টিকা বাল্যরোগ চিকিৎসা শিশুর যত্ন

টিকা দেয়া নিয়ে কিছু ভ্রান্ত ধারনা এবং সে বিষয়ে কিছু সঠিক তথ্য

কখন শিশুকে টিকা দেয়া বাতিল করা উচিত সে বিষয়ে কিছু ভ্রান্ত ধারনা এবং সঠিক তথ্য জেনে নিন।

সদ্য হাঁটতে শেখা শিশুর মারাত্মক একজিমা থাকলে তাকে MMR টিকার ডোজ দেয়া যাবে কী? টিকা দেয়া নিরাপদ কিনা সে বিষয়ে অনেক ভুল ধারনা প্রচলিত রয়েছে। কখন আপনার শিশুকে টিকা দেয়া যাবে এবং কখন যাবে না সে বিষয়ে সঠিক তথ্য জেনে নিন।

কখন শিশুকে টিকা দেয়া যাবে নাঃ

আপনার শিশুকে টিকা দেয়া স্থগিত রাখুন, যদিঃ

আপনার শিশু অসুস্থ হয় এবং তার অনেক জ্বর থাকে। এতে টিকা দেয়ার ফলে আপনার শিশুর জ্বর হওয়া আর এই জ্বর একসাথে হবে না বা আপনার শিশুর জ্বর টিকা দেয়ার ফলে আরও বাড়বে না।

যদি আপনার শিশু টিকা দেয়ার পর মারাত্মক কোন প্রতিক্রিয়া দেখায় তাহলে পরেরবার টিকা দেয়া স্থগিত রাখুন। টিকা দেয়া একেবারে বন্ধ করতে হবে না, তবে ডাক্তারের সাথে কথা বলে নেয়া ভাল। টিকা দেয়ার ফলে যদি আপনার শিশুর শরীরে অ্যানাফিলাক্টিক প্রতিক্রিয়া (anaphylactic reaction) বা মারাত্মক অ্যালার্জি দেখা দেয় তাহলে তাকে আর টিকা দেয়া যাবে না।

যদি আপনার শিশু উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন স্টেরয়েড ট্যাবলেট খেতে থাকে বা কম ক্ষমতা সম্পন্ন স্টেরয়েড ট্যাবলেট অন্যান্য ওষুধের সাথে বা দীর্ঘদিন ধরে খেতে থাকে তাহলে তাকে BCG বা যক্ষ্মার টিকা দেয়া যাবে না। নিশ্চিত হওয়ার জন্য ডাক্তারের সাথে কথা বলুন।

যদি আপনার শিশুর ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য কেমোথেরাপি বা রেডিওথেরাপি চলতে থাকে তাহলে তাকে থেরাপি চলাকালীন এবং তার ছয় মাস পর পর্যন্ত কোন টিকা দেয়া যাবে না।

যদি আপনার শিশুর কোন অঙ্গ প্রতিস্থাপন করা হয়ে থাকে এবং তারপর তাকে immunosuppressant drugs (ইমিউনোসাপ্রেসান্ট ড্রাগস) দেয়া হয় তাহলে তাকে টিকা দেয়া যাবে না।

আপনার শিশুর বোন ম্যারো প্রতিস্থাপন (bone marrow transplant) করা হলে, এবং বিগত ১২ মাসের মধ্যে কোন immunosuppressive therapy (ইমিউনোসাপ্রেসিভ থেরাপি) দেয়া হলে তাকে টিকা দেয়া যাবে না।

যদি আপনার শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। আপনি নিশ্চিত হতে না পারলে নার্স বা ডাক্তারের সাথে কথা বলুন।

কখন শিশুকে টিকা দেয়া বন্ধ রাখার কোন দরকার নেই

নিচে উল্লেখ করা কোন কারনে শিশুকে টিকা দেয়া বন্ধ রাখার কোন দরকার নেইঃ

জ্বর ছাড়া শিশুর হালকা সর্দিকাশি হলে

পরিবারের অন্য কারও টিকা দেয়া নিয়ে কোন ভীতিকর অভিজ্ঞতা বা অ্যালার্জি হওয়ার ঘটনা থাকলে

আপনার শিশুর হুপিং কফ, মিজেল, রুবেলা বা মাম্পসের মত অসুখ হয়ে গিয়ে থাকলে

শিশু নির্ধারিত সময়ের আগে জন্ম নিলে

আপনার শিশুর সেরেব্রাল পলসি (cerebral palsy)-এর মত কোন নিউরোলজিকাল অসুখ থাকলে

আপনার শিশু কোন ধরনের সংক্রমণের সংস্পর্শে এসে থাকলে

তার অ্যাজমা, হে ফিভার, একজিমা বা স্নাফলস (snuffles) থাকলে

যদি শিশু অ্যান্টিবায়োটিক বা ক্রিম বা ইনহেলারের মত স্থানীয়ভাবে কাজ করে এমন স্টেরয়েড (locally acting steroids) নেয়, তাহলে

যদি শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানো হয়

যদি শিশু প্রেগন্যান্ট কারও সাথে (যেমনঃ তার মা) থাকে

জন্মানোর পর শিশুর জন্ডিস হলে

শিশুর ওজন স্বাভাবিকের চাইতে কম হলে

শিশুকে টিকা দেয়া শুরু করার আদর্শ বয়স পার হয়ে গেলে

শিশুর কোন কিছুতে অ্যালার্জি থাকলে

আপনার শিশুর বা পরিবারের কারও জ্বরের ঘোরে খিঁচুনি হলে বা মৃগীরোগ থাকলে

আপনার শিশু immunosuppressed person বা ইমিউনোসাপ্রেশন দেয়া হয়েছে এমন কারও (সে বাচ্চার ভাই বা বোনও হতে পারে) সংস্পর্শে থাকলে

শিশুর Crohn’s disease (ক্রোন’স ডিজিজ) বা ulcerative colitis (আলসারেটিভ কলিটিস)-এর মত কোন অসুখ থাকলে

শিশুর নিজের বা পরিবারের কারো প্রতিবন্ধিত্ব বা সে ধরেনর কোন সমস্যা থাকলে।

সম্প্রতি শিশুর কোন অপারেশন হয়ে থাকলে বা কোন অপারেশন হওয়ার কথা থাকলে

হোমিওপ্যাথি

মারাত্মক হতে পারে এমন অসুখ থেকে বাঁচার জন্য হোমিওপ্যাথি ওষুধ টিকার মত কাজ করে এটা একটা বিপদজনক ভুল ধারনা, এবং এটি আপনার শিশুর জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর হতে পারে। হোমিওপ্যাথি ওষুধ শিশুকে কোন অসুখ থেকে সুরক্ষা দিতে পারে এমন কোন প্রমান নেই।

সাঁতার কাটা

টিকা দিতে নিয়ে যাওয়ার কাছাকাছি সময়ে সাঁতার কাটতে যাওয়া শিশুর জন্য নিরাপদ নয় এটিও একটি ভ্রান্ত ধারনা। বাচ্চাকে আপনি টিকা দেয়ার আগে বা পরে যেকোনো সময় সাঁতার কাটতে নিয়ে যেতে পারেন।

About the author

Maya Expert Team