চোখ সংক্রান্ত সমস্যা চোখের প্রদাহ

চোখ ওঠা/কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস- জটিলতা

চোখ ওঠা/কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস- জটিলতা
চোখ ওঠার জন্য আপনার কিরকম জটিলতা হতে পারে তা নির্ভর করে সংক্রমণের কারনে (ইনফেক্টিভ কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস) নাকি অ্যালারজির কারনে (অ্যালারজিক কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস) চোখ উঠেছে তার ওপর ।


সংক্রমণের কারনে চোখ ওঠা (
Infective conjunctivitis)
আপনার যদি ক্ল্যামিডিয়ার মত কোন যৌন সংক্রামক রোগের সংক্রমণ হয় তাহলে আপনার সুস্থ হতে কয়েক সপ্তাহের বদলে কয়েক মাস লাগতে পারে। তবে যেকোন ব্যাকটেরিয়ার জন্য সংক্রমণ হলেই বেশ কিছু জটিলতা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে; বিশেষ করে নির্ধারিত সময়ের আগে (গর্ভাবস্থার ৩৭ সপ্তাহের আগে) জন্ম নেয়া শিশুদের এসব জটিলতায় আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা বেশি ।

সম্ভাব্য জটিলতাসমূহ:

  • মেনিনজাইটিস (Meningitis): মস্তিষ্ক এবং মেরুদণ্ডের চারপাশে কোষের আবরণকে মেনিনজেস বলে। মেনিনজেস এর সংক্রমণকেই মেনিনজাইটিস বলে।
  • সেলুলাইটিস(Cellulitis): এটি চামড়া এবং টিস্যুর গভীরের একটি ইনফেকশন যার কারনে চামড়ায় কালশিটে পড়ে যায় এবং ফুলে যায়। খুব সহজেই অ্যান্টিবায়োটিকের সাহায্যে এর চিকিৎসা করা যায়।
  • সেপ্টিসেমিয়া (Septicemia): এটি ব্লাড পয়যনিং নামেও পরিচিত। ব্যাকটেরিয়া রক্তে মিশে গিয়ে শরীরের টিস্যুগুলোকে আক্রমণ করলে এই জটিলতা দেখা যায়।
  • অটিটিস মিডিয়া(Otitis media): এটি একটি ক্ষণস্থায়ী কানের ইনফেকশন। হেমোফিলিয়াস ইনফ্লুয়েঞ্জা ব্যাকটেরিয়ার কারনে চোখ উঠেছে এমন প্রতি চার জন শিশুর মধ্যে একজন এতে আক্রান্ত হয়।


নবজাতক শিশুর চোখ ওঠা (
Neonatal conjunctivitis)
২৮ দিন বয়স পর্যন্ত শিশুদের সংক্রমণের কারনে চোখ উঠলে সেটি পরবর্তীতে খুব দ্রুত মারাত্মক আকার ধারন করতে পারে। ঠিকমত চিকিৎসা না করালে শিশুর দৃষ্টিশক্তি স্থায়ীভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে।

আপানর নবজাতকের সংক্রমণের কারনে চোখ উঠলে তাকে সাথে সাথে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যান। চিকিৎসকেরা শিশুর অবস্থা নিবিড় ভাবে পর্যবেক্ষণ করে যথাযথ চিকিৎসার ব্যাবস্থা করেন। অধিকাংশ শিশু কোন প্রকার জটিলতা ছাড়াই পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ওঠে।

ক্ল্যামিডিয়ার কারনে চোখ উঠেছে এমন প্রতি পাঁচটি শিশুর মধ্যে একজনের নিউমনিয়া হবার সম্ভাবনা থাকে। এমন হলে শিশুকে হাসপাতালে ভর্তি করা লাগতে পারে, কারন নবজাতকদের জন্য নিউমনিয়া প্রাণঘাতী হয়ে উঠতে পারে।


অ্যালার্জির কারনে চোখ ওঠা (
Allergic conjunctivitis)
আপনার ধুলা বালি, ফুলের রেণু বা পশুপাখিতে অ্যালার্জির কারনে চোখ উঠলে কোন মারাত্তক জটিলতা হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। তবে এর ফলে দৈনন্দিন কাজ সাচ্ছন্দে করা বেশ কঠিন হয়ে পড়ে। যেমন ধরুন আপনার যদি ফুলের রেণুতে অ্যালারজি থাকে তবে আপনার জন্য বসন্ত এবং গ্রীষ্মকালে বাইরে যাওয়া অথবা স্কুলে বা কাজে মনোযোগ দেয়া অত্যন্ত কষ্টকর হবে। এরকম চোখ ওঠার কারনে আপনার জীবনযাত্রার মান ব্যাহত হলেও মারাত্তক কোন জটিলতা হবার সম্ভাবনা খুব কম।


পাঙ্কটেইট এপিথেলিয়াল কেরাটাইটিস (
Punctate epithelial keratitis)
অনেক সময় চোখ ওঠার জন্য কেরাটাইটিস নামে একরকম জটিলতা দেখা যায়। কেরাটাইটিস হলে কর্নিয়া (চোখের সামনের অংশ) ফুলে যায়। এর ফলে চোখে ব্যাথা হয় এবং চোখ আলোর প্রতি অতিরিক্ত সংবেদনশীল (photophobia) হয়ে পড়ে। অনেক সময় চোখে আলসারও হতে পারে। আলসারের জন্য কর্নিয়া জখম হলে আপনার দৃষ্টি স্থায়ীভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে।

এরকম কোন লক্ষণ দেখলে সাথে সাথে আপনার ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করুন বা নিকটস্থ হাসপাতালের জরুরী বিভাগে চলে যান।

About the author

Maya Expert Team