চোখ সংক্রান্ত সমস্যা চোখের প্রদাহ

চোখ ওঠা/কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস-কারণ

চোখ ওঠা/কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস-কারণ
কঞ্জাঙ্কটিভায় (চোখের সামনের সাদা অংশ ও চোখের পাতার ভিতরের দিক আবরনকারী সূক্ষ পর্দা) প্রদাহ সৃষ্টি হলে তাকে কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস বা চোখ ওঠা বলে। প্রদাহ সৃষ্টির সচরাচর তিনটি কারন হচ্ছেঃ

  • সংক্রমণ(ইনফেকশন) – ইনফেকটিভ কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস
  • অ্যালার্জিক – অ্যালার্জিক কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস
  • কঞ্জাঙ্কটিভায় অস্বস্তি তৈরীকারী বস্তু (উদাহরন; ঝরে পড়া বা অবিন্যস্ত পাপড়ি)

এগুলো নিচে বিস্তারিত আলোচনা করা হল।


সংক্রমণের কারনে হওয়া কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস (Infective conjunctivitis)
চোখের ইনফেকশনগুলোর সাধারন কারন সমূহঃ

  • ব্যাকটেরিয়া বা অনুজীব – যেমনঃ ফুসফুস ও কানে রোগ তৈরী কারী ব্যাকটেরিয়া প্রজাতি।
  • ভাইরাস – অনেকক্ষেত্রে অ্যাডেনোভাইরাস যা গলা ব্যাথা, জ্বরও তৈরী করতে পারে।
  • যৌনবাহিত সংক্রমন,  যেমনঃ ক্ল্যামিডিয়া বা গনোরিয়া

ভাইরাসের কারনে কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস হলে চোখ দিয়ে পানিময় তরল নিঃস্বরন হয় আর ব্যাকটেরিয়ার কারনে হলে পুঁজের মত তরল বের হতে পারে। আই সোয়াব (eye swab) পরীক্ষা করে সংক্রমণের কারন নির্ণয় করা যেতে পারে।


কিভাবে ছড়ায়
ইনফেকটিভ কঞ্জাঙ্কটিভাইটিসে ভুগছে এমন কারো ঘনিষ্টভাবে কাছাকাছি এলে এতে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। একারনে এমন কারো সংস্পর্শে এলে অবশ্যই সঠিক নিয়মে হাত ধুতে হবে। সংক্রমণে আক্রান্ত কারো সাথে বালিশ বা তোয়ালে শেয়ার করবেন না


কাদের ঝুঁকি বেশি
নিম্নোক্ত অবস্থায় কোন কিছুর সংক্রমণ থেকে কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস হওয়ার সম্ভাবনা আপনার বেশি থাকেঃ

  • শিশু ও বৃদ্ধগণ; শিশুরা স্কুলে অনেক বাচ্চাদের সংস্পর্শে আসে এবং বৃদ্ধদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হয়।
  • সম্প্রতি কারো শ্বাসনালীতে কোন সংক্রমণ হয়ে থাকলে
  • ডায়াবেটিস বা অন্যকোন কারনে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গিয়ে থাকলে
  • কর্টিকস্টেরয়েড জাতীয় ওষুধ সেবন। এতে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়।
  • ব্যাকটেরিয়ার কারনে ব্ল্যাফারিটিস”(Blepharitis) (চোখের পাতার বেড়সমূহের প্রদাহ) হলে এ থেকে কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস হতে পারে।
  • জনাকীর্ণ যায়গায় অবস্থান করলে।


