বাল্যরোগ চিকিৎসা মাইলফলক শিশুর যত্ন

আপনার বাচ্চা ঠিকমত বেড়ে উঠছে কি?

সাধারণ বেড়ে উঠা

ডাক্তার বা স্বাস্থ্যকর্মী যখন আপনার শিশুর বেড়ে উঠা পর্যালোচনা করবেন, তখন আপনাকে আপনার শিশু সম্পর্কে বিভিন্ন প্রশ্ন করবেন, শিশু সম্পর্কে আপনার কোন উদ্বেগ আছে কিনা তাও জানতে চাইবেন। যদি আপনার শিশু নির্দিষ্ট সময়ের আগেই জন্মগ্রহণ করে, তবে আপনার শিশুর যেদিন জন্মগ্রহণ করার কথা ছিল সেদিন থেকেই তার বেড়ে উঠা হিসাব করা হবে। এইক্ষেত্রে তার আসল জন্মতারিখ অনুসারে হিসাব করা হবে না।

সাধারণত জন্মের ১ থেকে ১৫ মাসের মধ্যে নিয়মিত টিকাদানের সময় আপনার শিশুর ওজন মাপা হবে। যদি আপনার শিশুর ওজন সম্পর্কে আপনার কোন ধরনের উদ্বেগ থাকে, তবে আপনি এর মাঝেও আপনার শিশুর ওজন মেপে দেখতে পারেন। সাধারণত ৬ মাস বয়স পর্যন্ত প্রতি মাসে একবার, ৬ থেকে ১২ মাস বয়স পর্যন্ত প্রতি দুই মাসে একবার এবং ১ বছর পূর্ণ হওয়ার পর প্রতি তিন মাস পর পর একবার করে শিশুর ওজন মেপে দেখা উচিত।

নিচের সময়সূচী অনুসারে আপনার শিশুর বেড়ে উঠা পর্যবেক্ষণ করা উচিত:

জন্মের পর

প্রসূতি সেবাদানকারীরা শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানো, নতুন শিশুর যত্ন নেয়া এবং বাবা-মা হিসেবে আপনাদের করনীয় সম্পর্কে আপনাদের বুঝিয়ে বলবেন। একই সঙ্গে আপনার শিশুর সার্বিক স্বাস্থ্য পর্যালোচনা করা হবে এবং শিশুর শ্রবণ ক্ষমতা সহ বেশ কিছু বিষয় পরীক্ষা করা হবে।

১৪ দিন বয়সে

একজন পেশাদার ডাক্তার বা স্বাস্থ্যকর্মী আপনার শিশুর বেড়ে উঠা নতুন ভাবে পর্যবেক্ষণ করবেন। স্বাস্থ্যকর্মী আপনার শিশুকে খাওয়ানো, বাবা-মা হিসেবে আপনার করণীয় এবং শিশুর ভালভাবে বেড়ে উঠার জন্য আপনাকে কিভাবে তার যত্ন নিতে হবে, সে সম্পর্কে পরামর্শ দিবেন।

জন্মের ঠিক পরে (উলঙ্গ অবস্থায়), ৫ দিন বয়সে এবং ১০ দিন বয়সে শিশুর ওজন মেপে দেখা উচিত।

৬ সপ্তাহ, ১০ সপ্তাহ, ১৪ সপ্তাহ এবং নয় মাস বয়সে

আপনার শিশুকে নির্দিষ্ট সময়ে টিকা দেয়া হবে। শিশুর কয়েকটি পরীক্ষা করা হবে এবং একজন পেশাদার চিকিৎসক শিশুর শারিরিক সব দিক পরীক্ষা করে দেখবেন। এই সুযোগে শিশুকে নিয়ে আপনার মনে কোন উদ্বেগ থাকলে বা আপনার কোন তথ্য জানার থাকলে তা ডাক্তার বা স্বাস্থ্যকর্মীর কাছ থেকে জেনে নিতে পারেন।

অন্য কোন সময়ে যদি আপনার কিছু জানার থাকে বা আপনি আপনার নিজের বা আপনার শিশুর স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বিগ্ন থাকেন বা আপনার শিশুর ওজন মাপাতে চান, তবে নিকটস্থ শিশু হাসপাতালে বা শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে যোগাযোগ করুন।

