্রতিরাতে একই সময়ে ঘুমাতে যায় এবং সকালে একই সময়ে ঘুম থেকে উঠে সেটা নিশ্চিত করুন। ঘুমাতে যাওয়ার আগে অতি উত্তেজনাপূর্ণ কার্যাবলী এড়িয়ে চলুন, যেমন- কম্পিউটারে গেমস খেলা বা টিভি দেখা।

রাতের বেলা

ঘুমের সমস্যা ও ADHD দুষ্টচক্রের মতো আবর্তিত হতে পারে। ADHD এর ফলে ঘুমের সমস্যা হতে পারে যা পালাক্রমে এই রোগের উপসর্গগুলোর আরও অবনতি ঘটায়। অনেক ADHD আক্রান্ত শিশু ঘুম পাড়ানোর পর বারবার জেগে উঠে এবং তার ঘুম বিঘ্নিত হয়। একটি ঘুম-বান্ধব রুটিন মেনে চলার চেষ্টা আপনার শিশুর জন্য সহায়ক হতে পারে এবং এতে শুতে পাঠানোর জন্য যুদ্ধ করতে হবে না। ।

স্কুলে সাহায্য করা

ADHD আক্রান্ত শিশুরা প্রায়ই স্কুলে তাদের আচরণের জন্য সমস্যায় পড়ে এবং এই পরিস্থিতি শিশুর পড়াশোনার অগ্রগতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে।

আপনার সন্তানের যেকোন অতিরিক্ত সহায়তা যা তার প্রয়োজন হতে পারে সে বিষয়ে তার শিক্ষকদের সাথে কথা বলুন।

ADHD আক্রান্ত প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তি

যদি আপনি একজন ADHD আক্রান্ত প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তি হয়ে থাকেন তাহলে নিচের পরামর্শগুলো আপনার জন্য উপকারী হতে পারে।

সারাদিনের কাজের তালিকা তৈরী করুন, ডায়েরি রাখুন, মনে করিয়ে দেয়ার ব্যবস্থা রাখুন এবং যদি আপনার জন্য গুছিয়ে কাজ করে কঠিন হয়ে পড়ে তাহলে আপনার কি করা উচিৎ তার পরিকল্পনা করার জন্য রুটিনে কিছু বাড়তি সময় রাখুন।

নিয়িমিত ব্যয়াম করুন।

আপনাকে শিথিল হতে সাহায্য করে এমন উপায়গুলো খুঁজে বের করুন, যেমন গান শোনা, শিথিলকরণের অন্যান্য কৌশলগুলো শিখুন,

যদি আপনি চাকুরীরত থাকেন তাহলে আপনার নিয়োগকর্তার সাথে আপনার সমস্যা নিয়ে কথা বলুন এবং আপনার কাজের উন্নতিতে সহায়তা করতে তারা যা কিছু করতে পারেন সে বিষয়ে আলোচনা করুন।

স্থানীয় বা জাতীয় পর্যায়ের সহায়ক গ্রুপের সাথে যোগাযোগ করুন বা তাদের সাথে যোগ দিন- আপনি অন্যান্য যেসব বন্ধুদের এই সমস্যা রয়েছে এবং যারা বিভিন্ন সহায়ক গ্রুপে রয়েছে তাদের দিকে হাত বাড়ান। মায়া ভয়েস বা মায়া ভিলেজ এ ADHD আক্রান্ত অন্যদের খোঁজ করুন।কথাবার্তা বলা আরম্ভ করুন অথবা মায়া আপা কি বলে তে আমাদের এই বিষয়ে জিজ্ঞাসা করুন।

About the author

Maya Expert Team