অ্যালার্জিক কনজাঙ্কটিভাইটিস
(Allergic conjunctivitis)
কারো চোখ অ্যালার্জেন (Allergen) এর সংস্পর্ষে আসলে অ্যালার্জিক কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস হতে পারে।অ্যালার্জেন হচ্ছে কোন নির্দিষ্ট বস্তু যা নির্দিষ্ট ব্যাক্তির শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যাবস্থাকে অস্বাভাবিকভাবে চালিত করে অনিয়ন্ত্রিতভাবে বিভিন্ন রাসায়নিক উৎপন্ন করে যার ফলে বিভিন্নরকম গুরুতর শারীরিক সমস্যার সৃষ্টি হয় যাতে মৃত্যুও হতে পারে, রোগ প্রতিরোধ ব্যাবস্থার এ অস্বাভাবিক আচরণকে অ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়া (Allergic reaction)বলে। চার ধরনের অ্যালার্জিক কঞ্জাংটিভাইটিস রয়েছেঃ

  • সিজনাল অ্যালার্জিক কনজাংটিভাইটিস (Seasonal allergic conjunctivitis) – বিশেষ ঋতুতে দেখা দেয়
  • পে্রেইনিয়াল অ্যালার্জিক কনজাঙ্কটিভাইটিস (Perennial allergic conjuntivitis) – বছরের যে কোন সময় দেখা দিতে পারে
  • কন্টাক্ট ডার্মাটোকঞ্জাঙ্কটিভাইটিস (contact dermatoconjunctivitis)
  • জায়ান্ট প্যাপিলারি কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস (giant papillary conjunctivitis)

সিজনাল ও পেরেইনিয়াল অ্যালার্জিক কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস

এমন কঞ্জাঙ্কটিভাইটিসগুলো সাধারণত নিচের জিনিসগুলোর কারনে হয়ঃ

  • ঘাস, লতাপাতা, গাছ বা ফুলের রেনু
  • জঞ্জাল বা ধুলোয় উৎপন্ন খুব ক্ষুদ্র পোকা (dust mite)
  • প্রানির মৃত চামড়া থেকে ঝরে পরা আঁইশ (flakes of dead animal skin)

এধরনের কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস সাধারণত যাদের অন্যান্য অ্যালার্জি (যেমনঃ হাঁপানি) আছে তাদের হয়, এবং প্রায় ক্ষেত্রেই নাকের ভেতরের আবরনকে আক্রান্ত করে এমন অ্যালার্জির (allergic rhinitis) সাথে দেখা দেয়।


কন্টাক্ট ডার্মাটোকঞ্জাঙ্কটিভাইটিস
(Contact dermatoconjunctivitis)
কন্টাক্ট ডার্মাটোকঞ্জাঙ্কটিভাইটিস সাধারনতঃ চোখের ড্রপ ব্যবহার করার কারনে হয়ে থাকে, তবে এটি প্রসাধন বা অন্যান্য রাসায়নিক পদার্থের কারনেও হতে পারে।


জায়ান্ট প্যাপিলারি কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস (Giant papillary conjunctivitis)
নিম্নোক্ত জিনিসগুলোর কারনে জায়ান্ট প্যাপিলারি কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস হয়ঃ

  • কন্টাক্ট লেন্স
  • চোখের অপারেশনে করা সেলাইয়ের সুতা থেকে
  • অপারেশনের মাধ্যমে চোখে প্রতিস্থাপিত কৃত্রিম অংশ (prostheses)-এর কারনে

শক্ত কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করেন এমন ব্যক্তিদের ১% এবং নরম কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করেন এমন ব্যক্তিদের ১%-৫% জায়ান্ট প্যাপিলারি কঞ্জাঙ্কটিভাইটিসে আক্রান্ত হওয়ার তথ্য রয়েছে।


ইরিট্যান্ট কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস (Irritant conjunctivitis)
অনেক কারনে ইরিট্যান্ট কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস হতে পারে। এর কিছু সাধারন কারন হচ্ছেঃ

  • সুইমিং পুলের পানিতে থাকা ক্লোরিন
  • শ্যাম্পু
  • অবিন্যস্ত থাকা চোখের পাপড়ি কঞ্জাঙ্কটিভার সাথে ক্রমাগত ঘষা খাওয়ার কারনে
  • ধোঁয়া বা গ্যাস।

About the author

Maya Expert Team