বাল্যরোগ চিকিৎসা শিশুর যত্ন শৈশবকালীন অসুস্থতা শৈশবকালীন অসুস্থতা

আপনার শিশুকে হাসাপাতালে নিতে হলে

শিশুদের কাছে হাসপাতাল অদ্ভুত, ভীতিকর জায়গা মনে হতে পারে। অসুস্থ হওয়ার কারনে বা ব্যথা বোধ করার কারনেও তাদের মনখারাপ হতে পারে। আপনার এ অবস্থায় নিজেকে অসহায় মনে হলেও বাচ্চাকে আশ্বস্ত করার জন্য কিছু কাজ আপনি করতে পারেন।

তাদেরকে প্রস্তুত করুন

এরকম পরিস্থিতির জন্য আপনার শিশুকে যথাসম্ভব প্রস্তুত করে তুলুন। বাচ্চার সঙ্গে ডাক্তার-নার্স সেজে খেলা করতে পারেন বা টেডি বিয়ার আর পুতুলের ওপর অপারেশন করতে পারেন, এবং হাসপাতালে থাকার গল্প পড়ে শোনাতে পারেন। আপনার শিশুকে হাসপাতালে যেতে না হলেও এরকমটা করা ভাল। অনেক শিশুকেই পাঁচ বছরের কম বয়সে হাসপাতালে যেতে হয়, এবং অনেক ক্ষেত্রেই তাদের অবস্থা তখন বেশ গুরুতর থাকে।

আপনার শিশুকে যতটুকু সম্ভব সবকিছু বুঝিয়ে বলুন। এমনকি ছোট শিশুদেরও জানার দরকার আছে তাদের সাথে কি করা হচ্ছে। সত্য কথা বলাটা এখানে জরুরি। বাচ্চারা সাধারণত বাস্তবের চাইতে অনেক খারাপ কিছু কল্পনা করে নেয়। যদি কোন কিছুতে তাদের ব্যাথা লাগার কথা থাকে, তাহলে ব্যাথা লাগবে না এমন মিথ্যা আশ্বাস দিবেন না।

কোন কোন হাসপাতালে চিকিৎসা বা অপারেশনের জন্য সেখানে ভর্তি হওয়ার আগে শিশু ও তার পরিবারের সদস্যদের সবকিছু ঘুরিয়ে দেখানোর ব্যবস্থা আছে। আপনার বাচ্চা কখন আপনাকে দেখতে পাবে বা আপনারা তার সঙ্গে থাকতে পারবেন কিনা এটা জানাও বাচ্চার জন্য জরুরি।

হাসপাতালে থাকাটা কেমন হবে সেটা আপনার বাচ্চাকে বুঝিয়ে বলুন। সে সেখানে তার সমবয়সী অন্য বাচ্চাদের সাথে একই ওয়ার্ডে থাকবে এবং সেটা বাড়িতে তার শোবার ঘরে ঘুমানোর চাইতে ভিন্ন হবে তা বলুন।

তাদের সঙ্গে থাকুন

আপনি বাচ্চাকে হাসপাতালে দেখতে গেলে এবং, বিশেষ করে ছোট বাচ্চাদের ক্ষেত্রে, রাত্রে তার সঙ্গে থাকলে সেটি তার জন্য সহায়ক হবে। এর জন্য যা যা করতে হয় করুন। সব ধরনের শিশুদের হাসপাতালে এখন রাত্রে বাবা মায়ের থাকার বিভিন্ন ব্যবস্থা রয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আগে থেকে এ ব্যাপারে কথা বলে রাখুন। সব ধরনের বন্দোবস্ত করে রাখুন এবং কি ঘটতে পারে সে ব্যাপারে পরিষ্কার ধারনা রাখুন।

হাসপাতালের সেবাকর্মীদের সাথে কথা বলুন

আপনার গুরুত্বপূর্ণ মনে হয় এমন যেকোনো বিষয়ে আপনার শিশুর পরিচর্যার দায়িত্বে থাকবে এমন একজন ডাক্তার বা নার্সের সঙ্গে কথা বলুন। আপনার শিশু বিশেষ ধরনের কোন সাঙ্কেতিক শব্দ (বাথরুমে যাওয়া বা অন্য কোন কিছু বোঝানোর জন্য) ব্যবহার করলে তাদেরকে কোন বিশেষ উপায়ে শান্ত করে রাখা গেলে তা সেখানকার কর্মচারীদের জানিয়ে রাখুন।

তাদের প্রিয় কোন খেলনা সঙ্গে নিন

আপনার শিশুর প্রিয় টেডি বিয়ার বা অন্যকোন প্রিয় খেলনা তার সঙ্গে হাসপাতালে নিয়ে যেতে দিন।

এই অভিজ্ঞতার কারনে আপনার শিশুর মন খারাপ হবে, এবং তার জন্য আপনি প্রস্তুত থাকুন। তাদের যথাসম্ভব আশ্বস্ত করার চেষ্টা করুন। Action for Sick Children-এ গেলে আপনি বাচ্চাকে নিয়ে হাসপাতালে থাকার সময় তাদেরকে কীভাবে সামলাবেন সে বিষয়ে অনেক তথ্য ও পরামর্শ পাবেন।

আরও তথ্য

শিশুদের গুরুতর অবস্থা এবং বিশেষ কিছু প্রয়োজনের ব্যাপারে তথ্য পাবেন এখানেঃ

আপনার শিশু দুর্ঘটনার শিকার হলে কী করবেন

About the author

Maya Expert Team