চোখ সংক্রান্ত সমস্যা চোখের প্রদাহ

চোখ ওঠা/কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস- রোগ নির্ণয়

চোখ ওঠা/কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস- রোগ নির্ণয়
চোখের ডাক্তার আপনার উপসর্গগুলোর সঠিক বর্ণনা শুনে ও চোখ পরীক্ষা করে আপনার কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস হয়েছে কিনা তা নির্ণয় করা সহ কঞ্জাঙ্কটিভাইটিসটি কোন ধরনের এবং এর চিকিৎসার ব্যাপারে সহজে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। সংক্রমণ জনিত (ইনফেকশন) কঞ্জাঙ্কটিভাইটিসে সচরা্চরভাবে চোখ লাল হওয়া, পানি পড়াসহ চোখের পাতা আঠা্লো হয়ে লেগে যাওয়ারমত উ্পসর্গ দেখা দিতে পারে । তবে,কোন কোন সময় সংক্রমিত কঞ্জাঙ্কটিভাইটিসকে অন্য ধরনের কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস থেকে আলাদা করা কঠিন হয় এবং এগুলোর চিকিৎসা পদ্ধতি এর থেকে আলাদা।


সোয়াব টেস্ট (Swab test)
যদি প্রাথমিক চিকিৎসায় কাজ না হয় তাহলে ডাক্তার আপনার কঞ্জাঙ্কটিভাইটিসের ধরন নির্ণয়ের জন্য সোয়াব টেস্ট (চোখের নিঃসরন পরীক্ষা) সহ আরও কিছু পরীক্ষা করতে দিতে পারেন।

সোয়াব দেখতে একটি ছোট কটন বাডের মত। এটি দিয়ে আপনার আক্রান্ত চোখ থেকে নির্গত আঠালো তরল (mucus) সংগ্রহ করা হয় এবং কঞ্জাঙ্কটিভাইটিসের কারন নির্ণয়ের জন্য তা ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করা হয়।

অন্যান্য অবস্থা
বেশীরভাগ কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস কোন চিকিৎসা ছাড়াই এক-দুই সপ্তাহের মধ্যে বা তারও আগে ভাল হয়ে যায়। কোন কোন ক্ষেত্রে এটি দুই সপ্তাহের বেশি ধরে থাকতে পারে যাকে পারসিস্টেন্ট ইনফেক্টিভ কঞ্জাঙ্কভাইটিস (persistent infective conjunctivitis) বলা হয়।

কারো চোখে তীব্র ব্যাথা, ঝাপসা দেখা, বা আলোতে তাকাতে অসুবিধা হওয়ার মত উপসর্গ দেখা দিলে তার সমস্যাটি খুব গুরুতর বলে বিবেচনা করা হয়।

এই উপসর্গগুলোর কোন একটিও যদি দেখা দেয় তাহলে দেরী না করে অবশ্যই চোখের ডাক্তারের কাছে বা হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নিতে হবে।


চোখের আরও কিছু গুরুতর সমস্যা নিম্নরুপঃ

হঠাৎ শুরু হওয়া তীব্র গ্লকোমা (Acute glaucoma): এই অসুখটিতে চোখর অভ্যন্তরে বেদনাদায়ক চাপ তৈরি হয়।

কেরাটিটিস (Keratitis): এটি কর্নিয়ার প্রদাহ, যাতে কর্নিয়া ফুলে যায় এবং এতে ক্ষত দেখা দেয়।

আইরিটিস (Iritis): এটি একধরনের ইউভেটিস (uveitis; চোখের মাঝখানের অংশ ফুলে যাওয়া) যার কারনে ব্যাথা হয়, মাথা ব্যাথা করে এবং চোখ দিয়ে পানি পড়ে।


নবজাতক

আপনার যদি মনে হয় যে, আপনা্‌র নবজাতকের সংক্রমণ জনিত কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস হয়েছে তাহলে সাথে সাথে ডাক্তার দেখান। এটিকে নবজাতকের কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস (neonatal conjunctivitis)-ও বলে।

আপনার শিশুর চোখের পাতাগুলো আঠালো হয়েছে নাকি তার সংক্রামিত কঞ্জাঙ্কটিভাইটিস হয়েছে সেটা বুঝার জন্য ডাক্তার নিবিড় ভাবে তাকে পরীক্ষা করবেন। যদি কোন শিশু সংক্রামিত কঞ্জাংটিভাইটিসে আক্রান্ত বলে সন্দেহ হয়, তাকে চিকিৎসার জন্য অবিলম্বে চক্ষু বিশেষজ্ঞের কাছে পাঠানো হবে।

About the author

Maya Expert Team