নারী স্বাস্থ্য ও দেহতত্ত্ব যোনিপথের স্বাস্থ্যবিধি

যৌনাঙ্গে ঘা হওয়া (ভ্যাজিনাল ক্যান্ডিডায়াসিস)- উপসর্গসমূহ

যৌনাঙ্গে ঘা হওয়া (ভ্যাজিনাল ক্যান্ডিডায়াসিস)- উপসর্গসমূহ
ভ্যাজাইনাল থ্রাস এর উপসর্গগুলি সাধারণত সুস্পষ্ট তা সত্ত্বেও আক্রান্ত অনেক ব্যক্তিই অনেক সময় তা বুঝতে পারেন না। প্রধান লক্ষণসমূহ হচ্ছেঃ

  • যোনিমুখে চুলকানি বা যন্ত্রণাবোধ ও কালশিটে বা ব্যথা হওয়া
  • যৌন মিলনের সময় ব্যথা হওয়া
  • প্রস্রাবের সময় তীব্র যন্ত্রণাদায়ক অনুভূতি হওয়া
  • যোনিস্রাব হওয়া, যদিও এটি সবসময় হয় না। অনেক সময় তা গন্ধমুক্ত পাতলা ও পানির মতন হতে পারে অথবা ঘন ও পনিরের ন্যায় সাদা রঙেরও হতে পারে।


জটিল লক্ষণসমূহ
উপরোক্ত লক্ষণ ছাড়াও নিম্নোক্ত লক্ষণসমূহও প্রকাশিত হতে পারেঃ

  • যোনিপথ ও যোনিদ্বার লাল হওয়া ও ফুলে যাওয়া
  • যোনিমিখের ত্বক ফেটে যাওয়া
  • যৌনাঙ্গের পারিপার্শ্বিক অংশে ঘা হওয়া। এরকম হওয়া বিরল, কিন্তু এ লক্ষণ আপনার যোনিতে হার্পিস সিমপ্লেক্স ভাইরাস (জেনিটাল হার্পিসের জন্য দায়ী) এর উপস্থিতির জন্য সৃষ্টি হতে পারে।
  • জটিল অথবা জটিলতামুক্ত ক্ষত

লক্ষণের উপর ভিত্তি করে ডাক্তাররা কখনো এ ধরণের ক্ষতকে “জটিলতামুক্ত” অথবা “জটিল” ক্ষত হিসাবে আখ্যায়িত করেন। আনুষঙ্গিক শারীরিক সমস্যা আছে কি না এবং ঈষ্ট সংক্রমণের প্রবণতার উপর ভিত্তি করে এই বিভাজন করা হয়।

জটিলতামুক্ত ক্ষত হচ্ছে হালকা ধরণের যা আপনার প্রথমবার হয়েছে অথবা অনিয়মিত ভাবে হয়। জটিল ক্ষত বলতে তীব্র ক্ষত বোঝায় যার পুনরাবৃওি ঘটতে থাকে (বছরে ৪ বার বা ততোধিক)। বিরল ক্ষেত্রে, জটিল ক্ষতের সাথে অন্যান্য ঈষ্ট সংক্রমণ ক্রনিক (দীর্ঘকাল স্থায়ী) রূপ ধারণ করে।

নিম্নোক্ত উপসর্গের ক্ষেত্রে সর্বদা ডাক্তারের পরামর্শ নিনঃ

  • প্রথম বার ক্ষত হলে
  • বয়স ১৫ এর কম অথবা ৬০ এর অধিক হলে
  • গর্ভবতী অথবা গর্ভাবস্থা সৃষ্টির সম্ভাবনা থাকলে
  • স্তন্যপান করালে
  • মাসিকে অস্বাভাবিক রক্তপাত অথবা রক্তযুক্ত স্রাব হওয়া
  • তলপেটে ব্যথা হওয়া
  • পূর্বে হওয়া ক্ষতের লক্ষণ অন্যরকম হওয়া- যেমন ভিন্ন রঙের অথবা দুর্গন্ধযুক্ত স্রাব হওয়া
  • যোনিপথ অথবা যোনিমুখে ঘা হওয়া
  • শেষ ৬ মাসে দুইবার ক্ষততে আক্রান্ত হওয়া
  • আপনি অথবা আপনার সঙ্গীঁ পূর্বে যৌনবাহিত সংক্রমণে আক্রান্ত হয়ে থাকলে এবং রোগের পুনরাবৃত্তি হয়েছে- এমন মনে হয়ে থাকলে
  • পূর্বে ছত্রাকবিরোধী ঔষধ গ্রহণে ক্ষতিকারক প্রতিক্রিয়া হয়ে থাকলে অথবা ঔষধ কাজ না করে থাকলে
  • ৭-১৪ দিনের মধ্যে লক্ষণ প্রশমিত না হলে

About the author

Maya Expert Team