এসটিআই এসটিডিএস হার্পিস

জেনিটাল হারপিস প্রতিরোধ করা

জেনিটাল হারপিস প্রতিরোধ করা

নিচের পরামর্শগুলো হারপিস সিমপ্লেক্স ভাইরাস (HSV) ছড়িয়ে পড়া রোধে সহায়ক হতে পারে।

যৌনমিলন এড়িয়ে চলুন

যদি আপনার জেনিটাল হারপিস হয়ে থাকে তাহলে যৌনমিলন (যোনি, পায়ু মুখ ব্যবহার করে) এড়িয়ে চলুন যতক্ষন পর্যন্ত আপনার যৌণাঙ্গের চারপাশের ফোসকা বা ক্ষত (উন্মুক্ত ঘা) সেরে না যায়। আপনার জেনিটাল হারপিসের কোন উপসর্গ থেকে থাকলে যৌন সহবাস না করাই সবচেয়ে ভাল কারন এই অবস্থায় এটি অত্যন্ত সংক্রামক হয়।

যৌনক্রিয়ার সময় ব্যবহৃত খেলনা ভাগাভাগি করা এড়িয়ে চলুন যেহেতু এগুলোর মাধ্যমেও যৌনবাহিত রোগ সংক্রমিত হতে পারে। যদি এগুলো শেয়ার করতে হয় তাহলে অবশ্যই আপনি সেগুলো ধুয়ে নেবেন এবং কনডম দিয়ে আবৃত করবেন। এছাড়াও যদি আপনাদের দুজনের কারোর মুখের চারপাশে ঠান্ডাজনিত ঘা থাকে তাহলে আপনার উচিৎ আপনার সঙ্গীকে চুম্বন করা এড়িয়ে চলা।

সবসময় কনডম ব্যবহার করুন – যেকোন ধরনের যৌনমিলনের (যোনি, পায়ু ও মুখ দিয়ে) সময় সর্বদা কনডম ব্যবহার করুন, এমনকি আপনার লক্ষণগুলো চলে যাবার পরেও। নতুন সঙ্গীর সাথে যৌনমিলনের সময় এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

কনডম ব্যবহার করাটা জেনিটাল হারপিসের বিস্তার রোধে সহায়ক হতে পারে তবে কনডম শুধুমাত্র লিঙ্গকে আবৃত করে। যদি ভাইরাসটি মলদ্বার বা তার আশেপাশে উপস্থিত থাকে তাহলেও এটি যৌনমিলনের মাধ্যমে স্থানান্তরিত হতে পারে।

যেহেতু HSV ত্বকের স্নায়ুর মধ্যে টিকে থাকতে পারে তাই আপনার আর কোন লক্ষণ না থাকা স্বত্ত্বেও ভাইরাসটি আপনার ত্বকে উপস্থিত থাকতে পারে। এর মানে হলো আপনার কাছ থেকে অন্যদের মধ্যে এই ভাইরাসটি ছড়ানোর সম্ভাবনা তখনো রয়ে যায়।

আপনার সঙ্গীর পরীক্ষা করা

যদি আপনার জেনিটাল হারপিস হয়ে থাকে এবং আপনার সঙ্গী এর লক্ষণগুলো অনুভব করেন তাহলে অবিলম্বে ডাক্তারকে দেখানোর জন্য তাদেরকে উৎসাহিত করা উচিৎ যাতে করে এই রোগের জন্য তাদেরকে পরীক্ষা করা যায়।

জেনিটাল হারপিসের প্রথম সংক্রমণ (প্রাথমিক সংক্রমণ) প্রায়ই ভাইরাসটির সংস্পর্শে আসার কিছু সময় পরে বিকশিত হয় তাই আক্রান্ত ব্যক্তিরা তাদের সংক্রমণ সম্পর্কে অবগত নাও থাকতে পারে।

About the author

Maya Expert Team