এসটিআই এসটিডিএস গনোরিয়া

গনোরিয়া

পরিচিতি

গনোরিয়া একটি যৌনবাহিত সংক্রমণ (STI),যা নাইসেরিয়া গনোরি (Neisseria gonorrhoeae) বা গনোকক্কাস নামক ব্যাকটেরিয়া থেকে হয়। এটা “ক্ল্যাপ” হিসেবেও পরিচিত। এই ব্যাকটেরিয়া মূলত পুরুষদের লিঙ্গ এবং নারীদের যোনী থেকে নিঃসৃত রসের মধ্যে থাকে।

যেভাবে একজন মানুষ গনোরিয়ায় সংক্রমিত হতে পারেঃ

যোনী, মুখ অথবা পায়ুপথে অনিরাপদ যৌনমিলনের মাধ্যমে

স্বমেহনের কাজে ব্যবহৃত কৃত্রিম যৌনাজ্ঞ বিশিষ্ট পুতুল বা সামগ্রী একজনেরটি অন্যজন ব্যবহার করলে

এই ব্যাকটেরিয়া মূলত জরায়ু মুখ, মুত্রনালী, এবং পায়ুপথে সংক্রমন ঘটায়, তবে কখনো কখনো গলা অথবা চোখে সংক্রামন ঘটাতে পারে। এই সংক্রমণ একজন গর্ভবতী মা থেকে তার গর্ভস্থ বাচ্চার মধ্যেও যেতে পারে।

গনোরিয়া চুম্বন, আলিঙ্গন, একসাথে গোসল, একই তোয়ালে ব্যবহার, একই সুইমিং পুলে সাতার কাটা বা টয়লেটের বসার জায়গা, কাপ, প্লেট, গ্লাস ইত্যাদি একজনেরটি অন্যজনের ব্যবহারের মাধ্যমে ছড়ায় না। কারণ এই ব্যাকটেরিয়া মানুষের শরীরের বাহিরে বেশিক্ষন টিকে থাকতে পারেনা।

লক্ষ্যণ এবং উপসর্গ

গনোরিয়ার স্বাভাবিক উপসর্গ হল যোনী অথবা লিঙ্গ থেকে সবুজ অথবা হলুদ রঙের ঘন নিঃসরন হওয়া, মূত্রত্যাগের সময় ব্যাথা এবং নারীদের ক্ষেত্রে দুই মাসিকের মধ্যবর্তী সময়ে রক্তস্রাব হওয়া। তবে, প্রতি ১০ জন আক্রান্ত পুরুষের ১ জন এবং আক্রান্ত নারীদের প্রায় অর্ধেক কোন ধরনের উপসর্গ অনুভব করেননা।

গনোরিয়ার পরীক্ষা

যদি আপনার গনোরিয়ার কোন উপসর্গ থাকে অথবা যদি আপনার সন্দেহ হয় যে আপনি যৌন রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারেন তবে, দ্রুত একজন চিকিৎসকের সাথে যোগাযোগ করুন।

মুত্রনালী অথবা যোনিপথের নিঃসরন পরীক্ষার মাধ্যমে খুব সহজেই গনোরিয়া নির্নয় করা যায়। পুরুষদের ক্ষেত্রে, মূত্রের নমুনা পরীক্ষা করেও এটা নির্নয় করা যায়।

গনোরিয়া যত দ্রুত সম্ভব নির্নয় করা উচিৎ, কারন গনোরিয়ার চিকিৎসা যদি না করা হয় তবে তা শারীরিক আরো সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে, মহিলাদের পেলভিক ইনফ্লামেটরী ডিজিজ (PID), এমনকি বন্ধাত্বও সৃষ্টি করতে পারে।

গনোরিয়ার চিকিৎসা

একটি এন্টিবায়োটিক ইনজেকশন এবং একটি এন্টিবায়োটিক ট্যাবলেট দ্বারা গনোরিয়া সম্পূর্ণ নিরাময় করা যায়। কার্যকরী চিকিৎসার ফলে, আপনার বেশীরভাগ উপসর্গ কিছুদিনের মাঝেই ভাল হয়ে যাবে।

সাধারণত এক বা দু সপ্তাহ পর আপনাকে ফলোআপের জন্য পুনরায় ডাক্তারের কাছে যেতে হবে। ডাক্তার আবার পরীক্ষা করে দেখবেন আপনার গনোরিয়া সম্পূর্ণ নির্মূল হয়েছে কিনা।

সম্পূর্ণ সুস্থ হওয়া পর্যন্ত সহবাস থেকে বিরত থাকা উচিত।

কারা আক্রান্ত হতে পারেন?

যৌনমিলনে সক্রিয় যে কেউ গনোরিয়ায় আক্রান্ত হতে পারেন, বিশেষকরে যারা নিয়মিত একাধিক সঙ্গীর সাথে যৌনমিলন করে থাকেন এবং যৌনমিলনে কনডম ব্যবহার করেন না। একবার চিকিৎসা নিয়ে ভাল হয়ে যাবার পরও অনিরাপদ যৌনমিলনের কারনে আপনি পুনরায় গনোরিয়ার সংক্রমিত হতে পারেন।

গনোরিয়া প্রতিরোধঃ

গনোরিয়া এবং অন্যান্য যৌনবাহিত সংক্রমন নিমোক্ত উপায়ে সফলভাবে প্রতিরোধ করা করা যায়-

প্রতিবার যৌনমিলনে কনডম ব্যবহার করা (যোনীপথে এবং পায়ুপথে)

মুখে সেক্স করে থাকলেও কনডম ব্যবহার করা

স্বমেহনের কাজে ব্যবহৃত কৃত্রিম যৌনাজ্ঞ বিশিষ্ট পুতুল বা সামগ্রী একজনেরটি অন্যজন ব্যবহার না করা, করলেও কনডম ব্যবহার করা

About the author

Maya Expert Team