নারী স্বাস্থ্য ও দেহতত্ত্ব মাসিক

অতিরিক্ত মাসিক- রোগ নির্ণয়

অতিরিক্ত মাসিক- রোগ নির্ণয়
যদি আপনি অতিরিক্ত মাসিক হচ্ছে বলে মনে করেন তাহলে আপনার ডাক্তারকে দেখান। আপনার ডাক্তার সমস্যাটি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখবেন এবং আপনাকে চিকিৎসা নিতে সাহায্য করবেন। আপনার মাসিক এবং মেডিকেল ইতিহাস জানার পর যদি অতিরিক্ত মাসিক (মেনোরেজিয়া) ধরা পড়ে তাহলে আপনি এবং আপনার ডাক্তার উভয়েই মাসিক রক্তপাত অতিরিক্ত বলে নিশ্চিত হন।


ডাক্তারের
সাথে আলোচনা
অতিরিক্ত মাসিকের কারণ নির্ণয় করতে, আপনার ডাক্তার জিজ্ঞেস করবেন :

  • আপনার মেডিকেল ইতিহাস
  • আপনার রক্তপাতের প্রকৃতি
  • এর সম্পর্কিত যা যা উপসর্গ আপনার আছে।

তারা আপনাকে মাসিকের ব্যপারে কিছু প্রশ্ন করবেঃ

  • সাধারনত কতদিন আপনার মাসিক স্থায়ী হয়
  • আপনার কতটুকু রক্তপাত হয়
  • আপনার কতবার স্যানিটারী প্যাড পরিবর্তন করতে হয়
  • আপনি প্লাবিত (কাপড় অথবা বেডিং এ অতিরিক্ত রক্তপাত) হয়ে থাকেন কি না
  • অতিরিক্ত মাসিক আপনার প্রাত্যহিক জীবনে কতটা প্রভাব ফেলে ।
  • আপনার ডাক্তার আপনার কাছে জানতে চাইবে মাসিকের মধ্যে অথবা সহবাসের পর এবং যখন আপনি তলপেটে ব্যথা অনুভব করেন তখন আপনার রক্তপাত হয় কিনা। মেনোরেজিয়ার কারণ নিশ্চিত করতে , আপনার শারীরিক পরীক্ষা করতে হতে পারে বিশেষত যখন আপনার তলপেট ব্যথা অথবা মাসিকের সময় কিংবা সহবাসের পর রক্তপাত হয় ।
  • আপনার চিকিৎসক জানতে চাইবে আপনি বর্তমানে কোন জন্মনিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি ব্যবহার করেন, আপনার এই পদ্ধতি পরিবর্তনের কোন ইচ্ছা আছে কিনা, ভবিষ্যতে আপনার বাচ্চা নেওয়ার পরিকল্পনা আছে কিনা। সর্বশেষ কবে আপনি সারভিক্যাল স্ক্রিনিং টেস্ট করিয়েছেন তা নোট করা হবে।
  • অবশেষে, আপনার পরিবারের কারো একই ধরণের অবস্থা ছিল কিনা সে সম্পর্কে জিজ্ঞেস করে দেখবেন, যেমন ভন উইলিব্র্যান্ড রোগ, যা পরিবারের মধ্যে প্রবাহিত হয় এবং সঠিকভাবে রক্তজমাট বাঁধায় প্রভাব ফেলে।


আরো
পরীক্ষানিরীক্ষা
আপনার মেডিকেল ইতিহাসের উপর নির্ভর করে এবং প্রয়োজনীয় শারীরিক পরীক্ষার ফলাফল দেখে অতিরিক্ত মাসিকের পরীক্ষা দরকার হতে পারে।

উদাহরণস্বরূপ, যদি আপনার মাসিকের মাঝে কিংবা পরে রক্তপাত হয় অথবা তলপেট ব্যথা হয়ে থাকে, তাহলে আপনার কোনো মারাত্মক রোগের সম্ভাবনা আছে কিনা তা নিশ্চিত হবার জন্য আরো টেস্ট করতে হতে পারে যেমন অন্তর্নিহিত ক্যান্সার (যা খুবই বিরল)।