এক বছর বয়সে

এই সময় আপনার শিশুর দ্বিতীয় পূর্ণ পর্যালোচনা হবে। এই পর্যালোচনায় শিশুর ভাষা, শিক্ষা গ্রহণ, নিরাপত্তা, খাদ্যাভ্যাস এবং আচরণ পর্যবেক্ষণ করা হবে। এই সুযোগে আপনি এবং আপনার সঙ্গির আপনাদের শিশু সম্পর্কে কোন উদ্বেগ থাকলে তা ডাক্তার বা স্বাস্থ্যকর্মীর সাথে আলোচনা করে নিতে পারেন। আপনার শিশু কিছু দিন পরেই হাঁটতে শিখবে, আপনাকে সে জন্যও প্রস্তুত হতে হবে।

১৫ মাস বয়সে

এই বয়সে আপনার শিশুকে হামের টিকা দেয়া হবে। এই সুযোগে শিশুর বেড়ে উঠা সম্পর্কে ডাক্তার বা স্বাস্থ্যকর্মীর সাথে আলোচনা করে নিতে পারেন।

দুই এবং আড়াই বছর বয়সের মধ্যে

এই সময়ে আপনার শিশুর তৃতীয়বারের মত পূর্ণ স্বাস্থ্য ও বেড়ে উঠা পর্যালোচনা করা হবে। এই সুযোগে শিশুর পরবর্তী বেড়ে উঠা সম্পর্কে জানার জন্য আপনি এবং আপনার সঙ্গি চিকিৎসককে প্রশ্ন করতে পারেন।

এই পর্যালোচনাটি একজন স্বাস্থ্যকর্মী বা সেবিকা বা একজন শিশুদের সেবিকা করবেন। তাঁরা সার্বিক অবস্থা সম্পর্কে আপনার কাছে জানতে চাইবেন এবং আপনার কোন উদ্বেগ থাকলে সে কথাও জিজ্ঞাসা করবেন। এই পর্যালোচনাটি স্থানীয় শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্র বা আপনার বাসায় হতে পারে। সবচেয়ে ভাল হয় যদি আপনি এবং আপনার সঙ্গি দুই জনই এই সময় উপস্থিত থাকেন।

এই পর্যালোচনায় যে বিষয়গুলো অন্তর্ভুক্ত থাকবে:

সাধারণ বেড়ে উঠা, যেমন: নড়াচড়া, কথাবার্তা, সামাজিক দক্ষতা ও আচরণ এবং শ্রবণ ও দৃষ্টি ক্ষমতা।

দৈহিক বৃদ্ধি, স্বাস্থ্যকর খাবার এবং কর্মক্ষমতা।

আচরণ নিয়ন্ত্রণ এবং ঠিকমত ঘুমানোর অভ্যাস তৈরিতে উৎসাহিত করা।

দাঁত ব্রাশ করা এবং নিয়মিত দাঁতের ডাক্তারের কাছে যাওয়া।

আপনার শিশুকে নিরাপদে রাখা, এবং

টিকাদান।

আপনি যদি আপনার কাজে ফিরে যাওয়ার কথা ভাবেন, তবে চাইল্ড কেয়ার বা অন্য কোন ব্যবস্থা সম্পর্কে খোজ খবর নিন।

স্কুলে ভর্তির সময় ( ৪ থেকে ৫ বছর বয়সে)

আপনার সন্তানের একট পূর্ণ স্বাস্থ্য পর্যালোচনা হবে। এই পর্যালোচনায় আপনার সন্তানর ওজন ও উচ্চতা মাপা হবে এবং তার দৃষ্টি ও শ্রবণ ক্ষমতা যাচাই করা হবে। সরকারিভাবে এলাকা ভিত্তিক স্কুলের জন্য একজন করে স্কুল স্বাস্থ্য পরিদর্শক (school health inspector) থাকেন। তাছাড়া, কিছু কিছু স্কুলে নির্দিষ্ট স্বাস্থ্যকর্মী থাকে, আপনার সন্তান যখন স্কুলে যেতে শুরু করবে, তখন তার বেড়ে উঠা এবং স্বাস্থ্যের যত্নে স্কুলের স্বাস্থ্যকর্মীরা আপনাকে সহায়তা করবেন। সঠিক টিকাদান, স্বাস্থ্য পরীক্ষা সহ, আপনার সন্তানের মানসিক ও সামাজিক উন্নতি এবং সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল নিশ্চিত করার জন্য স্কুলের কর্মীরা আপনার সাথে কাজ করবেন।

About the author

Maya Expert Team