টিকা বাল্যরোগ চিকিৎসা শিশুর যত্ন

হেপাটাইটিস বি এর লক্ষণসমূহঃ

হেপাটাইটিস বি দ্বারা আক্রান্ত অধিকাংশ মানুষই ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সক্ষম হন অর্থাৎ, তাদের ক্ষেত্রে এটি দীর্ঘ মেয়াদী কোন রোগে পরিণত হয় না।

শরীরের অভ্যন্তরে যখন ভাইরাস ধ্বংস প্রক্রিয়া চলে, সেসময়টাতে অধিকাংশ মানুষের ক্ষেত্রেই রোগের কোন রকম লক্ষন দেখা যায় না, তারা সম্পূর্ণ সুস্থ থাকেন। এমনকি কেউ কেউ টেরও পান না যে, তিনি সংক্রমিত হয়েছিলেন।

তবে এটা মাথায় রাখতে হবে, যতক্ষন না কেউ সম্পূর্ণভাবে ভাইরাস মুক্ত হচ্ছেন, ততক্ষন পর্যন্ত তার থেকে আশেপাশের মানুষের মধ্যে এই ভাইরাস ছড়িয়ে যেতে পারে।

সাধারণ লক্ষণসমুহঃ

যাদের ক্ষেত্রে রোগের লক্ষণ প্রকাশিত হয়, তারা অনেকটা হেপাটাইটিস এ দ্বারা সংক্রমিত হবার মত লক্ষণ প্রকাশ করেন। এগুলোর মধ্যে রয়েছেঃ

১। ফ্লু এর মত কিছু লক্ষণ যেমনঃ ক্লান্ত লাগা, সারা শরীরে ব্যথা, মাথা ব্যথা এবং জ্বর।

২। খাবারে অরুচি এবং ওজন কমে যাওয়া

৩। বমি বমি ভাব, বমি হওয়া, ডায়রিয়া

৪। পাকস্থলীতে ব্যথা

৫। জন্ডিস

দীর্ঘ মেয়াদী সংক্রমনঃ

আপনি যদি ৬ মাসেরও বেশী সময় ধরে হেপাটাইটিস বি ভাইরাস দ্বারা সংক্রমিত থাকেন তবে এটি দীর্ঘ মেয়াদী সংক্রমণ (Chronic) বলে গণ্য হবে।

যত কম বয়সে হেপাটাইটিস বি ভাইরাস দ্বারা সংক্রমিত হবে, ততই দীর্ঘ মেয়াদী সংক্রমণের সম্ভাবনা বাড়বে। সে কারনে শিশু এবং ছোট বাচ্চারা দীর্ঘ মেয়াদী সংক্রমণের জন্য উচ্চ ঝুকিতে থাকে।

আপনার যদি দীর্ঘ মেয়াদী হেপাটাইটিস বি সংক্রমণ হয়ে থাকে, সেক্ষেত্রে হয়তো রোগের তেমন কোন লক্ষণ আপনার মধ্যে থাকবে না। এর মানে হল, আপনি না জেনেই রোগের জীবাণু আপনার আশেপাশে ছড়িয়ে দিতে থাকবেন।

আপনার যদি কোন লক্ষণ থাকেও তবে তা স্থায়ী হবে না, কখনো থাকবে, কখনো থাকবে না। তবে, এক্ষেত্রে একটি সম্ভাবনা থাকে যাতে ভবিষ্যতে আপনার লিভার দীর্ঘস্থায়ীভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পড়বে যা লিভারের দীর্ঘস্থায়ী অসুখ (Chronic Liver Disease – CLD) নামে পরিচিত এবং তা থেকে পরবর্তীতে লিভারের ক্যান্সারও হতে পারে।

ফালমিনেন্ট হেপাটাইটিস বি

এটি লিভার সংক্রমণের একটি মারাত্মক রুপ যা খুবই বিরল। এর লক্ষণসমূহের মধ্যে রয়েছেঃ হঠাৎ শারীরিক অবস্থার অবনতি, মারাত্মক জন্ডিস, পেট ফুলে যাওয়া ইত্যাদি। এটি যেকোন সময় মরণব্যাধীতে রূপ নিতে পারে।

About the author

Maya Expert Team