পেলভিক
পরীক্ষা
যদি আপনার পেলভিক পরীক্ষার প্রয়োজন হয়, আপনার চিকিৎসক আপনাকে জিজ্ঞেস করবেন আপনার কোন মহিলা সাহায্যকারী লাগবে কিনা। একটি পেলভিক পরীক্ষায় যা যা অন্তর্ভুক্ত থাকে তা হলো:

  • স্ত্রী-যোনীদ্বার পরীক্ষা- স্ত্রীযোনী মুখের পরীক্ষা, বহির্ভূত রক্তপাত এবং সংক্রমনের লক্ষণ যেমন যোনীর স্রাব এর পরীক্ষা।
  • একটি স্পেকুলাম দিয়ে যোনী এবং সারভিক্সের পরীক্ষা- স্পেকুলাম হচ্ছে একটি মেডিকেল যন্ত্র যা যোনী এবং সারভিক্সের পরীক্ষার জন্য ব্যবহৃত হয়।

হাত দিয়ে পরীক্ষা- যোনীর বাইরের একটি পরীক্ষা যা আংগুল দিয়ে করা হয় গর্ভাশয় অথবা ডিম্বাশয় বড় হয়ে আছে কিনা সনাক্ত করার জন্য।

পেলভিক পরীক্ষা শুধুমাত্র গাইনি বিশেষজ্ঞের (স্ত্রী প্রজননে বিশেষজ্ঞ) মত স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ দিয়েই করা উচিত।

পেলভিক পরীক্ষা করার আগে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ আপনাকে প্রক্রিয়াটি ব্যাখ্যা করবে এবং ব্যখ্যা করবে কেন এটা প্রয়োজন ও এটা কি কারণ করা হচ্ছে। আপনার উচিত যেকোন অনভ্যস্ত জিনিসের ব্যাপারে জিজ্ঞেস করা। একটি পেলভিক পরীক্ষা আপনার অনুমতি ছাড়া করা উচিত নয়।


বায়োপ্সি
কিছু মেনোরেজিয়ার ক্ষেত্রে, একটি কারণ প্রতিষ্ঠা করার জন্য একটি বায়োপ্সি প্রয়োজন। এটা একজন বিশেষজ্ঞ করবেন এবং গর্ভাশয়ের আস্তরনের ছোট একটি নমুনা সংগ্রহ করবেন মাইক্রোস্কোপের নিচে সূক্ষ্মভাবে পরীক্ষার জন্য।


রক্ত
পরীক্ষা
যেসব মহিলার অতিরিক্ত মাসিকের সমস্যা আছে সাধারনত তাদের একটি পূর্ণ রক্ত পরীক্ষা করা হয়। এটা আয়রনের অভাবজনিত রক্তাল্পতা সনাক্ত করতে পারে, যা প্রায়ই দীর্ঘায়িত অতিরিক্ত মাসিকের কারণ হয়ে থাকে।

যদি আপনার আয়রন অভাবজনিত রক্তাল্পতা থাকে আপনাকে সাধারনত একটি ঔষধ এর কোর্স দেওয়া হতে পারে। আপনার চিকিৎসক  আপনার জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত ঔষধ এবং কতদিন তা আপনাকে নিতে হবে তার পরামর্শ দিতে পারে।


আল্ট্রাসাউন্ড
স্ক্যান
টেস্টের পরেও যদি আপনার অতিরিক্ত মাসিক রক্তপাত হয় এবং তার কারণ এখনো অজানা থাকে, তবে আপনার গর্ভাশয়ের একটি একটি আল্ট্রাসাউন্ড স্ক্যান নেওয়া হতে পারে ফাইব্রয়েড অথবা পলিপ্স-এর মত অস্বাভাবিকতা খুঁজে বের করার জন্য। ক্যান্সার সনাক্ত করার জন্যও আল্ট্রাসাউন্ড ব্যবহার করা যেতে পারে।

একটি ট্রান্সভ্যাজাইনাল স্ক্যানও ব্যবহার করা যেতে পারে, যা যোনীতে একটি ক্ষত পরীক্ষার যন্ত্র সংযোজন করতে পারে গর্ভাশয়ের পরিষ্কার দৃশ্য নেওয়ার জন্য।

About the author

Maya Expert Team