বাল্যরোগ চিকিৎসা শিশুর যত্ন শৈশবকালীন অসুস্থতা শৈশবকালীন অসুস্থতা

শিশুদের সুতাক্রিমি

অনেক শিশুই সুতাক্রিমি দ্বারা আক্রান্ত হয়। সুতাক্রিমি প্রচুর ডিম পাড়ে যা খালি চোখে দেখা যায় না। ডিমগুলো ধুলোর সাথে মিশে ছড়িয়ে পড়ে এবং খাবার, কার্পেট, বিছানার চাদর, টয়লেটের বসার জায়গার সাথে আটকে থাকে। এগুলো এতই ছোট এবং এমন ভাবে ছড়িয়ে থাকে যে খুব সহজেই এগুলো হাতের আঙ্গুলে বা নখের নিচে আটকে যায় এবং পরে খাবার সময় শরীরে ঢুকে পড়ে। সাধারণত এভাবেই শিশুরা আক্রান্ত হয়।

অন্ত্রে ডিম ফুটে ক্রিমি হয় যেগুলো আবার পায়ুপথের চারপাশে ডিম পাড়ে। এর ফলে শিশুর পায়ুপথে চুলকানি হতে পারে। বিশেষ করে রাতে চুলকানির মাত্রা বেড়ে যায়। সুতাক্রিমি অত্যন্ত সুক্ষ সাদা সুতার মত দেখতে হয় এবং আক্রান্ত শিশুর মলের সাথে দেখা যায়।

আপনার যদি মনে হয় যে আপনার শিশুর ক্রিমি আছে তবে সংশ্লিষ্ট ডাক্তার বা নার্স এর পরামর্শ নিন। আপনার শিশু যদি আক্রান্ত হয় তবে শিশুর সাথে সাথে আপনার পরিবারের সবাইকেই সুতাক্রিমির চিকিৎসা করাতে হবে, কারন এটি খুব সহজেই ছড়িয়ে পড়ে।

সুতাক্রিমির সংক্রমণ প্রতিরোধে করনীয়;

  • আপনার শিশুর নখ ছোট রাখুন
  • শিশুকে ঘুমানোর সময় প্যান্ট বা পায়জামা পরতে দিন
  • প্রতিদিন সকালে আপনার শিশুকে গোসল করান অথবা পায়ুপথের আশেপাশে ভালোমতো ধুয়ে দিন।
  • আপনার শিশুর গামছা/তোয়ালে আলাদা রাখুন
  • খেয়াল রাখুন যাতে আপনার পরিবারের সবাই যেন খাওয়ার আগে এবং বাথরুম ব্যাবহারের পরে ভালোভাবে হাত ধোয়া এবং নখ পরিষ্কার করে।
  • আপনার টয়লেটের সিট, হাতল বা চেইন ইত্যাদি জীবাণুমুক্ত রাখুন।
  • নিয়মিত শোবার ঘরের ধুলা পরিষ্কার করুন।

 

About the author

Maya Expert Team