এসটিআই এসটিডিএস হার্পিস

জেনিটাল হারপিসের কারণসমূহ

জেনিটাল হারপিসের কারণসমূহঃ 

জেনিটাল হারপিস, হারপিস সিমপ্লেক্স ভাইরাস (HSV) দ্বারা সৃষ্ট অসুখ।এই ভাইরাসটি অত্যন্ত সংক্রমক এবং প্রত্যক্ষ সংযোগের মাধ্যমে একব্যক্তি থেকে অন্য ব্যক্তিতে এটি ছড়িয়ে পড়ে, যেমনঃ যোনিপথে, পায়ুতে বা মুখ দিয়ে যৌনকর্মের সময়। দুই ধরণের HSV রয়েছেঃ

টাইপ-১(HSV-1)

টাইপ-২(HSV-2

জেনিটাল হারপিস টাইপ-১ ও টাইপ-২ উভয় ধরণের ভাইরাসের দ্বারাই সৃষ্ট। যখনই আপনার ত্বকের উপরিতলে HSV আবির্ভূত হয় তখন থেকেই এটি আপনার সঙ্গীর মধ্যে সংক্রমিত হতে পারে। এই ভাইরাস আর্দ্র ত্বক অর্থাৎ আপনার যৌনাঙ্গ, মুখ ও মলদ্বার দিয়ে সহজে বাহিত হয়।

কিছু কিছু ক্ষেত্রে, শরীরের অন্য অংশ যা হয়তো HSV দ্বারা আক্রান্ত, তার সংস্পর্শে এসে সংক্রমিত হওয়াও সম্ভব হতে পারে যেমন- চোখ ও ত্বক। উদাহরণস্বরূপ – আপনার যদি এমন কারো সাথে মুখ ব্যবহার করে যৌনক্রিয়া করে থাকেন যার ঠান্ডাজনিত ঘা রয়েছে তাহলে আপনি জেনিটাল হারপিসে আক্রান্ত হতে পারেন। ঠান্ডাজনিত ঘা হলো মুখের চারপাশে ফোসকার মতো ক্ষত, যা HSV  দ্বারা সৃষ্ট হতে পারে।

জেনিটাল হারপিস সচরাচর কোন বস্তুর মধ্য দিয়ে বাহিত হয়না, যেমনঃ তোয়ালে, ছুরি-চামচ বা কাপ ইত্যাদি, কারণ ভাইরাসগুলো ত্বক থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার পর খুব দ্রুত মরে যায়। অবশ্য, আপনি এতে সংক্রমিত হতে পারেন যদি আপনি এমন কারো সাথে যৌনক্রিয়ায় ব্যবহৃত খেলনা ভাগ করেন যার এই ভাইরাসটি রয়েছে। জেনিটাল হারপিস সনাক্ত করা সহজ হয় যখন একজন আক্রান্ত ব্যক্তির ফোসকা বা ঘা দেখা দেয়। অবশ্য, এটি যেকোন সময় ধরা পড়তে পারে, এমনকি আক্রান্ত ব্যক্তির আদৌ কোন লক্ষন না থকলেও। একবার আপনি HSV দ্বারা সংক্রমিত হলে এটি মাঝে মাঝেই পুনঃসক্রিয় হয়ে জেনিটাল হারপিসের নতুন একটি পর্বের সূচনা করতে পারে। এটি পুনরাবৃত্তি হিসাবে পরিচিত।

পুনরাবৃত্তির উদ্দীপকসমূহ

HSV কেন পুনরায় সক্রিয় হয় তা এখনো পুরোপুরি বোঝা যায়নি তবে নির্দিষ্ট কিছু উদ্দীপক জেনিটাল হারপিসের পুনঃসক্রিয়তার জন্য দায়ী হতে পারে।

উদাহরণস্বরূপ -যৌনমিলনের সময় যৌনাঙ্গে ঘর্ষণ পুনরাবৃত্তির জন্য দায়ী হতে পারে। পিচ্ছিলকারক পদার্থ ব্যবহার করলে উপকার পাওয়া যেতে পারে – এগুলো কোন চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়াই ফার্মেসিতে পাওয়া যায়।

অন্যান্য উদ্দীপকগুলোর মধ্যে রয়েছেঃ

অসুস্থবোধ করা

মানসিক চাপ

অতিরিক্ত পরিমানে মদ্যপান করা

অতিবেগুনী আলোর সংস্পর্শে আসা

যৌনাঙ্গে অস্ত্রোপচার

রোগ প্রতিরোধক ব্যবস্থা (শরীরের স্বাভাবিক প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা) কমজোর হওয়া, উদাহরণস্বরূপ- কেমোথেরাপি (ক্যান্সারের চিকিৎসা) নেওয়ার ফলে।

About the author

Maya Expert Team