এসটিআই এসটিডিএস হার্পিস

জেনিটাল হারপিসের জটিলতাসমূহ

জেনিটাল হারপিসের জটিলতাসমূহ

কিছু বিরল ক্ষেত্রে, হারপিস সিমপ্লেক্স ভাইরাস (HSV) দ্বারা সৃষ্ট ফোসকাগুলো অন্য ব্যকটেরিয়া দ্বারা সংক্রমিত হতে পারে।যদি এরকম হয় তাহলে এর থেকে ত্বকের সংক্রমণ হতে পারে যা শরীরের অন্যান্য অংশ যেমন- ঠোঁট, হাত বা আঙুলে ছড়িয়ে পড়তে পারে।

খুব অল্প কিছু ক্ষেত্রে, ভাইরাসটি মস্তিষ্ক, চোখ, যকৃত বা ফুসফুসের মতো অংশে ছড়িয়ে যেতে পারে। দুর্বল রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সম্পন্ন ব্যক্তিদের এই ধরণের জটিলতা দেখা দেয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে। উদাহরণস্বরূপ- HIV-তে আক্রান্ত ব্যক্তি অথবা যারা নির্দিষ্ট কিছু ঔষধ ব্যবহার করছেন।

জেনিটাল হারপিস ও গর্ভাবস্থা

কিছু কিছু ক্ষেত্রে, হারপিস ভাইরাস গর্ভাবস্থায় সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে এবং শিশুর জন্মের সময় তার মধ্যে সংক্রমিত হতে পারে।

জেনিটাল হারপিসের উপস্থিতি

যদি গর্ভধারণের আগে থেকেই আপনার জেনিটাল হারপিস থেকে থাকে তাহলে আপনার শিশুর ঝুঁকির মাত্রা খুবই কম। কারণ গর্ভাবস্হার শেষ কয়েক মাসের মধ্যে সব ধরনের প্রতিরক্ষামূলক অ্যান্টিবডি (সেইসব প্রোটিন যা সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করে) আপনার মাধ্যমে আপনার শিশুর মধ্যে বাহিত হবে।

এমনকি যদি গর্ভাবস্হায় আপনার জেনিটাল হারপিসের পুনঃসংক্রমণ হয় তাহলেও আপনার শিশুর ঝুঁকি বাড়বেনা। অবশ্য, আপনার উপসর্গগুলোর তীব্রতা কমানোর জন্য নিয়মিতভাবে গর্ভাবস্থার ৩৬তম সপ্তাহ থেকে সন্তান জন্ম হওয়া পর্যন্ত অ্যান্টিভাইরাল (antivairal) ঔষধ, যেমন- acyclovir, খাওয়ার দরকার হতে পারে, ।

যদি সন্তানের জন্মের সময় আপনার জেনিটাল হারপিসের ফোসকা বা ক্ষত (উন্মুক্ত ঘা) দেখা দেয় সেক্ষেত্রে ভাইরাসটি শিশুর মধ্যে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায়।

প্রথম এবং দ্বিতীয় তিন মাসের মধ্যে

যদি গর্ভাবস্থার এক থেকে ছয় মাসের, যা গর্ভাবস্থার ২৬তম সপ্তাহের মধ্যে সীমাবদ্ধ, আপনার প্রথমবারের মতো (প্রাথমিক সংক্রমণ) জেনিটাল হারপিস দেখা দেয় তাহলে আপনার গর্ভপাতের (গর্ভ নষ্ট হওয়া) ঝুঁকি থাকতে পারে। ভাইরাসটি শিশুর মধ্যে সংক্রমিত হওয়ারও বাড়তি ঝুঁকি থাকে। এটি প্রতিরোধের জন্য গর্ভাবস্থায় আপনাকে অ্যান্টিভাইরাল ঔষধ,যেমন- aciclovir নিতে হতে পারে।

শেষ তিন মাসের মধ্যে

শেষ তিন মাসের সময় (গর্ভাবস্থার ২৭তম সপ্তাহ থেকে সন্তান জন্ম নেওয়া পর্যন্ত), বিশেষকরে গর্ভাবস্থার শেষ ছয় সপ্তাহে যদি আপনি প্রথম বারের মতো জেনিটাল হারপিসে আক্রান্ত হন তাহলে আপনার শিশুর মধ্যে ভাইরাসটি সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি অনেক বেশি থাকে। কারণ এক্ষেত্রে আপনার শিশুর মধ্যে প্রতিরক্ষামূলক অ্যান্টিবডি পাঠানোর জন্য সময় পাওয়া যায়না এবং শিশুর জন্মের সময় বা তার পূর্বে ভাইরাসটি শিশুর মধ্যে সংক্রমিত হতে পারে।

এই ঘটনাকে প্রতিরোধ করার জন্য আপনাকে সিজারিয়ান সেকশন প্রসব করতে হতে পারে। সিজারিয়ান সেকশন হলো সন্তান প্রসবের জন্য উদরের (পেটের) এবং গর্ভের সামনের দেয়াল কাটার মাধ্যমে এক ধরনের অস্ত্রোপচার। যদি আপনি যোনির মধ্য দিয়ে সন্তান প্রসব করেন তাহলে আপনার সন্তানের মধ্যে ভাইরাসটি সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি প্রায় ৪০%।

যদি আপনি গর্ভাবস্থার শেষ পর্যায়ে জেনিটাল হারপিসে আক্রান্ত হন তাহলে আপনাকে গর্ভাবস্থার শেষ চার সপ্তাহ পর্যন্ত নিয়মিত অ্যান্টিভাইরাল ঔষধ নিতে হবে। অবশ্য এতে করে সিজারিয়ানের প্রয়োজন এড়ানো নাও যেতে পারে।

নবজাতকের (neonatal) হারপিস

নবজাতকের হারপিস হলো জন্মের প্রায় কাছাকাছি সময়ে শিশুর হারপিস সিমপ্লেক্স ভাইরাসে আক্রন্ত হওয়া। এটি মারাত্মক এবং কিছু কিছু ক্ষেত্রে প্রাণঘাতী হতে পারে। অবশ্য, যুক্তরাজ্যে নবজাতকের হারপিস বিরল, প্রতি ১০০,০০০ জীবিত শিশুর মধ্যে এক বা দুইটি শিশু এতে আক্রান্ত হয়।

নবজাতকের হারপিস তিন ধরণের হয় যা শরীরের বিভিন্ন অংশে প্রভাব ফেলে। নবজাতকের হারপিস প্রভাব ফেলতে পারেঃ

চোখ, মুখ ও ত্বক,

কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্র (মস্তিষ্ক, স্নায়ু ও সুষুম্না কান্ড),

একাধিক অঙ্গ

এই রোগের উপসর্গযুক্ত শিশুদের ক্ষেত্রে শুধুমাত্র তাদের চোখ, মুখ বা ত্বক আক্রান্ত হয় যার অধিকাংশই অ্যান্টিভাইরাল চিকিৎসার মাধ্যমে সম্পূর্ণ সেরে যায়। অবশ্য, যেসব ক্ষেত্রে একাধিক অঙ্গ আক্রান্ত হয় সেক্ষেত্রে পরিস্থিতি আরও মারাত্মক হয়ে পড়ে এবং এই ধরণের নবজাতকের হারপিসে আক্রান্ত শিশুদের প্রায় এক তৃতীয়াংশ মৃত্যুবরণ করে।

About the author

Maya Expert Team